শিরোনাম

রবিবার, জানুয়ারী 21, 2018 - আকর্ষণীয় ফিচার নিয়ে বাজারে আসছে স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ৯ | রবিবার, জানুয়ারী 21, 2018 - বাংলালিংকের ‘হেলথলিংক ৭৮৯’ সার্ভিসে যুক্ত হল ‘ডক্টরস অ্যাপয়েন্টমেন্ট’ সুবিধা | রবিবার, জানুয়ারী 21, 2018 - গ্লোবাল ব্র্যান্ড নিয়ে এসেছে লেনোভো আউডিয়াপ্যাড ৩২০ ল্যাপটপ | রবিবার, জানুয়ারী 21, 2018 - ব্যবসায়ীদের জন্য হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস | রবিবার, জানুয়ারী 21, 2018 - হ্যাকিংয়ের কাবলে ওয়ানপ্লাস | রবিবার, জানুয়ারী 21, 2018 - আসছে ইন্টেল কোর আই৯ প্রসেসর এর ল্যাপটপ | রবিবার, জানুয়ারী 21, 2018 - বাণিজ্য মেলায় অপো এফ৫ বিজয়ীদের নাম ঘোষণা | শনিবার, জানুয়ারী 20, 2018 - আরও কঠিন হচ্ছে ইউটিউব থেকে উপার্জন | শনিবার, জানুয়ারী 20, 2018 - ফেসবুক হ্যাকড হলে করনীয় | শনিবার, জানুয়ারী 20, 2018 - কর্মজীবি নারীদের মানহানি বন্ধে আহব্বান |
প্রথম পাতা / টিউটোরিয়াল / ফেসবুক অ্যাডঃ কম বাজেটে বেশি ফলাফল আনার ৫টি কৌশল
ফেসবুক অ্যাডঃ কম বাজেটে বেশি ফলাফল আনার ৫টি কৌশল

ফেসবুক অ্যাডঃ কম বাজেটে বেশি ফলাফল আনার ৫টি কৌশল

ফেসবুক অ্যাড বাংলাদেশে একটি জনপ্রিয় অনলাইন মার্কেটিং মাধ্যম। অনেকেই এখন ফেসবুকে টাকা খচর করে অ্যাড প্রদান করে। আপনিও হয়তো অ্যাড দিচ্ছেন। কিন্তু কখনও কি হিসাব করেছেন প্রতি ডলার খরচ করে আপনি কি পাচ্ছেন? অনেক পেজ লাইক? কিন্তু শুধু পেজ লাইক বাড়লেই কি আপনার পণ্যের কাটটি বৃদ্ধি পাবে? যতজন আপনার পেজ লাইক করেছে তার কতজন আসলে আপনার কাছ থেকে কিনেছে? মিলিয়ে দেখুন।

অনেকে আছেন যারা পেজ লাইকের পেছনে ছুটছেন। পেজ লাইককে প্রেস্টিজ বানিয়ে ফেলেছেন। আরে বাবা! মানুষ কখন আপনাকে লাইক করবে? আপনার সেবা/পণ্য যখন তাদের পছন্দ হবে তখন, তাই না?

fb-marketing

বাংলাদেশে ইদানিং একটা ট্রেন্ড লক্ষ্য করা যাচ্ছে। মাত্র গতকাল যে কোম্পানি তাদের কার্যক্রম শুরু করেছে তাদের ফেসবুক পেজ এ লক্ষাধিক মানুষ লাইক দিয়েছে! এর মানে কি? টাকা দিয়ে ফেসবুক থেকে লাইক কেনা হয়েছে, ফেসবুক অ্যাড এর মাধ্যমে।

বাস্তব অভিজ্ঞতা দিয়ে আমরা দেখেছি প্রতিদিন মাত্র ৫-১০ ডলার খরচ করে আপনি ২০/২৫ টি করে পণ্য বিক্রি করতে পারবেন, যেখানে অনেক কোম্পানি কয়েক লাখ পেজ লাইক নিয়ে, প্রতিদিন ৫০ থেকে ১০০ ডলার খরচ করেও মাত্র ১০/১৫ টি পণ্য বিক্রি করতে হিমশিম খাচ্ছে।

যাইহোক, আপনার অ্যাড এর বাজেট এর সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে প্রয়োজন সঠিক ব্যক্তির কাছে সঠিক অফার পৌছে দেয়া।
মনে করুন আপনি কালো রং এর জিন্স প্যান্ট কিনতে চাচ্ছেন, এ বিষয়ে অনলাইনে খোজখবর নিচ্ছেন।

facebook_ads

এখন নিচের তিন ধরণের ফেসবুক অ্যাড আপনার চোখে পড়লো

ক) অনলাইন শপিং- যারা বলছে যে তাদের ওয়েবসাইটে অনেক পণ্য রয়েছে
খ) জিন্স প্যান্ট এর অ্যাড- যারা বলছে যে তারা জিন্স প্যান্ট বিক্রি করে
গ) কালো জিন্স- যারা বলছে যে তাদের কাছে কালো জিন্স এর কালেকশন রয়েছে

