শিরোনাম

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - বাংলাদেশেই তৈরি হবে সকল ডিজিটাল ডিভাইস : মোস্তাফা জব্বার | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - যে কারণে অনলাইন অ্যাকাউন্টে কঠিন পাসওয়ার্ড দিবেন | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - ফিশিং জালিয়াতির শিকার হচ্ছেন জিমেইল ব্যবহারকারীরা | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - দেশের বাজারে লেনোভোর এইচডি ডিসপ্লের ল্যাপটপ | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - হিটাচি প্রজেক্টরে ম্যাজিক অফার | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - বাংলাদেশে ডি-লিংক কাস্টমার কেয়ার সেন্টারের অংশীদার কম্পিউটার সোর্স | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - অপ্পোর নতুন ২ স্মার্টফোনে গ্রামীণফোনের ফ্রি ইন্টারনেট | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - ওয়েস্টার্ন ডিজিটাল এর পার্টনার মিট | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - ইউটিউবের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ছে পর্নগ্রাফি ভিডিও | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - আসছে স্বল্প মূল্যের অ্যান্ড্রয়েড ওয়ান ফোন |
প্রথম পাতা / কর্পোরেট স্পেশাল / কি আছে ভারতের ২৫১ রুপির স্মার্টফোনে!
কি আছে ভারতের ২৫১ রুপির স্মার্টফোনে!

কি আছে ভারতের ২৫১ রুপির স্মার্টফোনে!

freedom-251ভারতীয় স্টার্টআপ কোম্পানি রিংগিং বেলস। প্রতিষ্ঠানটি অনেকের কাছেই অপরিচিত। কিন্তু তাতে কি? এরই মধ্যে দেশটির স্থানীয় বিভিন্ন পত্রিকায় ফ্রিডম ২৫১ স্মার্টফোনের ফুল পেজ বিজ্ঞাপন নজরে এসেছে অনেকেরই। হ্যাঁ, মাত্র ২৫১ রুপি মূল্যের ফ্রিডম স্মার্টফোনের নির্মাতা রিংগিং বেলস!

মোহিত গোয়েল রিংগিং বেলসের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও)। ভারতে ২৫১ রুপির স্মার্টফোন বিক্রির ঘোষণা দিয়ে এরই মধ্যে ব্যাপক কৌতূহল তৈরি করেছেন তিনি। প্রত্যেকেরই বিস্ময়, তরুণ এ উদ্যোক্তা পরিচালিত কোম্পানি কীভাবে এতটা সাশ্রয়ে স্মার্টফোন বিক্রি করতে যাচ্ছে!

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ফ্রিডম ২৫১ স্মার্টফোনের মূল্য ঘিরে তারা নিজেরাও কৌতূহলের মধ্যে রয়েছে। বিষয়টি খোলাসা করতে মোহিত গোয়েলের সঙ্গে কথা বলেছে এবং ফ্রিডম স্মার্টফোনের মূল্য ঘিরে বেশকিছু যৌক্তিক কারণ বের করার চেষ্টা চালিয়েছে।

প্রথমত. ২৫১ রুপির স্মার্টফোন! যৌক্তিক বিবেচনায় এটি প্রায় অসম্ভব। কারণ স্মার্টফোনের আনুষঙ্গিক যন্ত্রাংশ বেশ ব্যয়বহুল। তাহলে কি নির্মাণব্যয়ের চেয়ে কম মূল্যে এ স্মার্টফোন বিক্রি করা হচ্ছে? সাধারণ বোধ থেকে বলা যায়, কোনো কোম্পানিই কখনো গাঁটের অর্থ গচ্ছা দিয়ে ব্যবসা করবে না। অর্থাত্ এর মাঝেই রিংগিং বেলসের সিইও অর্থ কামানোর কোনো পন্থা বের করেছেন।

গোয়েল জানিয়েছেন, ফ্রিডম স্মার্টফোনের আনুষঙ্গিক যন্ত্রাংশ চীনের পরিবর্তে তাইওয়ান থেকে আমদানি করা হচ্ছে এবং তিনি তখনই মুনাফা করতে সমর্থ হবেন যখন স্মার্টফোনটির উত্পাদন বাড়াতে পারবেন। পাশাপাশি এ প্রকল্পে সরকারের সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।

