শিরোনাম

বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর 21, 2017 - গাড়ি চালাতে এবার থেকে আর কোনও চাবির প্রয়োজন নেই! | বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর 21, 2017 - বিজয়ী কাস্টমারদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে সিম্ফনি ঈদ অফার | বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর 21, 2017 - বিশ্বব্যাপী সাইবার হামলায় ৬ মাসেই ক্ষতি ৪০০ কোটি ডলার | বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর 21, 2017 - এইচটিসি স্মার্টফোন ব্যবসা কিনতে গুগলকে গুনতে হবে ১১০ কোটি ডলার | বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর 21, 2017 - টাকা না পেলে টেলিটক মারা যাবে : ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী | বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর 21, 2017 - ইউনিক বিজনেস সিস্টেমস লিমিটেড পরিদর্শনে হিটাচি এক্সক্লুসিভ টিম | বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর 21, 2017 - ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী’র ‘অ্যাসোসিও ডিজিটাল গভর্নমেন্ট অ্যাওয়ার্ড’ গ্রহণ | বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর 21, 2017 - চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এয়ারটেল’র ‘ইয়োলো ফেস্ট’ | বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর 21, 2017 - প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তায় নতুন দেশি অ্যাপ | বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর 21, 2017 - ড্যাফোডিলে ‘সমন্বিত শিক্ষণ পদ্ধতিতে গুগল ক্লাসরুমের ব্যবহার’ শীর্ষক লেকচার সেমিনার অনুষ্ঠিত |
প্রথম পাতা / কর্পোরেট স্পেশাল / থ্রিজিতে শুভঙ্করের ফাঁকি-ব্রডব্যান্ডের কথা বলে দেয়া হচ্ছে ন্যারোব্যান্ডের ইন্টারনেট
থ্রিজিতে শুভঙ্করের ফাঁকি-ব্রডব্যান্ডের কথা বলে দেয়া হচ্ছে ন্যারোব্যান্ডের ইন্টারনেট

থ্রিজিতে শুভঙ্করের ফাঁকি-ব্রডব্যান্ডের কথা বলে দেয়া হচ্ছে ন্যারোব্যান্ডের ইন্টারনেট

হিটলার এ. হালিম:খরচ বেড়ে যাওয়ার দোহাই দিয়ে ব্রডব্যান্ড (উচ্চগতি) ইন্টারনেটের পাশাপাশি ন্যারোব্যান্ডের ইন্টারনেট সেবার প্যাকেজ বাজারে ছেড়েছে মোবাইলফোন অপারেটররা। থ্রিজি সেবার নামে অনুমোদন দেয়া এই প্যাকেজ নিয়ে এরই মধ্যে টেলিযোগাযোগ খাতে সমালোচনার ঝড় বইছে।

বলা হচ্ছে, থ্রিজি মানেই ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা। জাতীয় ব্রডব্যান্ড নীতিমালা, ২০০৯ এর অনুচ্ছেদ-২-এ উল্লেখিত ব্রডব্যান্ডের ক্ষেত্রে বলা হয়েছে ‘যাহার ন্যূনতম ব্যান্ডউইথ ১ এমবিপিএস (মেগাবাইট পার সেকেন্ড) হইবে। ১ এমবিপিএস হইতে কম ব্যান্ডউইথকে ন্যারোব্যান্ড বলা হইবে।’ ব্যক্তি পর্যায়ের ব্যবহারকারীদের গত মে মাসের ১ তারিখ থেকে গতি উপভোগ করেছন। বিটিআরসি এপ্রিলের ১ তারিখে এ বিষয়ে নির্দেশনা জারি করে। মোবাইলফোন অপারটরগুলো থ্রিজি সেবার যেসব প্যাকেজ বাজারে ছেড়েছে তাতে ব্রডব্যান্ড প্যাকেজের (১ এমবিপিএস গতির) পাশাপাশি ন্যারোব্যান্ডও অফার করা হচ্ছে।
তবে এ ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম বাংলালিংক। প্রতিষ্ঠানটি ১ এমবিপিএস গতির থ্রিজি ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছে। এছাড়া টেলিটক, গ্রামীণফোন ও রবি ন্যারোব্যান্ডে থ্রিজি সেবা দিচ্ছে। টেলিটকের পাশাপাশি সম্প্রতি গ্রামীণফোন, বাংলালিংক, রবি ও এয়ারটেল নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি থেকে থ্রিজি সেবার প্যাকেজ ও ট্যারিফ অনুমোদন করিয়ে নিয়েছে।

