শিরোনাম

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - বাংলাদেশেই তৈরি হবে সকল ডিজিটাল ডিভাইস : মোস্তাফা জব্বার | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - যে কারণে অনলাইন অ্যাকাউন্টে কঠিন পাসওয়ার্ড দিবেন | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - ফিশিং জালিয়াতির শিকার হচ্ছেন জিমেইল ব্যবহারকারীরা | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - দেশের বাজারে লেনোভোর এইচডি ডিসপ্লের ল্যাপটপ | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - হিটাচি প্রজেক্টরে ম্যাজিক অফার | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - বাংলাদেশে ডি-লিংক কাস্টমার কেয়ার সেন্টারের অংশীদার কম্পিউটার সোর্স | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - অপ্পোর নতুন ২ স্মার্টফোনে গ্রামীণফোনের ফ্রি ইন্টারনেট | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - ওয়েস্টার্ন ডিজিটাল এর পার্টনার মিট | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - ইউটিউবের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ছে পর্নগ্রাফি ভিডিও | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - আসছে স্বল্প মূল্যের অ্যান্ড্রয়েড ওয়ান ফোন |
প্রথম পাতা / স্থানীয় খবর / প্রযুক্তি বাজারে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশি তরুণরা :পলক
প্রযুক্তি বাজারে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশি তরুণরা :পলক

প্রযুক্তি বাজারে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশি তরুণরা :পলক

1464100388তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর উদ্ভাবনী ও উদ্যোক্তাদের সহায়তা দিতে সরকার বিভিন্ন প্রণোদনামূলক কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় উদ্যোক্তা ও তরুণদের উত্সাহিত আইসিটি ডিভিশন আয়োজন করছে এ বছর জাতীয় পর্যায়ে ন্যাশনাল হ্যাকাথন ও কানেক্টিং স্টার্টআপের আয়োজন করছে। লক্ষ্য ২০২১ সালের মধ্যে অন্তত ১ হাজারটি প্রযুক্তি উদ্ভাবন কে খুঁজে বের করা। মন্ত্রী গতকাল বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) মিলনায়তনে আইসিটি ডিভিশন আয়োজিত ইনোভেশন বুট ক্যাম্পে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের মূল শক্তি দেশের মেধাবী তরুণ সমাজ। তাদের অসামান্য মেধা ও দক্ষতায় আগামীর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় আমরা দৃপ্ত পদক্ষেপে এগিয়ে যাচ্ছি। তরুণদের এই অগ্রযাত্রায় তাদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে অবদান রাখার জন্য আমরা বছরব্যাপী নানা রকম প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকি, যাতে বর্তমান প্রজন্ম তার মেধার চূড়ান্ত বহিঃপ্রকাশ ঘটাতে পারে।’ পলক আরও বলেন, ‘কানেক্টিং স্টার্টআপ প্রতিযোগিতা আয়োজনের উদ্দেশ্য দেশের প্রয়োজন ও চাহিদা মোতাবেক বিভিন্ন প্রযুক্তি স্টার্টআপকে সামনে এনে টেকনিক্যাল সহায়তা দেওয়া। বিজয়ী পাবেন সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় জনতা টাওয়ার আইটি পার্কে অফিস স্পেস, কারিগরী গবেষণার সুযোগ এবং আন্তর্জাতিক বাজারে দেশীয় প্রোডাক্ট হিসেবে ব্র্যান্ডিংয়ের সুবিধা। ৪৩৫টির বেশি আবেদন ও ৩ পর্যায়ের যাচাই বাছাই হবার পর গ্রোথ ও আইডিয়া সেক্টর থেকে ২৫টি করে মোট ৫০টি টিম পরবর্তী রাউন্ডের প্রতিযোগিতায় টিকে আছে। এই টিমগুলোও আজ আছে আমাদের সাথে।’ অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বিসিসির নির্বাহী পরিচালক এস এম আশরাফুল ইসলাম, বিশ্বব্যাংকে ডিজিটাল এন্টারপ্রেনারশিপ প্রোগ্রামের কো-লিড টনি ইলিয়াজ, এলআইসিটি প্রকল্পের কম্পোনেন্ট টিম লিডার সামি আহমেদ ও বেসিস এর পরিচালক আশ্রাফ আবির।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top