শিরোনাম

সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - রংতা ব্র্যান্ডের নতুন পিওএস প্রিন্টার | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - নারীর নিরাপত্তা ও শরনার্থীদের শিক্ষা বিষয়ক ধারণা যাচ্ছে ওসলোর টেলিনর ইয়ুথ ফোরামে | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - উদ্বোধনের অপেক্ষায় শেখ হাসিনা সফটওয়্যার পার্ক | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - আপনারই কিছু ভুল হয়তো অজান্তে ফোনের পারফরম্যান্স খারাপ করছে | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - খুলনায় দুইদিনের বেসিক আরডুইনো কর্মশালা অনুষ্ঠিত | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - ঢাকা মহিলা পলিটেকনিককে স্যামসাং এর পক্ষ থেকে অত্যাধুনিক ল্যাব হস্তান্তর  | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - সিডস্টারস ঢাকায় দেশের সেরা স্টার্টআপ সিমেড হেলথ | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - অ্যান্ড্রয়েড ফোনকে মডেম হিসেবে ব্যবহারের উপায় | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - আসছে নকিয়ার আরও দুই ফোন | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - ফেসবুকের পাঁচ মজাদার অপশন যা জানেন না অনেকেই |
তথ্য থাকবে এসএসডি-তে

তথ্য থাকবে এসএসডি-তে

হার্ডডিস্কের কি দিন গিয়াছে? ফ্লপি ডিস্কের মতো সেও কি চলে যাবে অবলুপ্তির পথে?প্রযুক্তির জগতে অবলুপ্তি নতুন কিছু নয়।আজ যা নতুন, কয়েক সেকেন্ড পরে তা পরিত্যক্ত। এই তো, কিছু দিন আগেও পিসি বা ল্যাপটপ নেওয়ার আগে মাদারবোর্ড, প্রসেসর, র‍্যাম, অপারেটিং সিস্টেমের পাশাপাশি হার্ডডিস্ক-এর কথা জিজ্ঞাসা করতাম। এখনও ছবিটি কিন্তু কিছুটা বদলেছে। কেউ কেউ জিজ্ঞাসা করছেন এসএসডি আছে? কত সাইজ?

ssd-drives

কী এই এসএসডি? এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার আগে হার্ডডিস্ক সম্বন্ধে দু’-চার কথা বলা জরুরি।

সেই যবে থেকে আমাদের টেবিলে পিসি এল, কোলে উঠল ল্যাপটপ, তবে থেকেই হার্ডডিস্ক আমাদের ই-তথ্যের বিশ্বস্ত ভাণ্ডার। ফ্লপি ডিস্কের এমবি জায়গা থেকে জিবি জায়গায় আমাদের নিয়ে গিয়েছিল হার্ডডিস্ক।  তার পরে দিন বদলেছে। ৪০জিবি থেকে ১২০ জিবি। ৫০০ জিবি থেকে ১ টিবি। ক্রমেই বেড়ে চলেছে হার্ডডিস্কের জায়গা। এখন চার টিবির হার্ডডিস্কও পাওয়া যায়। আগে আসত ‘পাটা’ প্রযুক্তির হার্ডডিস্ক। পিসি অ্যাসেম্বেল করার সময়ে হার্ডডিস্ক লাগাতে অনেক সমস্যা হত। তার পরে সাটা (সিরিয়াল এটিও) প্রযুক্তি এল। এই সময়ের অপারেটিং সিস্টেমে সহজে হার্ডডিস্ক জোড়া যায়। আলাদা কোনও সফটওয়্যার লাগে না।

