শিরোনাম

মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - বাজারে এলো শাওমির নতুন দুই ফোন | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - বিশ্ব বিখ্যাত পাঁচ রাঁধুনি রোবট | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - সনি’র দুর্দান্ত এক আপকামিং ফোনের তথ্য ফাঁস | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - বিসিএস এর ২৬তম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - ‘জিপি লাউঞ্জ’ উদ্বোধন করল গ্রামীণফোন | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - ল্যাপটপ মেলায় আই লাইফের ফ্রী গিফট! | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - শপ আপের নতুন অ্যাড প্ল্যাটফর্মের উদ্বোধন ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - গ্লোবাল ব্র্যান্ড নিয়ে এলো এস সিরিজের নতুন অষ্টম প্রজন্মের নোটবুক | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - অ্যান্ড্রয়েডে আসছে আইফোনের জনপ্রিয় গেম | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - জিপি ওয়াওবক্স ব্যবহারকারীদের জন্য বিশেষ সুবিধা আনল পাঠাও |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / ফিচার পোস্ট / টেলিযোগাযোগের নতুন নীতিমালা চায় এমটব
টেলিযোগাযোগের নতুন নীতিমালা চায় এমটব

টেলিযোগাযোগের নতুন নীতিমালা চায় এমটব

আন্তর্জাতিক নীতিমালা প্রনয়ণ না করলে দেশের টেলিযোগাযোগ খাত হুমকির মুখে পড়বে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন  খাত সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ কর্মকর্তারা।  তাই ১৬ বছর আগে করা নীতিমালাকে ঢেলে সাজিয়ে নতুন টেলিযোগাযোগ নীতিমালা চান তারা।

রবিবার রাজধানীর সোনারগাও হোটেলে টেলিযোগাযোগ সংশ্লিষ্ট এক কর্মশালায়  বক্তারা এমন কথা বলেন।  টেলিকম প্রতিষ্ঠানগুলোর আন্তর্জাতিক সংগঠন জিএসএমএ ও বাংলাদেশে মোবাইল কোম্পানিগুলোর  প্রতিষ্ঠান অ্যামটব  যৌথভাবে ওই কর্মশালা আয়োজন করে।

কর্মশালায় জিএসএমএ এশিয়ার আঞ্চলিক প্রধান আইরিন ইং বলেন, বাংলাদেশের সামগ্রিক উন্নয়নে টেলিযোগাযোগ খাতের অবদান অনেক। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো মোবাইল ফোনের কার্যকারিতার যথাযথ ব্যবহারে একটি অবকাঠামো তৈরি করা প্রয়োজন। আর এ কাঠামো তৈরি করতে গেলে আইন ও নীতিগত পরিবর্তন খুবই দরকার।

কর্মশালায় টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী এ খাতের উপর আরো নজর দেওয়া হবে এমন আশ্বাস দিয়ে জানান, এ খাতকে এগিয়ে নিতে প্রয়োজনীয় সবই করবে সরকার।

amtob 2014

বাংলাদেশের টেলিযোগাযোগ খাতের সমস্যা ও সম্ভাবনার কথা তুলে ধরে বক্তারা বলেন বর্তমান যুগের সাথে কাঠামোগত ও আইনগত  ভাবে অনেক পিছিয়ে আছে বাংলাদেশ।
বক্তারা আরো বলেন,  ১৯৯৮ সালের ওই নীতিমালাটি ভয়েসকল এবং এসএমএস সার্ভিসকে ঘিরে তৈরি  ছিলো। কিন্তু এখন ইন্টারনেটের মাধ্যমে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, ব্যবসা, তথ্য, বিনোদনসহ নানামূখী সেবা যুক্ত হয়েছে। তাছাড়া বর্তমানে দেশের ৫০ শতাংশ নাগরিক এখন মোবাইল ব্যবহার করে। তাই দ্রুত নতুন নীতিমালা তৈরি করা প্রয়োজন।
এ ব্যাপারে অ্যামটবের মহাসচিব টি আই এম নুরুল কবীর বলেন, বিভিন্ন রকম করের বোঝা চাপিয়ে এ খাতকে স্থবির করে রেখেছে সরকার। যা আন্তর্জাতিক নীতিমালার সাথে মানানসই নয়। তাই এ বিষয়ে নীতিমালা প্রনয়ণে দ্বিপাক্ষিক আলোচনার দাবী করেন তিনি। এমনকি অপারেটরগুলোকে দমিয়ে না রেখে ব্যবসায়িক স্বাধীনতা দিতেও সরকারের কাছে অহবান জানান তিনি।
কর্মশালায় আরো উপস্থিত ছিলেন, বিটিআরসির চেয়ারম্যান সুনীল কান্তি বোস, টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব ফয়জুর রহমান চৌধুরী, অতিরিক্ত সচিব হুসনুল মাহমুদ খান, বেসিসের সভাপতি শামীম আহসান, গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিবেক সুদ, বাংলালিংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জিয়াদ সাতারা, রবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সুপন বীরাসিংহে, টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গিয়াস উদ্দিন আহমেদ, এয়ারটেলের প্রধান পরিচালনা কর্মকর্তা রজনীশ কাউলসহ আরো অনেকে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top