শিরোনাম

বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় র‌্যাংকিং নিয়ে ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির সংবাদ সম্মেলন | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - বাংলাদেশে ডেলইএমসি এক্সপেরিয়েন্স সেন্টার চালু | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - চীনে স্কাইপ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - আসছে দুই সিমের আইফোন | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলের জন্য অসাধারণ অ্যাপ ফেসবুক-এর | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - ইয়োন্ডার মিউজিক বাংলাদেশের এক নম্বর মিউজিক অ্যাপ | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - উদিয়মান ব্রান্ড হিসেবে লিনেক্স পেল ‘গ্লোবাল ব্রান্ড এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড ২০১৭’ | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - ইউনিক বিজনেস সিস্টেমস লিমিটেড ডিলার সেলিব্রেশন ২০১৭ | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - এলো ডেলের নতুন ইন্সপাইরন এন৭৩৭০ ল্যাপটপ | বুধবার, নভেম্বর 22, 2017 - আবার স্মার্টফোনে ফিরছে ইন্টেল |
প্রথম পাতা / অফবিট / এবার স্মার্টফোনেই ধরা পড়বে এইচআইভি
এবার স্মার্টফোনেই ধরা পড়বে এইচআইভি

এবার স্মার্টফোনেই ধরা পড়বে এইচআইভি

hivযুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বদলেছে টেকনোলজি। বদলেছে মানুষের চিন্তা ভাবনাও। এবার স্মার্টফোনের মাধ্যমে মাত্র ১০ সেকেন্ডেই যাচাই করে নেওয়া যাবে আপনি এইচআইভি আক্রান্ত কিনা। বিজ্ঞানীরা এমনই এক স্মার্টফোন আবিষ্কার করেছেন। চিকিৎসকদের এই স্মার্টফোনের ফলাফল এইচআইভি রোগীদের খুঁজে বের করে চিকিৎসা করাতে বিশেষ সাহায্য করবে বলে মনে করা হচ্ছে। প্রচলিত পদ্ধতিতে এইচআইভি পরীক্ষা করতে অন্তত ৭২ ঘণ্টা সময় লাগে। কিন্তু এখন আর এত সময় লাগবে না।

ইংল্যান্ডের গবেষক দলের বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, যে তত্ত্বে ভর করে এইচআইভি টেস্ট করা সম্ভব হয়েছে তা ব্যবহার করে জিকা, ইবোলার মতো ভাইরাসের সন্ধানও করা যেতে পারে। গোটা প্রক্রিয়াটির বিজ্ঞানের ভাষায় নাম ‘সারফেস অ্যাকোস্টিক ওয়েভ’ বায়েচিপ। এটি মাইক্রোইলেক্টনিক যৌগ দিয়ে তৈরি বায়োচিপ যা স্মার্টফোনে ভরা থাকছে। এর সঙ্গে থাকছে একটি কন্ট্রোল বক্স যা সিগন্যালের মাধ্যমে ফলাফল দেখিয়ে দেবে।

বায়োচিপ অনেকটা ইউএসবি ড্রাইভের মতো যা স্মার্টফোনে ভরা থাকবে। গবেষকরা জানান, ইউএসবি ড্রাইভের স্টিকের ওপর একটা জায়গা চিহ্নিত করা থাকবে। খুব সামান্য মাত্রায় তার ওপর রক্ত ফেলতে হবে। রক্তে এইডস ভাইরাস থাকলে বা তার মাত্রা বেড়ে গেলে ওই যন্ত্রটির স্টিকে লাগানো এসিডের রং বদলে যাবে, বদলে যাবে এসিডের কিছু গুণাগুণও।

ওই রাসায়নিক বিক্রিয়া থেকে যে শক্তি উৎপন্ন হবে, তার একটা অংশ বিদ্যুৎশক্তিতে রূপ নেবে। এর ফলে সৃষ্টি হবে ইলেকট্রিক সিগন্যাল। অনেকটা ‘ইলেকট্রিক্যাল স্পার্ক’-এর মতো। ইউএসবি ড্রাইভের স্টিকের মাধ্যমে সেই স্পার্ক স্মার্টফোনের স্ক্রিনে পরীক্ষার ফল ফুটিয়ে তুলবে। এই পদ্ধতিতে এইচআইভি পরীক্ষায় যথার্থতার (অ্যাকিউরেসি) মাত্রা ৯৫ শতাংশ। গবেষকরা জানিয়েছেন, আগে থেকে এইচআইভি ধরা পড়লে আয়ু অন্তত ১০ বছর বেড়ে যায়। পাশাপাশি গর্ভবতী মহিলাদের সন্তানদেরও নিরাপদ রাখার ক্ষেত্রে সুবিধা হয়। নতুন পদ্ধতি সাকসেস হলে তবে চিকিৎসা বিজ্ঞানে বিশাল এক সম্ভবনার দরজা খুলে যাবে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top