শিরোনাম

মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - বন্ধ হচ্ছে উইকিপিডিয়ার ডেটা ছাড়া তথ্যসেবা | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - বাজারে এলো সিউ কম্প্যাক্ট ডেস্কটপ নেটওয়ার্ক লেবেল প্রিন্টার | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - জুতা পরে হাঁটলেই চার্জ হবে ফোন | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - নতুন সংস্করণে আসুসের গেইমিং ল্যাপটপ | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - টাটা নিয়ে আসছে ড্রাইভারলেস গাড়ি | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - চার মোবাইল অপারেটর পেল ফোরজি লাইসেন্স | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - স্যামসাংয়ের ক্ষতির কারন আইফোন ১০ | সোমবার, ফেব্রুয়ারী 19, 2018 - নতুন কনফিগারেশনে আসছে নোকিয়া ৬ | সোমবার, ফেব্রুয়ারী 19, 2018 - স্যামসাং গ্যালাক্সি জে২ এলো ফোর-জি রূপে | সোমবার, ফেব্রুয়ারী 19, 2018 - এখনই ফোরজি সেবা পাবেনা টেলিটক গ্রাহকরা |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / ফিচার পোস্ট / নতুন প্রজন্মের জন্য ডিজিটাল বাংলাদেশ থিম নিয়ে ‘বিসিএস আইসিটি ওয়ার্ল্ড ২০১০’ শুরু

নতুন প্রজন্মের জন্য ডিজিটাল বাংলাদেশ থিম নিয়ে ‘বিসিএস আইসিটি ওয়ার্ল্ড ২০১০’ শুরু

ডিজিটাল প্রযুক্তি উন্নয়নের অন্যতম হাতিয়ার। তথ্যপ্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে সামগ্রিক উন্নয়নের মাধ্যমে  এবং এ ধরনের মেলার মাধ্যমে নতুন দিগন্ত্ম উন্মোচিত হবে। আজ ৩০ অক্টোবর বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস) আয়োজিত দেশের সর্ববৃহত্ তথ্যপ্রযুক্তি প্রদর্শনী ও কম্পিউটারের আন্ত্মর্জাতিক মিলনমেলা ‘বিসিএস আইসিটি ওয়ার্ল্ড ২০১০ উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে গণপ্রজাতন্¿ী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় অর্থ মন্¿ী জনাব আবুল মাল আবদুল মুহিত এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার এখনও পুরোপুরি ই-গভর্নেন্সে যেতে না পারলেও এ কার্যক্রম এগিয়ে চলছে। আমাদের সফটওয়্যার খাতও যথেষ্ট এগিয়ে যাচ্ছে। সবমিলিয়ে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কার্যক্রম এগিয়ে নিতে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।নতুন প্রজন্মের জন্য ডিজিটাল বাংলাদেশ’ থিম নিয়ে আয়োজিত চারদিনব্যাপী এ প্রদর্শনী ঢাকার শের-এ-বাংলা নগরে বঙ্গবন্ধু আন্ত্মর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।  উদ্ধোধনের শুরম্নতে ঢাক ঢোল বাদ্যির মাধ্যমে ফিতা কেটে প্রদর্শনীর আনুষ্ঠানিক উদ্ধোধন ঘোষনা করেন প্রধান অতিথি।

পরে অনুষ্ঠানে বিজ্ঞান, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্¿ণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্¿ী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান বলেন, দেশের মানুষের জন্য ডিজিটাল বাংলাদেশ বাসত্মবায়নে প্রযুক্তিই হচ্ছে প্রধান শক্তি। এ কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে মন্¿নালয়ের সকল কর্মীকে প্রযুক্তি প্রশিড়্গণ দেওয়ার কার্যক্রম চলছে। প্রত্যেক জেলায় নিজস্ব পোর্টাল করা হয়েছে এবং আগামী মাসের মধ্যেই ইউনিয়ন ইনফরমেশন সার্ভিস সেন্টার (ইউআইএসসি) চালু করা হবে।

অনুষ্ঠানে কিউবি বাংলাদেশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জেরি মবস বলেন, সাধারণ মানুষদের তারহীন দ্রম্নতগতির ওয়াইম্যাক্স সেবা পৌঁছানোর কার্যক্রম এগিয়ে চলছে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে বিসিএস সভাপতি মোসত্মাফা জব্বার বলেন, বিসিএস আইসিটি ওয়ার্ল্ড নামক প্রদর্শনীর মাধ্যমেই ডিজিটাল বাংলাদেশ সেস্নাগানের শুরম্ন। বর্তমানে সরকারের নানা কার্যক্রমে বোঝা যাচ্ছে সরকার সত্যিই ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়বে। তবে এ জন্য সরকারের নিজস্ব কর্মপদ্ধতিকে ডিজিটাল করতে হবে। সরকারের কার্যক্রম কাগজবিহীন করার মাধ্যমেই সাধারণ মানুষ ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বাদ পাবে।

