শিরোনাম

মঙ্গলবার, মার্চ 28, 2017 - সিটিআইটি ফেয়ার-২০১৭ কম্পিউটার মেলা শুরু বৃহস্পতিবার | মঙ্গলবার, মার্চ 28, 2017 - চালু হল ঘড়ি বিক্রয়ের ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান টাকশাল | মঙ্গলবার, মার্চ 28, 2017 - আরও দ্রুত ডাউনলোড অপেরা মিনিতে | মঙ্গলবার, মার্চ 28, 2017 - স্মার্ট স্টুডেন্টস অ্যাপ বানালো ডিআইইউ’র শিক্ষার্থীরা | মঙ্গলবার, মার্চ 28, 2017 - সিইবিআইটি মেলায় ডিজিটাল রূপান্তরের অংশীদার হুয়াওয়ে | মঙ্গলবার, মার্চ 28, 2017 - বাংলাদেশে উন্মুক্ত হলো অপো সেলফি এক্সপার্ট এফ৩ প্লাস | শনিবার, মার্চ 25, 2017 - ঢাকায় রোজেন বারগার টেকনোলজিষ্টের পার্টনার্স নাইট | বৃহস্পতিবার, মার্চ 23, 2017 - উভয় পাশ স্ক্যান সুবিধার স্ক্যানার আনলো ইপসন | বৃহস্পতিবার, মার্চ 23, 2017 - প্রপার্টি ভাড়া ও কেনা-বেচায় বিপ্রপার্টি ডটকম | বুধবার, মার্চ 22, 2017 - স্বল্পমূল্যের ল্যাপটপ কিনতে সাবধান ! |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / ফিচার পোস্ট / বাংলাদেশে কর্মী ছাঁটাই করছে কেইমু
বাংলাদেশে কর্মী ছাঁটাই করছে কেইমু

বাংলাদেশে কর্মী ছাঁটাই করছে কেইমু

kaymu-close-corporate

জাম্বিয়ার পর এবার বাংলাদেশে বন্ধ হচ্ছে কেইমু ডটকম । আন্তর্জাতিক মার্কেটপ্লেস ইবে ডটকম  এর ক্লোন করা  রকেট ইন্টারনেট এর ই-কর্মাস প্রতিষ্ঠান কেইমু ডটকম বাংলাদেশে কর্মী সংখ্যা কমিয়ে অর্ধেকে নামিয়ে এনেছে।

শুধু কর্মী ছাঁটাই নয়, প্রতিষ্ঠানটির কয়েকটি বিভাগও বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। আর অভ্যন্তরীণ এমন অস্থিরতা নিয়েই দেশে ব্যবসার তৃতীয় বছর শুরু করতে যাচ্ছে রকেট ইন্টারনেটের ভেঞ্চার কেইমু ডটকম ডটবিডি।

নভেম্বর মাস থেকে এই ছাঁটাই শুরু হচ্ছে। ওই মাসেই বাংলাদেশে কাজ শুরু করার তৃতীয় বর্ষপূর্তি হবে মার্কেটপ্লেসটির।

কেইমুর ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর (ডিএমডি) জুলকারনাইন জানিয়েছেন, প্রয়োজন ফুরিয়ে যাওয়া ও কোম্পানিকে ঢেলে সাজাতে (রি-স্ট্রাকচার) এই কর্মী ছাঁটাই।

তিনি বলেন, আমরা এটাকে কর্মী ছাঁটাই বলবো না। আসলে কেইমুকে ঢেলে সাজাতে কিছু বিভাগ এখন অপ্রয়োজনীয় হয়ে পড়েছে। সেসব বিভাগ বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে।

কেইমুর এই ডিএমডি জানান, শুরুর দিকে কেইমুতে সেলার (মার্কেটপ্লেসে বিজ্ঞাপন দিয়ে পণ্য বিক্রেতা) পেতে বেশকিছু কর্মী কাজ করতো। এখন তাদের আর প্রয়োজন নেই। কারণ বর্তমানে কেইমুতে প্রায় দশ হাজার সেলার তাদের পণ্য বিক্রি করেন।

প্রায় ৭০ জন কর্মী নিয়ে ২০১৩ সালে বাংলাদেশে ই-কমার্স মার্কেটপ্লেস হিসেবে কাজ শুরু করে কেইমু।

এদিকে এসব বিভাগ বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগেই অনেক কর্মী স্বেচ্ছায় কাজ ছেড়ে দিয়েছেন। তবে যারা ছাড়েননি গত বৃহস্পতিবার ও রোববার কোম্পানির পক্ষ থেকে তাদের কাজের সময়সীমা জানিয়ে দেয়া হয়। এই কর্মীরা নভেম্বরের ৩০ তারিখ পর্যন্ত কাজে বহাল থাকবেন।

ঠিক কতজন কর্মী ছাঁটাই করছে তার সঠিক হিসাব আনুষ্ঠানিকভাবে কেইমু কর্তৃপক্ষ না জানালেও এই সংখ্যা প্রায় ৩০ জন বা তার অধিক হতে পারে বলে জানা গেছে।

মার্কেটপ্লেসটিতে এখন প্রায় এক লাখ ইলেকট্রনিক্স গ্যাজেট, পোশাক, ব্যাগ, হোম যন্ত্রপাতি, কম্পিউটার, স্মার্টফোন, গিফট আইটেমসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য রয়েছে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top