শিরোনাম

বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - ইউনিক বিজনেস সিস্টেমস লিমিটেড ডিলার সেলিব্রেশন ২০১৭ | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - এলো ডেলের নতুন ইন্সপাইরন এন৭৩৭০ ল্যাপটপ | বুধবার, নভেম্বর 22, 2017 - আবার স্মার্টফোনে ফিরছে ইন্টেল | বুধবার, নভেম্বর 22, 2017 - উবারের ৫ কোটি ৭০ লাখ গ্রাহকের তথ্য চুরি হয়েছিল | বুধবার, নভেম্বর 22, 2017 - ৫০০০মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি সহ বাজারে আসতে চলেছে নোকিয়া’র নতুন ফোন | বুধবার, নভেম্বর 22, 2017 - অনলাইন শপিংয়ে সিম কার্ড | বুধবার, নভেম্বর 22, 2017 - রেকর্ড গড়ছে বিটকয়েন | বুধবার, নভেম্বর 22, 2017 - প্রধানমন্ত্রীর নিকট অ্যাসোসিও ডিজিটাল গভর্নমেন্ট অ্যাওয়ার্ড হস্তান্তর | মঙ্গলবার, নভেম্বর 21, 2017 - ‘ডাকছে থাইল্যান্ড’ নামে মেগা ক্যাম্পেইন রবি’র | মঙ্গলবার, নভেম্বর 21, 2017 - ডিজিটালাইজেশনে রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব্যাংকগুলো এখনো পিছিয়ে |
প্রথম পাতা / টেলিকম / অতিরিক্ত লাইসেন্স: আন্তর্জাতিক কল সংকটে ভিওআইপি অপারেটররা

অতিরিক্ত লাইসেন্স: আন্তর্জাতিক কল সংকটে ভিওআইপি অপারেটররা

বাংলাদেশে প্রয়োজনের চেয়ে বেশি ভিএসপি এবং আইজিডব্লিউ অপারেটরের লাইসেন্স দেয়াতে আন্তর্জাতিক কল সংকট দেখা দিয়েছে। ভিএসপি লাইসেন্স দেয়ার শুরুতে সরকারের ধারণা ছিল, অধিক লাইসেন্স দেয়া হলে দেশে আন্তর্জাতিক কল বেশি আসবে। ফলে সরকারের ঘরে বেশি রাজস্ব যাবে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ফল হয়েছে উল্টো। ৮৬৫ ভিএসপি লাইসেন্সের পাশাপাশি আইজিডব্লিউর নতুন ২৫ লাইসেন্স দেয়া হলেও আন্তর্জাতিক কল সেই অনুপাতে বাড়েনি।

একই সাথে অভিজ্ঞতা ও কারিগরি জ্ঞানের অভাব, ব্যবসা সম্পর্কে ধারণা না থাকায় ভিওআইপি বা ভিএসপি (ভিওআইপি সার্ভিস প্রোভাইডার্স) অপারেটররা আন্তর্জাতিক ইনকামিং কল আনতে পারছে না।

আন্তর্জাতিক কল ক্যারিয়ারগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ না থাকায় তারা প্রত্যাশিত কল পাচ্ছে না। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ভিএসপি অপারেটরের সংখ্যা অধিক (৮৬৫টি) হওয়ায় কেউই কল পাচ্ছে না।

যদিও নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি ভিএসপি অপারেটরগুলো যাতে কল আনতে পারে সে বিষয়ে নির্দেশনা দিয়েছে।

ওই নির্দেশনা মোতাবেক আইজিডব্লিউ অপারেটরের সঙ্গে যুক্ত হয়ে কল আনার চেষ্টা করছে এবং কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান কিছু কিছু করে কল আনছে।

কিন্তু স্বতন্ত্রভাবে কোনো ভিএসপি অপারেটর কল আনতে পারছে না বলে জানা গেছে। এ ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক বিপণন একটি বড় বাধা।

ভিএসপি লাইসেন্স দেয়ার শুরুতে সরকারের ধারণা ছিল, অধিক লাইসেন্স দেয়া হলে দেশে আন্তর্জাতিক কল বেশি আসবে।

ফলে সরকারের ঘরে বেশি রাজস্ব যাবে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ফল হয়েছে উল্টো।

৮৬৫ ভিএসপি লাইসেন্সের পাশাপাশি আইজিডব্লিউর নতুন ২৫ লাইসেন্স দেয়া হলেও আন্তর্জাতিক কল সেই অনুপাতে বাড়েনি।

