শিরোনাম

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - ওয়ান প্লাসের নতুন পাওয়ার ব্যাংক | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - স্প্যাম মেসেজ ঠেকাতে হোয়াটসঅ্যাপের নতুন ফিচার | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - যাত্রা শুরু করলো ওয়ালটনের কম্পিউটার কারখানা | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - নতুন স্মার্টফোন আনল হুয়াওয়ে অনার | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 18, 2018 - স্বল্প মূল্যের গ্যালাক্সি সিরিজের ফোন ‘অন৭ প্রাইম’ | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - একত্রে কাজ করবে এটুআই এবং একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - ল্যাপটপের সঙ্গে রাউটার ফ্রি! | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - ‘অপো এশিয়ায় সর্বাধিক বিক্রীত স্মার্টফোন’ | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - চীনে চালু হচ্ছে গুগলের এআই ল্যাব | বুধবার, জানুয়ারী 17, 2018 - বৈদ্যুতিক গাড়িতে ১১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগে ফোর্ডের আগ্রহ প্রকাশ |
প্রথম পাতা / কর্পোরেট স্পেশাল / নীতিমালার অভাবেই আইএমইআই’র অপব্যবহার!
নীতিমালার অভাবেই আইএমইআই’র অপব্যবহার!

নীতিমালার অভাবেই আইএমইআই’র অপব্যবহার!

হিটলার এ. হালিম : মোবাইলফোনের নিরাপত্তা পরিচিতি সূচক নম্বর আইএমইআই (ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল স্টেশন ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি) আইএমইআই ব্যবহারের কোনও নীতিমালা না থাকায় এর যথেচ্ছ ব্যবহার হচ্ছে।

ফলে বাড়ছে মোবাইল সংক্রান্ত অপরাধ এবং ঘটছে এ সম্পর্কিত দুর্ঘটনা। শিগগিরই আইএমইআই ব্যবহারের নীতিমালা করে এর ব্যবহারের শর্ত, অপব্যবহার করলে শাস্তি, ব্যবহার পদ্ধতি, ডাটাবেজ থেকে রি-চেক করার জন্য একটি নিদের্শনা থাকা জরুরি হয়ে পড়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

IMEI

নীতিমালা করা হলে নকল আইএমইআই ব্যবহার, মোবাইল থেকে আইএমইআই ফ্ল্যাশ করা বন্ধ হবে। আর এসব বন্ধ করা না গেলে মোবাইল সংক্রান্ত অপরাধ কোনওভাবেই নিয়ন্ত্রণ করা যাবে বলে আশঙ্কা সংশ্লিষ্টদের।

সম্প্রতি মোবাইলফোনে নকল আইএমইআই-এর ব্যবহার বেডে যাওয়া এবং সফটওয়্যারের মাধ্যমে আইএমইআই ফ্ল্যাশ (মুছে ফেলা) করায় এ সংক্রান্ত অপরাধ বেড়ে গেছে। চুরি ছিনতাই বেড়েছে দামি দামি স্মার্টফোনের। পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) বিষয়টি সবার নজরে এনে মোবাইলের আইএমইআই ফ্ল্যাশ বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছে।

এ বিষয়ে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির সংশ্লিষ্টদের কাছে জানতে চাওয়া হলে তারা জানান, কমিশন আইএমইআই বারিংয়ের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এতে করে এ সংক্রান্ত সব সমস্যা দূর হবে কীনা জানতে চাইলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক কর্মকর্তা জানান, আইএমইআই-এর জন্য যেখানে সেন্ট্রাল ডাটা সেন্টারই এতদিনে করা যায় না সেখানে নীতিমালা কোনও কাজে আসবে না। এক প্রশ্নের জবাবে ওই কর্মকর্তা বলেন, কমিশনের নীতিমালা তৈরির কোনও পরিকল্পনা রয়েছে কীনা তা তিনি জানেন না।