মূল্য সমীকরণ বিষয়ে গোয়েল জানান, ফ্রিডম ফোনের প্রতি ইউনিট নির্মাণব্যয় পড়বে ২২০০-২৫০০ রুপি। এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে আমদানি শুল্ক, বিভিন্ন উপাদানের মূল্য এবং লাইসেন্স বাবদ ব্যয়।

রিংগিং বেলসের সিইওর মতে, স্থানীয়ভাবে প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশ উত্পাদনের মাধ্যমে স্মার্টফোনটির উত্পাদন মূল্য ১ হাজার ৩৪৯ রুপিয় নিয়ে আসা সম্ভব হবে। কারণ ভারত থেকে বিভিন্ন অনুষঙ্গ উত্পাদনের মাধ্যমে সরকারের শুল্কমুক্ত সুবিধা ভোগ করতে পারবে।

কিন্তু প্রশ্ন হলো— ফ্রিডম স্মার্টফোনের বিক্রীত মূল্য ও উত্পাদন মূল্যের মধ্যে সম্ভাব্য যে ৯০০ রুপির ব্যবধান, সেটা কোন উপায়ে পূরণ করতে যাচ্ছে?

Ringing-Bells-Freedom-251-Sমোহিত গোয়েল ও রিংগিং বেলসের আরেক প্রবর্তক অশোক চাধা দাবি করেন, এ ব্যবধান পূরণ সম্ভব হবে অর্থনীতির মাত্রা, স্বতন্ত্র বিপণন, অ্যাপ্লিকেশন বান্ডেলিং এবং কেন্দ্রীয় সরকার থেকে সম্ভাব্য বিনিয়োগ পাওয়ার মাধ্যমে।

রিংগিং বেলস সিইও বলেন, প্রথম ধাপে সরবরাহকৃত স্মার্টফোনের অর্থে পরবর্তীতে আরো ফ্রিডম ২৫১ স্মার্টফোন উত্পাদন করা হবে। অর্থাত্ যেসব ডিভাইস সরবরাহ করা হচ্ছে, সেখানে কোম্পানির জন্য কোনো মুনাফা নেই। রিংগিং বেলসের ভবিষ্যত্ তাহলে কী? গোয়েলের মতে, আমরা সরকারের কাছ থেকে বিনিয়োগ প্রত্যাশী। বিনিয়োগ সম্পন্ন হলে আমাদের প্রকল্প লাভজনক পর্যায়ে নেয়া সম্ভব হবে।

রিংগিং বেলস ফ্রিডম ২৫১ স্মার্টফোনের ঘোষণা দেয়ার পর পরই ২ লাখ ৫০ হাজার ইউনিট ডিভাইসের ক্রয়াদেশ পেয়েছিল। কিন্তু এখনো পর্যন্ত উল্লিখিত সংখ্যক ডিভাইস সরবরাহ করতে পারেনি কোম্পানিটি। এর কারণ হলো— উদ্যোক্তার হাতে পর্যাপ্ত রুপি না থাকা। প্রথম ধাপে, পাঁচ হাজার ডিভাইস সরবরাহের কথা থাকলেও ২ হাজার ২৪০টি ডিভাইস সরবরাহ করা হয়েছে। পরবর্তীতে ধাপে ধাপে ক্রয়াদেশ পাওয়া বাকি ডিভাইস সরবরাহের পরিকল্পনা রয়েছে। গোয়েল বলেন, কানেক্টেড ইন্ডিয়া ঘিরে তার যে স্বপ্ন, তা বাস্তবায়নে সরকারের সহযোগিতা প্রয়োজন।

অর্থ না থাকলে প্রথম ধাপে যেসব ডিভাইস সরবরাহ করা হয়েছে, সেগুলোর নির্মাণব্যয় এল কোথা থেকে? এ ধরনের প্রশ্নের উত্তরে গোয়েল বলেন, ফ্রিডম ফোনের অ্যাসেম্বলি অংশীদার ও পরিবেশকরা রিংগিং বেলসে বিনিয়োগ করেছেন।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top