3g
অপারেটরগুলো বলছে, ন্যারোব্যান্ডে সেবা না দিলে গ্রাহকের থ্রিজি ব্যবহারের খরচ অনেক বেড়ে যাবে। বিটিআরসির এক পরিচালকও অপারেটরদের সুরে সুর মিলিয়ে একই কথা বললেন। অথচ ব্রডব্যান্ডের সংজ্ঞা ও নীতিমালার বিষয়টি উল্লেখ করলে তিনি আর কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।
বিটিআরসির অনুমোদনে আরো বলা হয়েছে ‘থ্রিজি সেবার ক্ষেত্রে কোনো গ্রাহক যে প্যাকেজ নেবেন তার কমপক্ষে ৭০ শতাংশ গতি না পেলে সংশ্লিষ্ট অপারেটর তা অভিযোগ আকারে নেবেন।’ টেলিযোগাযোগ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অপারেটররা এই সুযোগটিই নিয়েছে।
এ ব্যাপারে বাংলালিংকের জ্যেষ্ঠ পরিচালক জাকিউল ইসলাম বলেন, ‘প্যাকেজের কমপক্ষে ৭০ শতাংশ গতিও যদি গ্রাহক পায় তাহলে তা অবশ্যই সন্তুষ্টির পর্যায়ের। আমরা গ্রাহককে ১ এমবিপিএস গতির সেবা দিব। ন্যারোব্যান্ডে আমাদের কোনো প্যাকেজ নেই।’ এয়ারটেলেরও সর্বনিু গতি ১ এমবিপিএস।
এ বিষয়ে বিটিআরসির ভাইস চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘সবে শুরু। বিষয়টি আমরা পর্যালোচনা করে দেখব।’ শুধু গতিই নয়, গ্রাহকের খরচের বিষয়টিওতো দেখতে হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
টেলিটকসহ চার অপারেটরের থ্রিজি সেবার অনুমোদিত প্যাকেজ পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, টেলিটক ডাটা কার্ডের মাধ্যমে (ফ্ল্যাশ মডেম) ২৫৬, ৫১২ কেবিপিএস (কিলোবাইট পার সেকেন্ড) এবং ১ থেকে ৪ এমবিপিএস গতির ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছে। মোবাইল ইন্টারনেটেও রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন প্যাকেজ।
গ্রামীণফোন বিভিন্ন প্যাকেজে ৫১২, ৮০০ কেবিপিএস এবং ১ এমবিপিএস গতির থ্রিজি সেবা দিচ্ছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে অপারেটরটির এক শীর্ষ কর্মকর্তা বলেন, গ্রাহকের কথা বিবেচনা করেই আমরা খরচ কমের বিষয়টিও বিবেচনায় নিয়েছি।
মোবাইলফোন অপারেটর রবিও ৫১২ কেবিপিএস এবং ১ থেকে ৪ এমবিপিএস গতির থ্রিজি প্যাকেজ বাজারে ছেড়েছে।
থ্রিজির ন্যূনতম গতি যেখানে ১ এমবিপিএস হওয়ার কথা সেখানে তা ভেঙে অল্প গতির প্যাকেজ করেছে অপারেটররা ব্রডব্যান্ড নীতিমালার সুযোগ নিয়ে। ন্যারোব্যান্ডের কথা উল্লেখ থাকায় অপারেটরগুলো থ্রিজি সেবায় কম গতির সেবাও দিচ্ছে।
এতে গ্রাহকদের ঠকার সম্ভাবনা আছে উল্লেখ করে এক টেলিযোগাযোগ বিশেষজ্ঞ বলেন, থ্রিজির আসল মজা হলো উচ্চগতি, সেখানে কম গতির প্যাকেজ (ন্যারোব্যান্ডের) কীভাবে নিয়ন্ত্রক সংস্থা অনুমোদন করেন তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি। এক্ষেত্রে তিনি অপারেটরগুলোর কম তরঙ্গ বরাদ্দ নেয়ার বিষয়টি উল্লেখ করে বলেন, বেশি পরিমাণ তরঙ্গ বরাদ্দ নিলে ন্যারোব্যান্ডের বিষয়টি আসত না।
প্রসঙ্গত, থ্রিজি সেবা দিতে টেলিটক ও গ্রামীণফোন ১০ এবং বাংলালিংক, রবি ও এয়ারটেল ৫ মেগাহার্টজ করে তরঙ্গ বরাদ্দ নিয়েছে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top