শিরোনাম

বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় র‌্যাংকিং নিয়ে ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির সংবাদ সম্মেলন | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - বাংলাদেশে ডেলইএমসি এক্সপেরিয়েন্স সেন্টার চালু | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - চীনে স্কাইপ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - আসছে দুই সিমের আইফোন | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলের জন্য অসাধারণ অ্যাপ ফেসবুক-এর | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - ইয়োন্ডার মিউজিক বাংলাদেশের এক নম্বর মিউজিক অ্যাপ | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - উদিয়মান ব্রান্ড হিসেবে লিনেক্স পেল ‘গ্লোবাল ব্রান্ড এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড ২০১৭’ | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - ইউনিক বিজনেস সিস্টেমস লিমিটেড ডিলার সেলিব্রেশন ২০১৭ | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - এলো ডেলের নতুন ইন্সপাইরন এন৭৩৭০ ল্যাপটপ | বুধবার, নভেম্বর 22, 2017 - আবার স্মার্টফোনে ফিরছে ইন্টেল |
প্রথম পাতা / কর্পোরেট স্পেশাল / ই-শপ প্রকল্পের হেল্প লাইনের এ কী হাল!
ই-শপ প্রকল্পের হেল্প লাইনের এ কী হাল!

ই-শপ প্রকল্পের হেল্প লাইনের এ কী হাল!

eshopকোনো এক খবরের কাগজের মাধ্যমে নাহিদ জেনেছিলেন সরকারের ই-শপ প্রকল্পের বিষয়ে। সামনে কুরবানির ঈদ। তাই তিনি খোঁজ নেন ই-শপে। ফোন করেন ওয়েবসাইটে থাকা হেল্প লাইন নম্বরে। কয়েকবার ফোন দেওয়ার পর আগ্রহ হারিয়ে ফেলেন তিনি। কারণ অপর প্রান্ত থেকে কোনো সাড়া ছিল না।

নাহিদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে এরই কয়েকদিন পর মোবাইল থেকে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয় ই-শপের হেল্প লাইনে। টানা পাঁচবার ফোন দিলেও অপর প্রান্তের কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি। তবে ছয়বারের বেলায় ফোন রিসিভ হয় অপর প্রান্ত থেকে।

অপর প্রান্তে থাকা একজন নারী কর্মী জানান, এর আগে তিনি ওই সময় কোনো ফোন পাননি। ই-শপের হেল্প লাইন এমন বেহাল কেন? জানতে চাইলে ওই নারী কর্মী দাবি করেন, হেল্প লাইনের কোনো সমস্যা নেই। হয়তো কোনো কারণে ফোনটি রিসিভ করা হয়ে ওঠেনি। তবে তিনি এর জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন।

জানা গেছে, তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগের এই প্রকল্প বাস্তবায়নে সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে রয়েছে ফিউচার সলিউশন ফর বিজনেস (এফএসবি)। আর এই ই-শপের কাস্টমার সার্ভিস বিভাগে রয়েছেন মাত্র জন তিনেক কর্মী। এ ছাড়া হেল্প লাইন হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে একটি নম্বর।

ই-শপটির হেড অব কাস্টমার সার্ভিস হ্যাপি জানান, ই-শপটির হেল্প লাইনের কার্যক্রম চালু থাকে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৬টা পর্যন্ত। এই সময়ের মধ্যে যদি কোনো কারণে কোনো গ্রাহকের ফোন ধরা না হয় তবে তাকে পরবর্তীতে ফোন করা হয়।

এদিকে দেশের অন্য সব ই-কমার্স সাইটে তাৎক্ষণিক চ্যাটিংয়ের ব্যবস্থা থাকলেও ই-শপে নেই কোনো চ্যাটিংয়ের সুবিধা। তবে এর জন্য কোনো লোকবলের প্রয়োজন কিনা এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি তিনি।

এ বিষয়ে ই-শপ প্রকল্পের ইমপ্লিমেন্ট অফিসার এনামুল বলেন, হেল্প লাইনে যথেষ্ট লোকবল না থাকার কারণে ফোনে আপডেটটা হচ্ছে না। সেই সঙ্গে সেখানে সময়েরও একটি বিষয় রয়েছে। আমরা ৬টার পর ফোন ধরতে পারছি না। তবে আমরা রোস্টার এর মাধ্যমে সময় বাড়ানোর বিষয়ে চিন্তাভাবনা করছি। এ ছাড়া আমরা লোকবলের বিষয়ে আমাদের ম্যানেজম্যান্ট বিভাগের সঙ্গে কথা বলেছি। আমরা অচিরেই লোকবল বাড়াব।

লাইভ চ্যাটিংয়ের বিষয়ে তিনি বলেন, এখানে লোকবল তো একটি বিষয় রয়েছেই। সেই সঙ্গে বর্তমানে আমাদের গ্রাহকরা হলেন গৃহিনী। ফলে তারা ফোনটিকেই বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন। তবে এই বিষয়টি নিয়েও আমরা ভাবছি।

তিনি আরও বলেন, সরকারের প্রশিক্ষণ কর্মসূচি শেষে আমারদেশ আমারগ্রাম এবং ইয়াং বাংলা এই ই-শপ কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে।

উল্লেখ্য, ই-কমার্সের সুবিধা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছাতে গত বছরের আগস্টে ‘ই-শপ’ কর্মসূচির উদ্বোধন করে সরকার। ফলে এই কর্মসূচির আওতায় দেশের ৬৪ জেলার একটি করে ই-শপ এই কেন্দ্রীয় ই-কমার্স ওয়েবসাইটের সঙ্গে যুক্ত। অর্থাৎ দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা পর্যায়ের অনেক উদ্যোক্তা এই ই-শপ ব্যবহার করে তাদের নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রি করতে পারবেন।

সুত্র ;প্রিয়.কম

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top