শিরোনাম

মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের ডিজিটাল পেমেন্ট সার্ভিস ইউপের যাত্রা শুরু | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - হুয়াওয়ে মেট ১০ এ যা আছে | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - শাওমির নতুন ফোন রেডমি ৫এ | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - ফাঁস হয়ে গেল নোকিয়া ৯ এর গোপন সমস্ত তথ্য | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - হ্যাকারদের লক্ষ্য বাংলাদেশসহ অন্যান্য এশিয়ার দেশগুলোর ব্যাংকগুলো | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - এডিএন ইডু সার্ভিসেস এর উদ্দেগে এজাইল বিষয়ক কর্মশলা অনুষ্ঠিত | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - প্রথম ডিজিটাল মার্কেটিং অ্যাওয়ার্ডসে গ্রামীণফোনের ব্যাপক সাফল্য | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - গুগলের এই এয়ারপড হেডফোন যখন ট্রান্সলেটর | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - কম্পিউটার গেমের আসক্তিতে হতে পারে ভয়াবহ পরিণতি | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - ওটিসি ড্রাগ বিষয়ে সচেতনতা জরুরি |
প্রথম পাতা / ওয়েব / ই-কমার্স / ই-কমার্সে ট্যাক্স বহালে হতাশা
ই-কমার্সে ট্যাক্স বহালে হতাশা

ই-কমার্সে ট্যাক্স বহালে হতাশা

ecomerceই-কমার্স খাতে ৩৫ শতাংশ কর্পোরেট ট্যাক্স বাতিল না হওয়ায় হতাশার কথা জনিয়েছেন ই-কমার্স ব্যবসায়ীরা। খাতটির এগিয়ে যাওয়ার পথে এই ট্যাক্সকে অন্যতম অন্তরায় মনে করছেন দেশীয় উদ্যোক্তারা।

শুক্রবার বাজেট নিয়ে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে দেশের ই-কমার্স ব্যবসায়ীদের সংগঠন ই-ক্যাব প্রতিনিধিরা খাতটি হতে এই ট্যাক্স অব্যাহতির দাবি জানান। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে প্রস্তাবিত বাজেটে খাতটিতে ৩৫ শতাংশ ট্যাক্স বহাল রাখা হয়েছে।

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে জনতা টাওয়ার সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে আয়োজিত ওই সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

ই-ক্যাব সভাপতি রাজিব আহমেদ বলেন, গ্রামীণফোন, দারাজসহ বিদেশী বড় বড় কোম্পানিগুলোর জন্য এই ট্যাক্স প্রভাব ফেলে না। কিন্তু দেশীয় ছোট ছোট উদ্যোক্তাদের জন্য এটি অনেক চাপের, কষ্টসাধ্য। এতে দেশীয় কোম্পানিগুলো অসম প্রতিযোগিতায় পড়বে।

ই-কমার্স খাতের জন্য তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের কাছে ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দের দাবি জানিয়ে ই-ক্যাব সভাপতি বলেন, খাতটি রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলমেন্টের জন্যও যেন প্রতি মাসে ১ কোটি টাকা খরচ করা হয়। উদীয়মান খাতটির সঠিক পরিকল্পনা ও লক্ষ্য ঠিক করতে এই গবেষণা জরুরি বলে মনে করেছে সংগঠনটি।

ই-ক্যাব প্রতিনিধিত্বে নির্বাচিত এফবিসিসিআই পরিচালক শমী কায়সারও নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে বিষয়গুলো গুরুত্বের সঙ্গে ভেবে দেখার অনুরোধ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী, বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার, বিসিএস সভাপতি আলী আশফাক, বাক্য সভাপতি ওয়াহিদ শরীফ, সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ হোসেন, এফবিসিসিআই পরিচালক শমী কায়সার, ভেঞ্চার ক্যাপিটাল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শামীম আহসান, ই-ক্যাব সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াহেদ তমালসহ বিভিন্ন তথ্যপ্রযুক্তি সংগঠনের প্রতিনিধিরা।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top