শিরোনাম

শুক্রবার, জুলাই 28, 2017 - ভিসি ও ডিন্স সার্টিফিকেট পেলেন গ্রিন ইউনিভার্সিটির ২৪০শিক্ষার্থী | শুক্রবার, জুলাই 28, 2017 - দারাজের গ্রোসারি পণ্যে ৩৫% পর্যন্ত ছাড়! | শুক্রবার, জুলাই 28, 2017 - মনিটর কিনলেই পাচ্ছেন আর্কষনীয় টি-শার্ট  | বৃহস্পতিবার, জুলাই 27, 2017 - রবি ও ট্রমা ইনস্টিটিউটের মধ্যে কর্পোরেট চুক্তি সই | বৃহস্পতিবার, জুলাই 27, 2017 - দেশের বাজারে হুইনের তারবিহীন কিউ১১কে গ্রাফিক্স ট্যাবলেট উন্মোচন | বৃহস্পতিবার, জুলাই 27, 2017 - শান্ত-মারিয়াম ইউনিভার্সিটির তথ্যপ্রযুক্তি সম্পর্কিত ত্রিপক্ষীয় চুক্তি স্বাক্ষর | বৃহস্পতিবার, জুলাই 27, 2017 - যুক্তরাষ্ট্রে বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে ফক্সকন | বৃহস্পতিবার, জুলাই 27, 2017 - স্মার্ট টেকনোলজি ও সিভিল এভিয়েশনের চুক্তি সই | বৃহস্পতিবার, জুলাই 27, 2017 - ফিরে আসছে সিটিসেল | বৃহস্পতিবার, জুলাই 27, 2017 - আসছে স্মার্ট রিং |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / এরিকসন কনজ্যুমার ল্যাবের দুই দশক
এরিকসন কনজ্যুমার ল্যাবের দুই দশক

এরিকসন কনজ্যুমার ল্যাবের দুই দশক

এরিকসন কনজ্যুমার ল্যাব প্রতিষ্ঠার ২০ বছর পেরিয়েছে। বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তিপণ্য প্রস্তুতকারক কোম্পানি এরিকসনের এ গবেষণা শাখা দুই দশক ধরে প্রযুক্তির উন্নয়নে কাজ করছে।

বিশ্বব্যাপী মোবাইল সেবায় সাধারণ মানুষের সমস্যা, সুবিধা, চাহিদাসহ নানা অভিজ্ঞতার উপর গবেষণা ও প্রযুক্তি উন্নয়নে ল্যাবটির কাজ গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে বিবেচিত হয়।

ইতিমধ্যে পৃথিবীর ৪০টি দেশে এবং ১৫টি মেগাসিটিতে সাধারণ মানুষকে সম্পৃক্ত করে পরিবর্তিত প্রযুক্তি ধারার উপর কার্যক্রম চালিয়েছে এই ল্যাব।

তথ্যপ্রযুক্তি পণ্য এবং এর সেবা নিয়ে সাধারণ মানুষের ভাবনার পাশাপাশি প্রযুক্তি আচরণ ও মূল্যবোধকে সম্পৃক্ত করে ১৯৯৫ সাল থেকে গবেষণা ও জরিপ পরিচালনা করে আসছে এরিকসন কনজ্যুমার ল্যাব।

দুই দশক পূর্তি উপলক্ষে রাজধানীর গুলশানে এরিকসনের প্রধান কার্যালয়ে সোমবার সংবাদ সম্মেলনে কনজ্যুমার ল্যাবের এক জরিপ প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়।

ericsson-1

মোবাইল গ্রাহকের প্রযুক্তি ব্যবহারের নানা গতিপ্রকৃতি নিয়ে করা এ জরিপ বিশ্লেষণ করেন এরিকসন কনজ্যুমার ল্যাবের দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের প্রধান আফরিজাল আব্দুল রহিম।

এসময় উপস্থিত ছিলেন এরিকসন বাংলাদেশের চিফ টেকনলোজি অফিসার আব্দুস সালাম ও হেড অব কমিউনিকেশনস মেহনাজ কবির ।

প্রতিবেদনে মোবাইলে সেবা নিতে মানুষের নিত্য নতুন চাহিদার ও আগ্রহের বিষয়টি উঠে আসে।

আফরিজাল বলেন, মানুষ প্রতিদিনের প্রয়োজনগুলো হাতের মুঠোয় চাইছে। যাপিত জীবনের সম্ভবপর কাজগুলো করতে মোবাইলকে সবচেয়ে উপযোগী ও স্বাচ্ছন্দ্যময় ডিভাইস ভাবছে।

এরিকসন কনজ্যুমার ল্যাবের দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের এই প্রধান বলেন, বাংলাদেশে মোবাইলে ভিডিও কনটেন্ট দেখার প্রবণতা বাড়ছে। এ বৃদ্ধি ধীর গতির হলেও স্মার্টফোন ব্যবহারের পাশাপাশি তা উল্লেখযোগ্য। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রে মোট মোবাইল ব্যবহারকারীর তিন ভাগের এক ভাগই ভিডিও কনটেন্ট দেখে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top