তবে হার্ডডিস্কের প্রযুক্তি কিন্তু প্রায় একই থেকে গিয়েছে। একের পর এক সাজানো ম্যাগনেটিক প্লেট একটি কেন্দ্রের উপরে দ্রুত ঘুরতে থাকে। আর একটি রিড-রাইট হেড তার উপরে নানা জায়গায় গিয়ে তথ্য লেখে বা পড়ে। এখন হার্ডডিস্ক থেকে সেকেন্ডে ২০০এমবি গতিতে তথ্য পড়া যায়। হার্ডডিস্কের সাড়া দিতে সময় লাগে ৮ মিলিসেকেন্ডেরও কম। যত দ্রুত হার্ডডিস্কের প্লেট ঘুরবে তত দ্রুত তথ্য পড়া যাবে। তাই ৭২০০ আরপিএমের হার্ডডিস্ক ৫৪০০ আরপিএমের হার্ডডিস্ক থেকে দ্রুত চলে।

তবে সবচেয়ে দ্রুত হার্ডডিস্কও কিন্তু সলিড স্টেট ড্রাইভ-এর (এসএসডি) থেকে অনেক পিছিয়ে। হার্ডডিস্কের সঙ্গে এসএসডির মূল পার্থক্য হল- এতে কোনও ম্যাগনেটিক প্লেট নেই। নেই কোনও রিড-রাইট হেডও। তার বদলে রয়েছে ন্যাড ফ্ল্যাশ মেমোরি। অনেকটা পেন ড্রাইভের মতো। ভিতরে কোনও চলমান অংশ না থাকায় এসএসডি স্থায়ীত্ব হার্ডডিস্কের থেকে অনেক বেশি। পড়ে গিয়ে ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কা অনেক কম। কয়েকটি জায়গায় অবশ্য এসএসডি-র সঙ্গে হার্ডডিস্কের অনেক মিল রয়েছে। যেমন এসএসডিও সাটা-র মাধ্যমে মাদার বোর্ডের সঙ্গে যুক্ত হয়। যদিও পিসিআই সংযোগের এসএসডিও পাওয়া যায়। এসএসডি থেকে হার্ডডিস্কের দ্বিগুণেরও বেশি গতিতে, ৫৫০এমবি-র প্রতি সেকেন্ডের গতিতে তথ্য পড়া যায়, আর এসএসডি সাড়া দিতে মিলিসেকেন্ডের ভগ্নাংশ সময় নেয়। প্রচুর তথ্য কম সময়ে সেভ করা যায়। পিসি বা ল্যাপটপের সিস্টেম ফাইলগুলি খুব দ্রুত পাওয়া যায় বলে বুট হয় চোখের নিমেষে।

তবে এখনই হার্ডডিস্ক বিদায় নিচ্ছে না। এর কতগুলি কারণ আছে।

এখনও এসএসডি-র খরচ হার্ডডিস্কের থেকে অনেকটাই বেশি। এসএসডি-র প্রতি গিগাবাইটের দাম পড়ে .৭০ ডলার থেকে ১ ডলারের মধ্যে। কিন্তু হার্ডডিস্কের প্রতি গিগাবাইটের দাম কয়েক সেন্টের বেশি নয়। হার্ডডিস্কের থেকে এসএসডি-তে অনেক কম জায়গা পাওয়া যাচ্ছে। ২৫৬ জিবির থেকে বেশি এসএসডি সাধারণের আয়ত্তের বাইরে।

তা ছাড়া মরার আগে হার্ডডিস্ক অনেক সঙ্কেত দেয়। ফলে আগে থেকে কিছু ব্যবস্থা নেওয়া যায়। কিন্তু এসএসডি না-জানান দিয়েই শহিদ হয়। তাই এসএসডি নেওয়ার আগে এগুলি মনে রাখা দরকার।

তবে এখন হার্ডডিস্ক আর এসএসডিকে মিলিয়ে নানা ধরনের হাইব্রিড ড্রাইভ পাওয়া যায়। এতে হার্ডডিস্কের সঙ্গেই অল্প জায়গার এসএসডি জোড়া থাকে। কম্পিউটারের সিস্টেম ফাইলগুলি এসএসডি-তে থাকে। ফলে কম্পিউটারের গতি যায় বেড়ে। বাকি তথ্য হার্ডডিস্কে জমা হতে থাকে। এর খরচও এসএসডির থেকে কম।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top