শিরোনাম

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - ওয়ান প্লাসের নতুন পাওয়ার ব্যাংক | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - স্প্যাম মেসেজ ঠেকাতে হোয়াটসঅ্যাপের নতুন ফিচার | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - যাত্রা শুরু করলো ওয়ালটনের কম্পিউটার কারখানা | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - নতুন স্মার্টফোন আনল হুয়াওয়ে অনার | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - স্বল্প মূল্যের গ্যালাক্সি সিরিজের ফোন ‘অন৭ প্রাইম’ | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - একত্রে কাজ করবে এটুআই এবং একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - ল্যাপটপের সঙ্গে রাউটার ফ্রি! | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - ‘অপো এশিয়ায় সর্বাধিক বিক্রীত স্মার্টফোন’ | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - চীনে চালু হচ্ছে গুগলের এআই ল্যাব | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - বৈদ্যুতিক গাড়িতে ১১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগে ফোর্ডের আগ্রহ প্রকাশ |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / অনলাইন পেশাজীবীদের দাবির মুখে পিছু হটল ব্র্যাক ব্যাংক
অনলাইন পেশাজীবীদের দাবির মুখে পিছু হটল ব্র্যাক ব্যাংক

অনলাইন পেশাজীবীদের দাবির মুখে পিছু হটল ব্র্যাক ব্যাংক

ফেসবুকে অনলাইন পেশাজীবীদের ব্র্যাক ব্যাংক বর্জন কর্মসূচীর মুখে বিনামূল্যে সফটওয়্যার সার্ভিস দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্র্যাক ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। এখন থেকে অনলাইন সেবা নিতে সফটওয়্যারের জন্য ১৭২ টাকা দিতে হবে না গ্রাহকদের।

বৃহস্পতিবার ই-মেইল এবং শুক্রবার মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে বিষয়টি গ্রাহকদের জানিয়েছে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। একই সঙ্গে বাড়িয়ে দিয়েছে রেজিস্ট্রেশনের সময়।

জানা গেছে, সফটওয়্যার চার্জ ফ্রি করার পাশাপাশি এ চার্জের নামে যাদের কাছ থেকে টাকা নেয়া হয়েছে তাদেরকে তা ফিরিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্তও নিয়েছে ব্যাংকটি। তবে বাৎসরিক কার্ড চার্জ ৬৯০ টাকা, সার্ভিস চার্জ ৩৪৫ টাকা, এস এম এস চার্জ ২৩০ টাকা এবং হার্ডওয়্যার ১১৫০ টাকা প্রদান করতে হবে গ্রাহকদের।

আরও পড়ুন : অনলাইন প্রফেশনালদের ব্র্যাক ব্যাংক বয়কট কর্মসূচী

brac-looser

ব্র্যাক ব্যাংকের কল সেন্টারে যোগাযোগ করা হলে একজন কাস্টমার কেয়ার ম্যানেজার বলেন, আগে ১৭২ টাকা এককালীন চার্জ কাটা হলেও বর্তমানে তা ফ্রি করে দেয়া হয়েছে। তবে হার্ডওয়্যারের মূল্যে কোন পরিবর্তন আনা হয়নি।

কেন চার্জ ফ্রি করে দেয়া হলো বা আগে কেন ১৭২ টাকা চার্জ ধরা হয়েছিলো এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি কিছু জানেন না বলে জানান।

চলতি মাসের প্রথম দিকে অনলাইন পেশাজীবিরা ব্যাংকটির সার্ভিস চার্জের নামে অতিরিক্ত টাকা আদায় নিয়ে ব্যাংক বর্জনের কর্মসূচী দেন। এজন্য ‘অনলাইন প্রফেশনালদের একযোগে ব্র্যাক ব্যাংক বয়কট কর্মসূচী’ নাম দিয়ে ফেসবুকে একটি ইভেন্ট তৈরি করা হয়। সবার তীব্র প্রতিবাদের মুখে বিষয়টি নজরে আসে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের।

এ নিয়ে অনলাইন পেশাজীবীরা ফেসবুকসহ অনলাইনে আন্দোলন গড়ে তোলেন। স্ট্যাটাস, কমেন্ট, ছবি পোস্ট করে ফ্রিল্যান্সাররা ব্র্যাক ব্যাংক বর্জনের কর্মসূচী চালিয়ে নেওয়ার কথা বলেন। ফেসবুকে নিয়মিত সক্রিয় হয়ে ওঠে এ ইভেন্ট আয়োজনের সঙ্গে জড়িতরা

ব্যাংকটির ইমেইল পেয়ে ইভেন্ট পেজে এমডি রুবেল আহমেদ নামের একজন লিখেছেন, ইয়াহু! ইয়াহু! ইয়াহু! আমরা জিতে গিয়েছি। ব্র্যাক ব্যাংকের নতুন মেইল।

ফোনে যোগাযোগ করা হলে ওই ফ্রিল্যান্সার জানান, সফটওয়্যার সার্ভিস ফ্রি করে দেয়ার কারণে ভালো লাগছে বেশ। দেশের বেশিরভাগ অনলাইন প্রফেশনালরা স্মার্টফোন ব্যবহার করে থাকেন। সেবাটা ফ্রি করে দেয়ার কারণে আমাদের উপকার হয়েছে। তবে ভয়ও আছে। ভয়টা হলো আবার কোন সমস্যা দেখা দিলে নতুন করে সফটওয়্যারটি ইন্সটল করতে হবে এবং সেজন্য গুনতে হবে ভ্যাটসহ ৩৪৫ টাকা।

মশিউর রহমান নামে একজন বলেন, ব্র্যাক ব্যাংক তাদের ভুল বুঝতে পারছে। সফটওয়্যার টোকেনের ফি তারা তুলে দিয়েছে। একই সঙ্গে বাড়িয়ে দিয়েছে রেজিস্ট্রেশন করার ডেট! যাই হোক, এটা থেকে আমরা বুঝলাম, যদি একজোট হওয়া যায়, তবে এরকম অনেক সমস্যাই সমাধান করা সম্ভব।

এটিকে অনলাইনে আন্দোলনের ফসল হিসাবে মন্তব্য করেছেন অনেকে। ফেসবুকে এ নিয়ে অনেকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন ও মন্তব্য করেছেন।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top