শিরোনাম

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - যাত্রা শুরু করলো ওয়ালটনের কম্পিউটার কারখানা | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - নতুন স্মার্টফোন আনল হুয়াওয়ে অনার | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - স্বল্প মূল্যের গ্যালাক্সি সিরিজের ফোন ‘অন৭ প্রাইম’ | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - একত্রে কাজ করবে এটুআই এবং একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - ল্যাপটপের সঙ্গে রাউটার ফ্রি! | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - ‘অপো এশিয়ায় সর্বাধিক বিক্রীত স্মার্টফোন’ | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - চীনে চালু হচ্ছে গুগলের এআই ল্যাব | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - বৈদ্যুতিক গাড়িতে ১১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগে ফোর্ডের আগ্রহ প্রকাশ | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - উইন্ডোজ ৮.১ এর বিদায় | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - স্যামসাংকে টপকে গেলো অ্যাপল |
প্রথম পাতা / অফবিট / গুটিয়ে রাখা যাবে এই টেলিভিশন
গুটিয়ে রাখা যাবে এই টেলিভিশন

গুটিয়ে রাখা যাবে এই টেলিভিশন

tv
মানুষের সৌন্দর্য বোধের চেতনা অনেক প্রাচীন কিন্তু সভ্যতার বিকাশের সাথে সাথে রুচির পরিবর্তন হচ্ছে। মানুষের এই রুচির বিষয়টিকে প্রাধান্য দিয়ে নতুন নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবনের কাজে মনোনিবেশ করছে পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলোও। একটা সময় মানুষ টেলিভিশন বলতে চার কোনা বাক্সের ক্যাথোড রে টিউব (সিআরটি) প্রযুক্তির টেলিভিশনকেই বুঝতো। কিন্তু প্রযুক্তির উন্নয়নে আজকাল মানুষ এলসিডি এবং এলইডি টিভির প্রতি আগ্রহী হচ্ছে।
তবে প্রযুক্তি প্রেমীদের জন্য আরো বড় সুখবর নিয়ে এসেছে দক্ষিণ কোরিয়া ভিত্তিক প্রযুক্তি জায়ান্ট কোম্পানি লাকি গোল্ডমার্ক (এলজি)। প্রতিষ্ঠানটি এমন একটি টেলিভিশন তৈরি করেছে যেটির স্ক্রিন গুটিয়ে রাখা যাবে। গত বছর পরীক্ষামূলকভাবে ১৮ ইঞ্চি স্ক্রিনের ফোল্ডিং টেলিভিশনের নমুনা দেখিয়েছিল প্রতিষ্ঠানটি। তারই ধারাবাহিকতায় এবার লাস ভেগাসে কনজুমার ইলেকট্রনিক্সের বিশ্ব প্রদর্শনীতে ৬৫ ইঞ্চি স্ক্রিনের টেলিভিশনটি প্রদর্শন করেছে এলজি।
এলজির তৈরি ৬৫ ইঞ্চির এই বিশেষ টেলিভিশনটির স্ক্রিন ফোর-কে মানের। এইচডি-র চেয়েও চারগুণ উন্নত ফোর-কে স্ক্রিন। গত বছর লাস ভেগাসের কনজুমার ইলেকট্রনিক্সের প্রদর্শনীতে দেখানো ১৮ ইঞ্চি টেলিভিশনটির স্ক্রিন ছিল হাই-ডেফিনিশন (এইচডি) মানের। এলজি আগে এলসিডি এবং এলইডি প্রযুক্তি ব্যবহার করে টেলিভিশন তৈরি করলেও এখন থেকে তারা ও-এলইডি প্রযুক্তির দিকে ঝুঁকছে।
বিশেষ এই টেলিভিশনের আরো একটি বিশেষ সুবিধা হলো, টেলিভিশনে দেখানো যে কোন বস্তুর থেকে শব্দ হলে সেটি স্ক্রিনে দেখানো বস্তু যেখানে থাকবে সেখান থেকেই আসবে। যেমন কেউ কথা বলতে থাকলে তার মুখ স্ক্রিনের যেখানে থাকবে সেখান থেকে শব্দ আসবে, গাড়ির সংঘর্ষ হলে স্ক্রিনের যেখানে সংঘর্ষ হবে সেখান থেকে শব্দ আসবে। কোন পাখির শব্দ হলে পাখিটি স্ক্রিনের যে জায়গায় থাকবে সেখান থেকে আসবে শব্দ যা কিনা দর্শকের দর্শন অনুভূতির সাথে শ্রবণ অনুভূতির চমত্কার সমন্বয় ঘটাবে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top