শিরোনাম

শুক্রবার, জানুয়ারী 19, 2018 - মোবাইল সেবার মাধ্যমে বাংলাদেশ অর্জন করবে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা | শুক্রবার, জানুয়ারী 19, 2018 - ক্যাসপারস্কি ল্যাবের আয়োজনে নবনির্বাচিত কমিটির সদস্যদের সংবর্ধনা | শুক্রবার, জানুয়ারী 19, 2018 - হুয়াওয়ে নোভা টুআই এর সঙ্গে ২ বছরের ওয়ারেন্টি | শুক্রবার, জানুয়ারী 19, 2018 - এরা ইনফোটেক ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - ওয়ান প্লাসের নতুন পাওয়ার ব্যাংক | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - স্প্যাম মেসেজ ঠেকাতে হোয়াটসঅ্যাপের নতুন ফিচার | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - যাত্রা শুরু করলো ওয়ালটনের কম্পিউটার কারখানা | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - নতুন স্মার্টফোন আনল হুয়াওয়ে অনার | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - স্বল্প মূল্যের গ্যালাক্সি সিরিজের ফোন ‘অন৭ প্রাইম’ | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - একত্রে কাজ করবে এটুআই এবং একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প |
প্রথম পাতা / টেলিকম / ইন্টারনেটের দাম নির্ধারণের প্রক্রিয়া শুরু
ইন্টারনেটের দাম নির্ধারণের প্রক্রিয়া শুরু

ইন্টারনেটের দাম নির্ধারণের প্রক্রিয়া শুরু

dataমোবাইল ইন্টারনেটের প্রকৃত দাম কত হওয়া উচিত, তা নির্ধারণে কস্ট মডেলিংয়ের বহু প্রতিক্ষীত কার্যক্রম শুরু করেছে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন বা বিটিআরসি।আন্তর্জাতিকে টেলিযোগাযোগ ইউনিয়নের দু’জন বিশেষজ্ঞ এ জন্য কাজ শুরু করেছেন। তারা ধারাবাহিকভাবে বিটিআরসি ও অপারেটরগুলোর কর্মকর্তাদের সঙ্গে কর্মশালা করছেন।

আগামী কয়েক মাসের মধ্যে তারা ইন্টারনেটের দামের বিষয়ে প্রতিবেদন দেবেন। এর মাধ্যমে দেশে ইন্টারনেট ডেটার প্রকৃত দাম কতো হওয়া উচিত সেটি নিরূপিত হবে।এর আগে বিটিআরসি ভয়েস কল ও এসএমএসের কস্ট মডেলিং করে উচ্চ ও নিন্মসীমা বেঁধে দিলেও ইন্টারনেট ডেটার ক্ষেত্রে এটি কখনও হয়নি।এদিকে তিন দিনের বৈঠকে বিশেষজ্ঞরা অপারেটরগুলোর কাছে তাদের সংশ্লিষ্ট সকল ব্যয় ও আয়ের তথ্য চেয়েছেন। পরে এগুলো পর্যালোচনা করে ডেটার সর্বোচ্চ ও সর্বনিন্ম সীমা বেঁধে দেওয়া হবে।এ বিষয়ে বিটিআরসির চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেন, ডেটার কস্ট মডেলিং হলে গ্রাহকরা প্রকৃত দামে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারবেন।

এর আগে গ্রাহকদের একাধিক আবেদনের প্রেক্ষিতে মোবাইল ডেটার মূল্য বেঁধে দেওয়ার উদ্যোগ নেয় বিটিআরসি। তবে শেষ পর্যন্ত তা হয়ে ওঠেনি।মাঝে একবার এ জন্য বিটিআরসিকে এক মাসের সময়ও বেঁধে দেয় ডিজিটাল বাংলাদেশ টাস্কফোর্সের নির্বাহী কমিটি।এর আগে ২০১৬ সালের শুরুতে কস্ট মডেলিং করার উদ্যোগ নেওয়া হলেও নানা করণে তা আর শুরু করতে পারেনি কমিশন।

মাঝে একবার আন্তর্জাতিক টেলিযোগাযোগ ইউনিয়নের (আইটিইউ) কাছে এ বিষয়ে একজন বিশেষজ্ঞ পরামর্শক চেয়েছিল বিটিআরসি। তবে বিনা খরচায় ইউনিয়ন এ পরামর্শক দিতে চায়নি। পরে ২৫ লাখ ডলার ব্যয়ের চুক্তি করে আইটিইউ থেকে পরামর্শক পেল কমিশন।বিটিআরসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, উন্নত বিশ্বের কোনো দেশই কস্ট মডেলিং ছাড়া ইন্টারনেটের প্যাকেজ সাজায় না। এ ক্ষেত্রে একেক দেশ একেক পদ্ধতি অবলম্বন করে।তারা জানান, অপারেটরের খরচ, বিনিয়োগ ও লাভের অংক ধরেই পরে প্যাকেজের মূল্য নির্ধারণ করা হয়ে থাকে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top