পরে মেলার আহ্বায়ক  ও বিসিএসের মহাসচিব মজিবুর রহমান স্বপন ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। এ সময়ে সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যগণসহ স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। বিসিএসের এ প্রদর্শনীর আয়োজনে সহযোগিতা করছে আইসিটি বিজনেস প্রমোশন কাউন্সিল।

তথ্যপ্রযুক্তির দেশী-বিদেশী জনপ্রিয় ও সুপরিচিত ব্র্যান্ড, আমদানিকারক, প্রস্তুতকারক ও সরবরাহকারী ৬৬টি প্রতিষ্ঠান এ প্রদর্শনীতে অংশ নিচ্ছে। এতে তারা ম–লত কম্পিউটার হার্ডওয়্যার ও সফ্টওয়্যার পণ্যসামগ্রী, নেটওয়ার্ক ও ড্যাটা কমিউনিকেশন, টেলিকম সেবা ও পণ্যসামগ্রী, মাল্টিমিডিয়া, আইসিটি শিক্ষা উপকরণ, ল্যাপটপ, পামটপ, ডিজিটাল জীবনধারাভিত্তিক প্রযুক্তি ও পণ্য ইত্যাদির উন্নত ও হালনাগাদ সংস্করণ প্রদর্শন করবে। প্রায় ৫০,০০০ বর্গফুট স্থান জুড়ে ৬৯ টি স্টল এবং ২৬টি প্যাভিলিয়নে এসব প্রযুক্তি সামগ্রী প্রদর্শণ করা হচ্ছে।

দেশি-বিদেশি নামকরা তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ, কর্মী ও ব্যবসায়ীরা প্রদর্শনীতে অংশ নিচ্ছেন। ফলে নতুন নতুন প্রযুক্তি, কলাকৌশল, প্রযুক্তিপণ্য, সেবা, এসবের বাজারজাতকরন এবং এ সংক্রান্ত্ম অভিজ্ঞতা ও জ্ঞান বিনিময়ের অবারিত সুযোগ তৈরি হবে। সব মিলিয়ে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশে’র স্বপ্নযাত্রা বাসত্মবায়নের গতিকে আরও শাণিত করবে ‘বিসিএস আইসিটি ওয়ার্ল্ড ২০১০’।

প্রদর্শনী চলাকালে বাংলাদেশের প্রেড়্গাপটে তথ্যপ্রযুক্তি, এর ব্যবহারিক ও বাণিজ্যিক প্রসঙ্গ ইত্যাদি নিয়ে ৩টি সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। আজ বিকেল ৩টায় কিউবির আয়োজনে ‘ইন্টারনেটের ৫০০ দিন’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ১ নভেম্বর ড্যাফোডিল ইন্সটিউট অব আইটির আয়োজনে ‘ইন্টারনেটের মাধ্যমে ঘরে বসে কাজ এবং উপার্জনের কৌশল’ এবং ০২ নভেম্বর বিসিএসের আয়োজনে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ \ লড়্গ্য ও অর্জন’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। সরকারের নীতিনির্ধারণী মহলের গুরম্নত্বপ–র্ণ ব্যক্তিবর্গ, দেশের বরেণ্য তথ্যপ্রযুক্তিবিদ, বিশেষজ্ঞ, ব্যবসায়ী ও অনুরাগী ব্যক্তিবর্গ এসব সেমিনারে অংশ নিবেন। প্রদর্শনী কেন্দ্রের মিডিয়া বাজারে প্রতিদিন সকাল ১১টায় এসব সেমিনার শুরম্ন হবে।

এছাড়া মেলায় অংশগ্রহনকারী চীনের ইন্সপিউর গ্রম্নপ কোম্পানি লিমিটেডের প্রতিনিধি দল বাংলাদেশের আইসিটি ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বিজনেস-টু- বিজনেস আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন।

প্রদর্শনীতে প্রতিদিনই থাকছে বিভিন্ন তথ্যপ্রযুক্তি পণ্যের বিশেষায়িত প্রদর্শনী ও কুইজ প্রতিযোগিতা। প্রদর্শক প্রতিষ্ঠানগুলো তা আয়োজন করবে। মেলায় ওয়াইম্যাক্স প্রযুক্তির সহায়তায় ফ্রি ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ থাকছে দর্শনার্থীদের। পাশাপাশি সম্পুর্ণ মেলাপ্রাঙ্গণটি হবে ওয়াইফাই জোন এবং মেলায় আগত দর্শক ও অংশগ্রহণকারীরা বিনাম–ল্যে তা ব্যবহার করতে পারবেন। এ বিষয়ে পস্ন্যাটিনাম স্পন্সর কিউবি প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করবে।