বর্তমানে প্রতিদিন ৫ কোটি মিনিটের বেশি কল বৈধ পথে আসছে বলে জানিয়েছেন বিটিআরসির মহাপরিচালক (সিস্টেম অ্যান্ড সার্ভিসেস) কর্নেল জাকির হোসাইন।

তিনি বলেছেন, শুক্রবারসহ সরকারি ছুটির দিনে দেশে আসা কলের পরিমাণ ৬ কোটি মিনিট ছাড়িয়ে যায়। যদিও আগে এই কলের পরিমাণ আরো বেশি ছিল।

জানা গেছে, আগে যে পরিমাণ কল আনত ৪টি আইজিডব্লিউ অপারেটর, এখন সেই পরিমাণ কলই আনছে ২৯টি আইজিডব্লিউ (বর্তমানে ১১টি আইজিডব্লিউর কল ব্লক করা হয়েছে) এবং ৮৬৫টি ভিএসপি অপারেটর।

ফলে কল ভাগাভাগি হয়ে যাচ্ছে অসংখ্য অপারেটরের মধ্যে। যদিও নিয়ন্ত্রক বিটিআরসি ভিএসপির আরো দেড়শ’ লাইসেন্স দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছে।

ভিএসপি লাইসেন্সপ্রাপ্ত অ্যাবকাস টেলিকম, এলেন টেলিকম ও মাইসা টেলিকমে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে অপারেটরগুলোর কারোরই ভিএসপি ব্যবসা সম্পর্কে কোনো ধারণা ছিল না।

এমন কি অপারেটরগুলোর প্রধানরা জানেনও না কিভাবে এ ব্যবসা করতে হয়।

জানা গেছে, কেউ পড়াশোনা শেষ করে কিছু একটা করতে হবে তাই লাইসেন্স নিয়ে ব্যবসায় নেমেছেন। কেউ বা কাজ করতে করতে শিখে ফেলবেন এমন মনোভাব নিয়ে ব্যবসায় নেমেছেন।

অভিজ্ঞতা না থাকায় ঝোঁকের মাথায় লাইসেন্স নিয়ে তারা নিজেরাই এখন বিপাকে পড়েছেন বলে জানিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক অপারেটর।

সংশ্লিষ্ট অভিজ্ঞরা বলছেন, না জেনে এ ব্যবসায় আসায় সমস্যা করছে ভিএসপি অপারেটররা।

তারা ভবিষ্যতে জটিলতার আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, বেশিরভাগ অপারেটরই আন্তর্জাতিক কল আনতে পারছে না।

অনেকেরই এ সম্পর্কে কোনো ধারণা নেই। ভিওআইপি কল আনতে গেলে আন্তর্জাতিক বিপণন জানতে হয়। বিদেশি অপারেটরগুলোর (ক্যারিয়ার) সঙ্গে যোগাযোগ থাকতে হয়।

তাহলেই কেবল নতুন অপারেটরের পক্ষে দেশে কল আনা সম্ভব।

এদিকে লাইসেন্সপ্রাপ্ত ভিএসপি অপারেটরদের জোট বেঁধে ব্যবসা করার পরামর্শ দিয়ে বিটিআরসি চেয়ারম্যান সুনীল কান্তি বোস অপারেটরদের উদ্দেশে বলেছেন, আপনারা কাজ শুরু করেন।

আয় না করতে পারলে বিটিআরসিকে দোষারোপ করবেন এটা ঠিক নয়, আয়ের জন্য আপনাদের নিজেদের উদ্যোগী হতে হবে।

লাইসেন্স যেমন নিজ উদ্যোগে নিয়েছেন তেমনি ব্যবসাও নিজের উদ্যোগে করতে হবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, রাজনৈতিক বিবেচনায় ঢালাওভাবে লাইসেন্স দেয়ায় ভিএসপি অপারেটরের অবস্থা কলসেন্টারের মতো হয়েছে।

চলতি বছরের শেষ নাগাদ অনেক ভিএসপি অপারেটর তাদের লাইসেন্স বিটিআরসিতে ফেরত দিতে পারে।

প্রসঙ্গত, বিটিআরসির সর্বশেষ সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বর্তমানে প্রতিটি আইজিডব্লিউর অধীনে ৩৫টি করে ভিএসপি পরিচালিত হচ্ছে।

এর মধ্যে সর্বোচ্চ ২০টি করে অপারেটর আইজিডব্লিউ অপারেটররা নিজের পছন্দ অনুযায়ী নির্বাচন করে নিতে পারেন। অবশিষ্ট ১৫টি ভিএসপি বিটিআরসি নির্ধারণ করে দেয়ার কথা।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top