তবে এ প্রসঙ্গে বিটিআরসির পরিচালক (আইন) তারেক হাসান সিদিকী বলেন, মোবাইলফোন বারিং নয়, বরং আইএমইআই -এর জন্য নীতিমালা করা প্রয়োজন। নীতিমালা তৈরি হলে এ ধরনের কোনও সমস্যা আর থাকবে না।

প্রসঙ্গত, অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাজ্য, নিউজিল্যান্ডসহ বড় বড় দেশগুলোতে আইএমইআই নীতিমালা রয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বর্তমানে আইএমইআই নম্বর নিবন্ধনের ব্যবস্থা নেই। ফলে চুরি হওয়া মোবাইলফোনের প্রকৃত মালিককে শনাক্ত করা ও উদ্ধার অনেক ক্ষেত্রেই সম্ভব হয় না।

আইএমইআই নিবন্ধন ব্যবস্থা চালু হলে হ্যান্ডসেট চুরি ও নকল হ্যান্ডসেট বিক্রি বন্ধ হবে। এছাড়া জাতীয় নিরাপত্তার বিষয়টিকে এক্ষেত্রে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

আইএমইআই নিবন্ধনের জন্য নির্বাচন কমিশনের ডাটাবেজ ব্যবহার করা হবে। ডাটাবেজ ব্যবহারের নীতিগত অনুমোদনও দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে কারিগরি প্রক্রিয়া চূড়ান্ত করার কাজ চলছে বলে জানা গেছে।

এনইআইআর (ন্যাশনাল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিফিকেশন রেজিস্ট্রার) বাস্তবায়ন করা হলে প্রতিটি গ্রাহকের ফোনকলের সঙ্গে তার ফোন নম্বর, মোবাইল সেটের মডেল নম্বর এবং আইএমইআই নম্বরও অপারেটরের সার্ভারে থাকবে। ফলে সিম কার্ড বদলে ফেলা হলেও সংরক্ষিত তথ্যের মাধ্যমে চুরি হওয়া মোবাইল উদ্ধার বা অপরাধীকে শনাক্ত করা সম্ভব হবে।

এনইআইআরকে সিইআইআর (সেন্ট্রাল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি রেজিস্টার) ও টিআইএর (টেলিকমিউনিকেশন ইন্ডাস্ট্রি অ্যাসোসিয়েশন) সঙ্গে যুক্ত করা হবে। এতে আন্তর্জাতিকভাবে হ্যান্ডসেট শনাক্তকরণের সুবিধা পাওয়া যাবে।

বিটিআরসি সূত্রে জানা গেছে, প্রতিটি মোবাইলফোন অপারেটরকে (এনইআইআর) এবং ফ্রড ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (এফএমএস) স্থাপন করতে হবে। চূড়ান্ত নির্দেশনা প্রকাশের এক বছরের মধ্যে এনইআইআর ও এফএমএস বাস্তবায়ন করতে হবে অপারেটরদের। এনইআইআর ও এফএমএস (ফ্রড ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম) বাস্তবায়নের পর জিআইআইপি (জেনুইন আইএমইআই ইমপ্ল্যান্ট প্রোগ্রাম) বাস্তবায়ন করতে হবে তাদের। এটি বাস্তবায়িত হলেই নকল মোবাইলফোন সেট বন্ধের কাজ শুরু করতে হবে অপারেটরদের।
তবে এসব বাস্তবায়নের আগে প্রয়োজন হবে আইএমইআই নীতিমালা। সংশ্লিষ্টদের অভিমত, নীতিমালা না থাকলে কিসের পরিপ্রেক্ষিতে নির্দেশনা দেওয়া হবে।

consultar-y-cambiar-imei

এক ঘণ্টায় আইএমইআই পরিবর্তন, দামি স্মার্টফোনের চুরি-ছিনতাই বেড়েছে
এই রাজধানীতেই এক হাজার টাকায় মিলছে মোবাইলফোনের নিরাপত্তা পরিচিতি সূচক আইএমইআই (ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল স্টেশন ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি) নম্বর। সেই নম্বর বদলে ফেলা যাচ্ছে এক ঘণ্টায়। আর এ কারণেই চুরি বা ছিনতাই বেড়েছে আইফোন, স্যামসাং, নকিয়া, এইচটিসির মতো দামি স্মার্টফোন সেটের।