মেলার দর্শনার্থীদের জন্য থাকছে ফ্রি গেমিং জোন। এছাড়াও অনলাইন ভিডিও স্ট্রিমিং, আইপি টিভি, রেডিও, ইন্টারনেট গেমিং এবং ফাস্ট সিস্টেম সুইচ ইত্যাদি ব্যবহারের ব্যবস্থা থাকছে। পাশাপাশি থাকবে কিয়স্ক-এর প্রদর্শনী যেখানে বাংলাদেশ এবং বিসিএস সম্পর্কে দর্শনার্থীরা অনায়াসে বিভিন্ন তথ্য পেতে পারবেন। প্রদর্শনী প্রাঙ্গনে দর্শনার্থীদের জন্য ফুড কোর্টের ব্যবস্থাও থাকবে। সেখানে কোমল পানীয়, চা এবং কফি, বুফে খাবার এবং বাংলাদেশী খাবারের স্বাদ নিতে পারবেন দর্শনার্থীরা। উদ্ধোধনের পরে চলছে শিশুদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা। বয়সভিত্তিক তিনটি গ্রম্নপে স্কুল শিড়্গার্থীরা এতে অংশ নিয়েছে ।

মেলায় আগত দর্শনার্থীদের টিকিটের ভিত্তিতে প্রতিদিনই থাকছে র্যাফেল ড্র’র আয়োজন। গণপ্রজাতন্¿ী বাংলাদেশ সরকারের মন্¿ী পরিষদের সদসদের উপস্থিতিতে ল্যাপটপসহ বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় ১০টি তথ্যপ্রযুক্তি পণ্য এতে পুরস্কার হিসেবে দেয়া হবে।

প্রদর্শনী প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত্ম প্রদর্শনী চলবে। প্রদর্শনীতে প্রবেশম–ল্য সাধারণ দর্শকদের জন্য ২০/- টাকা ধার্য করা হয়েছে। তবে বরাবরের মতো এবারও স্কুল পড়ুয়া শিড়্গার্থীরা পরিচয়পত্র প্রদর্শন সাপেড়্গে বিনাম–ল্যে প্রদর্শনীতে প্রবেশের সুযোগ পাবে।

আগামী মঙ্গলবার (০২ নভেম্বর) প্রদর্শনী শেষ হয়ে গেলেও পরদিন সন্ধ্যায় আনুষ্ঠানিকভাবে এর সমাপ্তি ঘোষণা করা হবে। সমাপনী অনুষ্ঠানে মাননীয় পররাষ্ট্রমন্¿ী ডা: দীপু মনি, এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদ–ত মি. জাং জিয়াংই বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।

এ প্রদর্শনীতে বাংলাদেশে ফোর-জি প্রযুক্তির ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান কিউবি পস্ন্যাটিনাম স্পন্সর হিসেবে অংশগ্রহণ করছে। সেই সঙ্গে গোল্ড স্পন্সর হিসেবে থাকছে তথ্যপ্রযুক্তিতে বিশ্বখ্যাত ব্রান্ড আসুস ও স্যামসাং। তথ্যপ্রযুক্তির আরও তিনটি অতিপরিচিত ব্রান্ড ব্রাদার, মারকারি ও মাইক্রোসফট সিলভার স্পন্সর হিসেবে অংশ নিচ্ছে। প্রদর্শনীর সেরা স্টল ও প্যাভিলয়নের পুরস্কার হিসেবে ‘ঢাকা-কায়রো-ঢাকা’-র বিমানের টিকিট স্পন্সর করছে ইত্তেহাদ এয়ারলাইনস। চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় স্পন্সর করছে রিশিত কম্পিউটারস লিমিটেড। প্রদর্শনীর টিকেট স্পন্সর করছে ইনডেক্স আইটি লিমিটেড। এছাড়া টিকেট কাউন্টার স্পন্সর হিসেবে নরটন বাই সিমেনটেক এবং ভলান্টিয়ার ড্রেস স্পন্সর হিসেবে স্যামসাং অংশ নিচ্ছে। আর মিডিয়া পার্টনার হিসেবে থাকছে এটিএন বাংলা, রেডিও টুডে ও সমকাল।

বিসিএসআইসিটিওয়ার্ল্ড ২০১০-এর আয়োজক কমিটি হিসেবে কাজ করছে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি’র কার্যনির্বাহী কমিটি। এর সার্বিক সফলতা আনতে বিসিএস মহাসচিব জনাব মজিবুর রহমান স্বপনকে (মোবাইল: ০১৭১৯৯৮৪৭৪১) আহ্বায়ক এবং বিভিন্ন উপকমিটি’র চেয়ারম্যান হিসেবে অন্যান্য পরিচালকদের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

প্রদর্শনী সংক্রান্ত্ম যে কোন তথ্যের জন্য প্রদর্শনীর ওয়েবসাইট www.bcsictworld.com.bd দেখা যেতে পারে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top