শিরোনাম

রবিবার, জানুয়ারী 21, 2018 - বাংলালিংকের ‘হেলথলিংক ৭৮৯’ সার্ভিসে যুক্ত হল ‘ডক্টরস অ্যাপয়েন্টমেন্ট’ সুবিধা | রবিবার, জানুয়ারী 21, 2018 - গ্লোবাল ব্র্যান্ড নিয়ে এসেছে লেনোভো আউডিয়াপ্যাড ৩২০ ল্যাপটপ | রবিবার, জানুয়ারী 21, 2018 - ব্যবসায়ীদের জন্য হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস | রবিবার, জানুয়ারী 21, 2018 - হ্যাকিংয়ের কাবলে ওয়ানপ্লাস | রবিবার, জানুয়ারী 21, 2018 - আসছে ইন্টেল কোর আই৯ প্রসেসর এর ল্যাপটপ | রবিবার, জানুয়ারী 21, 2018 - বাণিজ্য মেলায় অপো এফ৫ বিজয়ীদের নাম ঘোষণা | শনিবার, জানুয়ারী 20, 2018 - আরও কঠিন হচ্ছে ইউটিউব থেকে উপার্জন | শনিবার, জানুয়ারী 20, 2018 - ফেসবুক হ্যাকড হলে করনীয় | শনিবার, জানুয়ারী 20, 2018 - কর্মজীবি নারীদের মানহানি বন্ধে আহব্বান | শনিবার, জানুয়ারী 20, 2018 - ফেসবুকে মিলবে না নিউজ আপডেট |
প্রথম পাতা / টেলিকম / আরও দুটি আইজিডব্লিউর লাইসেন্স বাতিল
আরও দুটি আইজিডব্লিউর লাইসেন্স বাতিল

আরও দুটি আইজিডব্লিউর লাইসেন্স বাতিল

সরকার আরও দুটি আন্তর্জাতিক গেটওয়ে অপারেটরের (আইজিডব্লিউ) লাইসেন্স বাতিলের অনুমোদন দিয়েছে। এ দুটি অপারেটর হলো টেলেক্স লিমিটেড এবং ভিশন টেল।অপারেটর দুটির সংযোগ ২০১৩ সালের আগস্ট থেকে বিচ্ছিন্ন রয়েছে। আর তাদের কাছে সরকারের সব মিলে বকেয়ার পরিমান ২৩০ কোটি টাকার বেশি।

এর আগে গত মাসে দুটি আইজিডব্লিউ রাতুল টেলিকম এবং কে টেলিকমিউনিকেশন্স লিমিটেডের লাইসেন্স বাতিলের অনুমোদন দিলেও এখন পর্যন্ত তা কার্যকর করেনি টেলিযোগাযাগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

IGW-BTRC

টেলেক্স আইজিডব্লিউটি’র দুজন মালিকের দুজনই প্রবাসী বাংলাদেশি। আবদুর রহমান এবং মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান নামে ওই দুই ব্যক্তি তাদের সংযোগ বন্ধ করে দেওয়ার পর থেকেই নিরুদ্দেশ রয়েছেন। কমিশনের কর্মকর্তাদের আশংকা এদের দুজনই দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন।

অন্যদিকে ভিশন টেল অপারেশন শুরুর পর থেকেই কয়েকবার লাইসেন্স হস্তান্তর করে। ফলে শেষ পর্যন্ত কাদের বিরুদ্ধে সরকার মামলা করবে তা নিয়েও রয়েছে জটিলতা।

রাতুল টেলিকম এবং কে টেলিকমের কাছেও সরকারের প্রায় দুইশ কোটি টাকা পাওনা রয়েছে। কিন্তু দুটি অপারেটরের মালিক সরকারের দুই প্রভাবশালী ব্যক্তি হওয়ায় কেউ এ নিয়ে তেমন কোনো কথা বলছেন না।

সূত্র জানিয়েছে, ২০১৩ সালের সেপ্টেম্বরের দিকে টেলেক্সের লাইসেন্স বাতিলে সরকারের অনুমোদন চায় কমিশন। এর কিছু দিন পর একই অনুমোদন চায় ভিশন টেলের জন্যও।

টেলেক্সের কাছে ওই সময় পর্যন্ত সরকারের বকেয়া ছিল ৬২ কোটি টাকা। পরে লাইসেন্স ফি এবং ১৫ শতাংশ বিলম্ব ফি মিলিয়ে এই অংক প্রায় ৮০ কোটি হয়েছে।

আর ভিশনটেলের সর্বশেষ দেনার পরিমান ১৩৯ কোটি টাকা। সঙ্গে রয়েছে লাইসেন্স ফির বকেয়া।সরকারের এ বাকির সঙ্গে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর কাছে আরও বেশ কয়েক কোটি এবং আন্তসংযোগ অপারেটরগুলোর কাছেও তাদের কয়েক কোটি টাকা বাকি রয়েছে।

এর মধ্যে টাকা পেতে দেশ সেরা মোবাইল ফোন অফারেটর গ্রামীণফোন বেশ কয়েকটি আইজিডব্লিউ অপারেটরের বিরুদ্ধে মামলা করেছে।এর আগে বিটিআরসিও টাকা পেতে মামলা করেছে। ততে কারও কোনো সন্ধান পাচ্ছে না বিটিআরসি।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top