হালে রাজধানীসহ দেশের বড় বড় শহরগুলোতে স্মার্টফোনের চুরি, ছিনতাই বেড়েছে। চুরি ছিনতাই হওয়া এসব ফোন অপরাধীরা বা তাদের দলের লোকজন রাজধানীর ইস্টার্ন প্লাজা এবং গুলিস্তানের স্টেডিয়াম পাড়ায় সংবদ্ধ চক্রের কাছ থেকে এক হাজার টাকার বিনিময়ে নতুন আইএমইআই সংগ্রহ করে এক ঘণ্টার মধ্যে বদলে ফেলছে। ফলে ফোনটি হয়ে যাচ্ছে নতুন।

বাজার থেকে নতুন একটি সিম কিনে ওই মোবাইলে ব্যবহার করলে কেউই ধরতেই পারবে না ফোনটি আগে ব্যবহৃত। অন্যদিকে মোবাইলফোনের মাধ্যমে কোনও অপরাধ সংঘটন করে অপরাধীরা মোবাইলফোন সেট না বদলে আইএমইআই বদলে ফেলছে। ফলে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকেও অপরাধ এবং অপরাধী শনাক্তে গলদঘর্ম হতে হচ্ছে।

পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) মতে, আইএমইআই পরিবর্তনের সঙ্গে একটি সংঘবদ্ধ অপরাধী চক্র জড়িত। এই চক্রকে চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে।

এ বিষয়ে সিআইডির একজন বিশেষ পুলিশ সুপার জানান, বর্তমানে যেসব মোবাইলফোন পাওয়া যাচ্ছে সেগুলোতে আইএমইআই ফ্ল্যাশ (পুরোনোটা মুছে নতুনটি প্রতিস্থাপন) করা যাচ্ছে। অপরাধীরা এই সুযোগটাই নিচ্ছে। মোবাইল সার্ভিসিং-এর সঙ্গে জড়িতরা ইন্টারনেট থেকে সফটওয়্যার ডাউনলোড করে দ্রুত আইএমইআই বদলে দিচ্ছে।

তিনি জানান, এ কারণেই চুরি বা ছিনতাই হওয়া আইফোন এবং স্যামসাং-এর মতো দামি সেটগুলোর রিকভারি রেট (উদ্ধার হার) খুবই কম। আইএমইআই বদলে ফেললে আমরা আর ওগুলো উদ্ধার করতে পারি না। তবে আইএমইআই মুছে না ফেললে যখনই সেটটি চালু করা হবে তখনই আমরা তা জানতে পেরে উদ্ধার প্রক্রিয়া শুরু করি।

তিনি নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসিকে পরামর্শ দেন, আপনারা এমন প্রযুক্তি বসান যাতে মোবাইল বা অন্য কোনও ডিভাইস থেকে আইএমইআই ফ্ল্যাশ করা না যায়।

এসব সমস্যার আশু সমাধানে বিভিন্ন পক্ষ থেকে আইএমইআই-এর একটি কেন্দ্রীয় ডাটাবেজ তৈরির কথা বলা হলেও এটি তৈরি এবং রক্ষণাবেক্ষন খরচ কে দেবে তা ঠিক না হওয়ায় বিষয়টি দীর্ঘদিন ধরে ঝুলে আছে। আর অপরাধীরা সেই সুযোগটাই নিচ্ছে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

বাংলাদেশ মোবাইল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রেজওয়ানুল হক জানান, অনেক প্রতিষ্ঠান আইএমইআই ছাড়াই দেশে চীন থেকে মোবাইল আমদানি করছে। বাজারে আইএমইআই বিহীন সেট বিক্রিও হচ্ছে। এ ধরনের ফোন সেট ব্যবহারকারীরা কোন ধরনের অপরাধ করে ফোনসেট না বদলে বাজার থেকে আইএমইআই সংগ্রহ করে তা সেটে প্রতিস্থাপন করে থাকতে পারে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top