শিরোনাম

সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - রোহিঙ্গাদের কাছে মোবাইল বিক্রি নিষিদ্ধ করেছে সরকার | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - ডাটা খরচ কমাতে আসছে টুইটারের নতুন সংস্করণ | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - লন্ডনে লাইসেন্স বাঁচানোর চেষ্টায় উবার | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - ড্রোন যখন কৃষকের বন্ধু | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - আইফোন ৮ এর ভেতরে যা দেখা গেল | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - ডি-লিংক এর স্পেশাল অফার | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - রংতা ব্র্যান্ডের নতুন পিওএস প্রিন্টার | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - নারীর নিরাপত্তা ও শরনার্থীদের শিক্ষা বিষয়ক ধারণা যাচ্ছে ওসলোর টেলিনর ইয়ুথ ফোরামে | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - উদ্বোধনের অপেক্ষায় শেখ হাসিনা সফটওয়্যার পার্ক | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - আপনারই কিছু ভুল হয়তো অজান্তে ফোনের পারফরম্যান্স খারাপ করছে |
প্রথম পাতা / স্থানীয় খবর / ‘গ্যাজেট অ্যান্ড গিয়ারে’ অবৈধ মোবাইল সেট
‘গ্যাজেট অ্যান্ড গিয়ারে’ অবৈধ মোবাইল সেট

‘গ্যাজেট অ্যান্ড গিয়ারে’ অবৈধ মোবাইল সেট

বিশ্বের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠিত ব্র্যান্ডের প্রায় দেড় কোটি টাকার চার শতাধিক অবৈধ মোবাইল জব্দ করার পর ফেসবুক পেজ এবং ওয়েবসাইট বন্ধ করে দিয়েছে গেজেট অ্যান্ড গিয়ার। অবৈধভাবে মোবাইল বিক্রির দায়ে এ পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। বৃহস্পতিবার বিকেল চারটায় অনলাইনে প্রতিষ্ঠানটির ই-শপ ভিজিট করে এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গেছে। 

gadget-and-gear

বৃহস্পতিবার দুপুরে গ্যাজেট অ্যান্ড গিয়ার এর দুটি শোরুম থেকে এগুলো উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার হওয়া মোবাইল ফোনগুলোর মধ্যে স্যামসাং, নকিয়া, সনি ও মটরোলা ব্র্যান্ডের মোবাইল ফোন রয়েছে।

অভিযান শেষে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ জানিয়েছে, বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিটির (বিটিআরসি) অনুমোদন সংক্রান্ত কাগজপত্র ছাড়াই বিনা শুল্কে এ হ্যান্ডসেটগুলো আমদানি করা হয়। মালিক কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে কাগজপত্র দেখাতে পারেনি।

তবে গ্যাজেট অ্যান্ড গিয়ারে আমদানি করা এ ফোনগুলো বৈধ বলে দাবি করেছে। প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা অংশীদার নূরে আলম জানান, আটক হওয়া তাদের পণ্যগুলির আইনগত সব ডকুমেন্ট রয়েছে। এগুলো আটকের সময় তাৎক্ষণিকভাবে ডকমেন্টগুলো দেখানো যায়নি। পরে বৈধতার কাগজপত্র দেখানোর পরে কর্তৃপক্ষ পরবর্তী কর্মদিবসে তা যাচাইবাছাই কবে দেখবে বলেও জানান তিনি।

তিনি দাবি করেন, তাদের ব্যবসায়িক সুনাম দীর্ঘদিনের। তাই এমন অবৈধকাজ করতে পারে না বলে দাবী করেন নূরে আলম।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. মইনুল খান সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, এসব ফোনের আইএমই নম্বর নেই। নিরাপত্তার দিক থেকে এসব মোবাইল ফোন ব্যবহার ঝুঁকিপূর্ণ।

তিনি জানান, ফোনগুলো ঢাকা কাস্টমস বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ জন্য গ্যাজেট অ্যান্ড গিয়ারের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top