শিরোনাম

মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের ডিজিটাল পেমেন্ট সার্ভিস ইউপের যাত্রা শুরু | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - হুয়াওয়ে মেট ১০ এ যা আছে | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - শাওমির নতুন ফোন রেডমি ৫এ | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - ফাঁস হয়ে গেল নোকিয়া ৯ এর গোপন সমস্ত তথ্য | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - হ্যাকারদের লক্ষ্য বাংলাদেশসহ অন্যান্য এশিয়ার দেশগুলোর ব্যাংকগুলো | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - এডিএন ইডু সার্ভিসেস এর উদ্দেগে এজাইল বিষয়ক কর্মশলা অনুষ্ঠিত | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - প্রথম ডিজিটাল মার্কেটিং অ্যাওয়ার্ডসে গ্রামীণফোনের ব্যাপক সাফল্য | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - গুগলের এই এয়ারপড হেডফোন যখন ট্রান্সলেটর | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - কম্পিউটার গেমের আসক্তিতে হতে পারে ভয়াবহ পরিণতি | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - ওটিসি ড্রাগ বিষয়ে সচেতনতা জরুরি |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / ফিচার পোস্ট / ‘গ্রীন অফিস’ স্বীকৃতি পেল বাংলালিংক
‘গ্রীন অফিস’ স্বীকৃতি পেল বাংলালিংক

‘গ্রীন অফিস’ স্বীকৃতি পেল বাংলালিংক

green-officeদেশের অন্যতম শীর্ষ ডিজিটাল সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান বাংলালিংক, ওয়ার্ল্ড ওয়াইল্ডলাইফ ফান্ড ফর নেচার (ডব্লিউডব্লিউএফ)-এর সম্মানজনক ‘গ্রীন অফিস’ স্বীকৃতি অর্জন করেছে। ঢাকায় অবস্থিত বাংলালিংকের প্রধান কার্যালয় টাইগার্স ডেন, দেশের প্রথম অফিস যা গ্রীন অফিস স্বীকৃতি পেল।

(ডব্লিউডব্লিউএফ) একটি আন্তর্জাতিক সংস্থা যা বন সংরক্ষণ এবং পরিবেশের ওপর মানুষের বিরূপ প্রভাব কমাতে কাজ করে। গ্রীন অফিস হচ্ছে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পরিবেশবান্ধব অফিস ব্যবস্থাপনা নিয়ে কাজ করার আওতায় একটি উদ্যোগ।

গ্রাহকদের সেরা পণ্য এবং উচ্চতর সেবা দিতে বাংলালিংক সবসময় পরিবেশবান্ধব নীতি অবলম্বন করে আসছে। গ্রীন অফিস ব্যবস্থাপনা তারই একটি অংশ। এটি কার্বনডাইঅক্সাইড নির্গমন কমানোর মধ্য দিয়ে বাংলালিংকের সম্পদ সমূহর প্রয়োগকে আরও দক্ষ করে তুলেছে এবং পরিবেশবান্ধব কর্মস্থল বজায় রেখেছে। প্রতিষ্ঠানটির গ্রীন অফিস প্রক্রিয়ার একটি অংশ হিসেবে ‘Open Office’ পরিবেশ বজায় রেখে আসছে।

গত বছর ‘গোয়িং ডিজিটাল’ মূলমন্ত্র ঘোষণা করার পর থেকে এটি তার ব্যবসায়িক প্রক্রিয়াকে কাগজের ব্যবহার থেকে অনলাইনে রূপান্তর করেছে। কাগজবিহীন কার্যক্রম নিশ্চিত করার জন্যে এটি ২০১৬ সালে কাগজের ব্যবহার ৪৪% কমিয়ে এনেছে এবং ১৯% অপচয় রোধ করেছে। রিসাইকেল অথবা পুনরায় ব্যবহারযোগ্য ষ্টেশনারী দ্রব্যাদি ব্যবহার করার পাশাপাশি এটি একবার ব্যবহার করা যায়, এমন জিনিসের ব্যবহারও ৭৫% কমিয়ে এনেছে। এর দক্ষ বিদ্যুৎ এবং যানবাহন ব্যবস্থাপনা প্রক্রিয়া রয়েছে। এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বাংলালিংক সম্পদের সর্বোত্তম ব্যবহার করে আসছে যা এটিকে দেশের অন্য যেকোনো প্রতিষ্ঠানের তুলনায় অদ্বিতীয় স্থানে রেখেছে।

গ্রীন অফিস স্বীকৃতি বাংলালিংকের ডিজিটালাইজেশন-এর ক্ষেত্রে আরও এগিয়ে নিয়ে যাবে এবং আগামী দিনগুলোতে তা বজায় রাখতে সহায়তা করবে।

বাংলালিংকের সিইও এরিক অস বলেন, ‘ডব্লিউডব্লিউএফ-এর গ্রীন অফিস স্বীকৃতি লাভ করতে পেরে আমরা সত্যিই আনন্দিত ও গর্বিত। আমাদের কর্মীরা দিনের একটি গুরুত্বপূর্ণ সময় বাংলালিংকে কাটায়, অতএব একটি স্বাস্থ্যকর এবং পরিবেশবান্ধব কর্মস্থল নিশ্চিত করা আমাদের দায়িত্ব। এটি অত্যন্ত আনন্দের ব্যাপার যে, আমাদের পরিবেশবান্ধব অফিস নিশ্চিত করার প্রচেষ্টাকে ডব্লিউডব্লিউএফ স্বীকৃতি দিয়েছে। এটি আমাদের দারুণ উৎসাহিত করেছে যা দেশের অন্যান্য প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য একটি দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।’

ডব্লিউডব্লিউএফ-এর পরিবেশ মূল্যায়ন ব্যবস্থাপক নাজিফা বাট বলেন, ‘আমরা বাংলালিংকের এই অর্জনকে অভিনন্দন জানাই এবং দেশের প্রথম গ্রীন অফিস হিসেবে তাদের স্বীকৃতি জানাতে পেরে আমরা আনন্দিত। আমাদের লক্ষ্য কার্বনডাইঅক্সাইড নির্গমন কমানো এবং পরিবেশবান্ধব কর্মস্থল নিশ্চিত করা। বাংলালিংক তা সঠিকভাবে বজায় রাখে এবং এর ফলে তা গ্রীন অফিসের স্বীকৃতি অর্জন করেছে। আমি অন্যান্য প্রতিষ্ঠানগুলোকেও এই উদ্যোগ গ্রহণের জন্য উৎসাহিত করতে চাই।’

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top