শিরোনাম

বুধবার, ডিসেম্বর 13, 2017 - পোক ফিচারটি ফিরিয়ে আনছে ফেসবুক | বুধবার, ডিসেম্বর 13, 2017 - গ্রামীণফোনের প্যানেল আলোচনায় ডিজিটাল চট্টগ্রামের রূপরেখা | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - দেশের সবচেয়ে বড় গেমিং প্লাটফর্ম ‘মাইপ্লে’ চালু করলো রবি | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - রাজধানীতে টেকনোর আরও নতুন দুইটি ব্র্যান্ড শপের শুভ উদ্বোধন | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - বৃহস্পতিবার থেকে রাজধানীতে ল্যাপটপ মেলা | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - মোবাইল ইন্টারনেট গতিতে বাংলাদেশের অবস্থান ১২০তম | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - জরুরি সেবা ৯৯৯ এর উদ্বোধন করলেন জয় | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - নতুন অ্যাপ ‘ফাইলস গো’ চালু করেছে গুগল | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - বাজারে এলো শাওমির নতুন দুই ফোন | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - বিশ্ব বিখ্যাত পাঁচ রাঁধুনি রোবট |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / ফিচার পোস্ট / তথ্যপ্রযুক্তিতে ২০২১ পর্যন্ত কর অবকাশ সুবিধা-বহাল থাকবে ভ্যাট
তথ্যপ্রযুক্তিতে ২০২১ পর্যন্ত কর অবকাশ সুবিধা-বহাল থাকবে ভ্যাট

তথ্যপ্রযুক্তিতে ২০২১ পর্যন্ত কর অবকাশ সুবিধা-বহাল থাকবে ভ্যাট

budget-vat

“কিন্তু ভ্যাটের জন্য খুব ভালো একটা আইন করা হয়েছে। কোনো খাতই ভ্যাট মওকুফ সুবিধা পাবে না।“

 ইতোমধ্যেই সফটওয়্যার রপ্তানিকারকদের সংগঠন বেসিস এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল শিক্ষার্থীদের ব্যবহৃত ইন্টারনেট ও ই-কমার্সের জন্য ভ্যাটের হারে ছাড়ের দাবি করেছে।

 পুরো ভ্যাট মাফ করা না গেলেও কিছুটা ছাড় দিলে শিক্ষার্থী ও ব্যবসায়ীরা উপকৃত হবেন বলে মন্তব্য করেছেন বেসিসের সভাপতি শামীম আহসান।

অর্থমন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় ডাক ও টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী, প্রধানমন্ত্রীর পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা গওহর রিজভী,বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান,তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক,বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু, এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য জামিলুর রেজা চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মুহিত বলেন, “দেশকে এগিয়ে নেওয়ার পাশাপাশি দুর্নীতি বন্ধ করতে তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের উন্নয়ন দরকার।“

তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের উন্নয়ন হচ্ছে উল্লেখ করে গওহর রিজভী বলেন, “আরো এগোতে হবে। লেনদেন করার জন্য তথ্য ও প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়াতে হবে। যা এখনও কাঙ্ক্ষিত পর্যায়ে যায়নি।

জামিলুর রেজা চৌধুরী ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড কনারেন্সে বিশ্বের বিখ্যাত আইটি ব্যক্তিত্বদের হাজির করা বা তাদের টেলিকনারেন্স করানোর পরামর্শ দেন।

প্রতিমন্ত্রী পলক বলেন, “গত ৫ বছরে দেশে তথ্য-প্রযুক্তি খাতের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। আগে বাংলাদেশ থেকে মেধা পাচার হত, যেটা এখন বিদেশ থেকে বাংলাদেশে আসছে।“সিলিকন ভ্যালি থেকে অনেকে বাংলাদেশে এসে স্যামসাংয়ের গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগে যোগ দিচ্ছে। ফেসবুক বাংলাদেশে সার্ভার বসাতে চাচ্ছে। এক কথায় বিশ্বের পরবর্তী আইটি ডেসটিনেশন হবে বাংলাদেশ।“এই ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড কনফারেন্স আয়োজনের মাধ্যমে বাংলাদেশ এক্ষেত্রে এক ধাপ এগিয়ে যাবে বলে মনে করেন প্রতিমন্ত্রী।

আগামী ৪ থেকে ৭ জুন রাজধানির আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড-২০১৪’ কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হবে।চারদিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানটি আয়োজন করছে বেসিস ও বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিএস)।অনুষ্ঠানটি আয়োজনে অর্থমন্ত্রণালয় ৭ কোটি ২৪ লাখ ২২ হাজার টাকা বরাদ্দ দিয়েছে।এই কনফারেন্সে ই-গভর্নেন্স, ই-লার্নিং, আউটসোর্সিং, ক্লাউড কম্পিউটিংসহ ৭টি গুরুত্বপূর্ন বিষয়ে সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। এসব সেমিনারে দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞরা বক্তব্য দিবেন।এই অনুষ্ঠানে দেশের আইটি খাতের অর্জিত সাফল্য তুলে ধরা হবে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top