শিরোনাম

সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - ডি-লিংক এর স্পেশাল অফার | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - রংতা ব্র্যান্ডের নতুন পিওএস প্রিন্টার | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - নারীর নিরাপত্তা ও শরনার্থীদের শিক্ষা বিষয়ক ধারণা যাচ্ছে ওসলোর টেলিনর ইয়ুথ ফোরামে | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - উদ্বোধনের অপেক্ষায় শেখ হাসিনা সফটওয়্যার পার্ক | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - আপনারই কিছু ভুল হয়তো অজান্তে ফোনের পারফরম্যান্স খারাপ করছে | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - খুলনায় দুইদিনের বেসিক আরডুইনো কর্মশালা অনুষ্ঠিত | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - ঢাকা মহিলা পলিটেকনিককে স্যামসাং এর পক্ষ থেকে অত্যাধুনিক ল্যাব হস্তান্তর  | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - সিডস্টারস ঢাকায় দেশের সেরা স্টার্টআপ সিমেড হেলথ | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - অ্যান্ড্রয়েড ফোনকে মডেম হিসেবে ব্যবহারের উপায় | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - আসছে নকিয়ার আরও দুই ফোন |
প্রথম পাতা / ওয়েব / অনলাইনে সবচেয়ে বেশী বিক্রি হয় টয়োটা করোলা
অনলাইনে সবচেয়ে বেশী বিক্রি হয় টয়োটা করোলা

অনলাইনে সবচেয়ে বেশী বিক্রি হয় টয়োটা করোলা

 অনলাইন মার্কেট প্লেসে গাড়ির বিক্রি বাড়ছে। গাড়ি ব্যবসায়ীরা তাদের গাড়ি বিক্রির জন্য অনলাইন মার্কেটপ্লেসে বিজ্ঞাপন দিচ্ছেন। এতে করে ক্রেতাদের এখন আর বিভিন্ন শো রুমে ঘুরে গাড়ি যাচাই করতে হয় না, ঘরে বসেই সব মডেলের গাড়ির দামসহ প্রয়োজনীয় সব তথ্য পেয়ে যাচ্ছেন।

দেশের শীর্ষস্থানীয় অনলাইন মার্কেট প্লেস বিক্রয় ডট কম জানিয়েছে, গত অক্টোবরে তাদের সাইটে ব্যাবহৃত গাড়ির বিজ্ঞাপন পড়েছে ১৩ হাজারেরও বেশি, যা গত জুলাই মাসের পোস্ট হওয়া বিজ্ঞাপনের চেয়ে ১৫ শতাংশ বেশি।

sell_a_car_online_-_vaishnomotors.com_1

ব্র্যান্ড মডেল বিজ্ঞাপনের সংখ্যা
টয়োটা করোলা ৯৭৯টি
টয়োটা প্রিমিও ৬০৭টি
টয়োটা এলিয়ন ৫৭৪টি
টয়োটা এক্সিও ৩৮০টি

উৎস: বিক্রয় ডট কম

বিক্রয় ডট কমের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, অনলাইনে প্রকাশিত ব্যাবহৃত গাড়ির বিজ্ঞাপনের মধ্যে টয়োটা সবচেয়ে জনপ্রিয় ব্র্যান্ড। চলতি বছরের অক্টোবরে মোট ৯ শত ৭৯টি টয়োটা করোলা গাড়ির বিজ্ঞাপন পোস্ট করা হয়েছে, যার গড় মূল্য ছিল ১১ লাখ ১৪ হাজার ৭০৩ টাকা। একই সময়ে এই সাইটে টয়োটা এক্সিও’র মোট ৩৮০ টি বিজ্ঞাপন পোস্ট করা হয়েছিল যার গড় মূল্য ১৪ লাখ ৯২ হাজার ৭৫০ টাকা। এছাড়াও বিক্রয় ডট কমে বিপুল পরিমাণে টয়োটা ব্র্যান্ডের প্রিমিও এবং এলিয়নের বিজ্ঞাপন পোস্ট করেছিলেন বিক্রেতারা।

প্রকাশিত বিজ্ঞাপন বিশ্লেষণে দেখা যাচ্ছে, উল্লেখযোগ্য সংখ্যক গাড়ি ব্যাবসায়ী নিয়মিতভাবে অনলাইন মার্কেট প্লেসে বিজ্ঞাপন দিচ্ছেন এবং কোন ধরনের ঝুঁকি ছাড়াই তাদের গাড়ি বিক্রি করছেন।

এদের মধ্যে জে এম কার সেন্টারের মালিক মো. শামীমও আছেন । তিনি বলেন, গত রোজায় তিনি এই সাইটে ২০০৮ মডেলের একটি টয়োটা এফ প্রিমিও গাড়ির বিজ্ঞাপন দিয়েছিলেন যা তিনি তার একদিন আগে কিনেছিলেন । সার্ভিসিংয়ের পরে সকাল ১১ টার দিকে তিনি ১৬ লাখ টাকা দাম চেয়ে বিজ্ঞাপনটি পোস্ট করেন।
তিনি বলেন, “মাত্র তিন ঘণ্টার মধ্যে আমি ১৩ টি ফোন কল পাই। যাদের প্রত্যেকেই সেদিনই গাড়িটি দেখতে আসতে চাচ্ছিলেন। এরপর দুই তিন জনের সাথে দর কষাকষি করে আমি রাত সাড়ে দশটার দিকে ১৫ লাখ ৮০ হাজার টাকায় গাড়িটি বিক্রি করে দিই।”

এ অ্যান্ড এ কার সেন্টারের বিক্রয় ব্যাবস্থাপক মো. মামুন জানান, রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা এবং বৈদেশিক মূদ্রার দাম কমে যাওয়ায় গত কয়েক মাসে গাড়ির বাজার মন্দা ছিল। কিন্তু অক্টোবর থেকে জাপানে গাড়ির দাম বেড়ে যাওয়ায় দেশে গাড়ির দাম আবার বেড়ে গেছে। তিনি বলেন, “যেহেতু বিক্রেতারা অনলাইনে সার্চ করে এবং আমার দেয়া বিজ্ঞাপন থেকে গাড়ি বাছাই করে কিনে, তাই হরতাল আমার ব্যাবসাকে ক্ষতি করতে পারেনি।”
মামুন আরো জানালেন, শুধুমাত্র অক্টোবরেই তিনি বিক্রয় ডট কমের মাধ্যমে মোট ১৮টি গাড়ি বিক্রি করেছেন।

গাড়ি ব্যাবসায়ীরা বলেন, টানা হরতারের কারণে, পিকেটারদের হামলা আর ভাঙচুড়ের ভয়ে তারা শো রুম খুব কমই খুলে রাখার সুযোগ পান। এ কারণেই মূলত তারা তাদের ব্যাবসাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য অনলাইন মার্কেট প্লেসে বিজ্ঞাপন দিয়ে যাচ্ছেন।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top