উপরের কোন অ্যাডটিতে আপনি প্রথম ক্লিক করবেন? অবশ্যই শেষটিতে, তাই না? অর্থ্যাৎ যারা বেশি টার্গেটেট অ্যাড দিয়েছে তারাই সবচেয়ে বেশি ট্রাফিক পাবে এবং সম্ভবত তারাই সবচেয়ে বেশি বিক্রি করবে। (সম্ভবত বলেছি কারণ শুধু ভিজিটর আনলেই হবে না, আরও বেশ কিছু বিষয় আছে, সেগুলো যদি ঠিকঠাক থাকে তবেই বিক্রি হবে)

এবার আসুন, জেনে নেয়া যাক, কোন ৫টি অ্যাডভান্স কৌশল ব্যবহার করে ফেসবুক অ্যাড দিয়ে কম বাজেটেও বেশি ফলাফল নিয়ে আসবেন?

১। কাস্টম অডিয়েন্স
কাস্টমস্ অডিয়েন্স একটি বিশেষ অ্যাড টার্গেটিং টুল যা দিয়ে আপনি নির্বাচন করতে পারবেন কারা আপনার অ্যাড দেখবে?
কাস্টম অডিয়েন্স লিস্ট তৈরি করতে আপনি ব্যবহার করতে পারেন ইমেইল, মোবাইল নম্বর, ফেসবুক ইউজার আইডি। অর্থ্যাৎ আপনার কাছে যদি টার্গেটেড ইমেইল, মোবাইল নম্বরের লিস্ট থাকে তাহলে আপনি এমন ভাবে অ্যাড তৈরি করতে পারবেন যা শুধু মাত্র আপনার লিস্টের মানুষই দেখবে
আবার ফেসবুক গ্রাফ সার্চ ব্যবহার করে বয়স, পেশা, আগ্রহ, চাকুরি, অবস্থান ইত্যাদি ফিল্টার ব্যবহার করে আপনার টার্গেট মানুষদের খুবই সুনির্দিস্ট করে ফেলতে পারবেন।

২।লুক এলাইক অডিয়েন্স
সোজা বাংলায় লুক এলাইক মানে হলো একই রকম দেখতে। ফেসবুক অ্যাড তৈরিতে কিভাবে লুক এলাইক অডিয়েন্স কাজ করে? ধরুন আপনার কাছে ১০০ জন লোকের একটি লিস্ট আছে যারা অলরেডি আপনার কাস্টমার। এখন ফেসবুককে আপনি বলতে পারেন এই ১০০জন লোকের মত আরও যারা ফেসবুক এ আছে তাদেরকে অ্যাড দেখাও। এতে করে খুব সহজেই অল্প কিছু টাকা খরচ করেই আপনি আরও নতুন নতুন ক্রেতা পেয়ে যাবেন।

৩।কনভার্শন ট্র্যাকিং
এটি ফেসবুক অ্যাড এর পারফর্মেন্স পরিমাপের একটি পদ্ধতি। যার মাধ্যমে জানতে পারবেন একটি অ্যাড এর মাধ্যমে আপনার উদ্দেশ্য সফল হচ্ছে কিনা। আপনার উদ্দেশ্য যদি হয় ভিজিটর নিয়ে আসা তাহলে এই পদ্ধতিতে ফেসবুক তার রিপোর্ট এ দেখাবে অ্যাডটি থেকে আপনি কতজন ভিজিটর পেয়েছেন। আবার আপনার উদ্দেশ্য যদি হয় রেজিস্ট্রেশন, তাহলে কনভার্শন ট্র্যাকিং ব্যবহার করে আপনি জানতে পারবেন কোন একটি নির্দিষ্ট্য ফেসবুক অ্যাড থেকে আপনি কতটি নতুন রেজিস্ট্রেশন পেয়েছেন।

৪। পাওয়ার এডিটর
এটি ফেসবুক এ অ্যাড তৈরি ও টার্গেট অডিয়েন্স সেট করার একটি অ্যাডভান্স টুল। এটি শুধু মাত্র গুগল ক্রোম ব্রাউজারে কাজ করে। এটি ব্যবহার করে আপনি কয়েক ডজন নতুন অপশন পাবেন যা ফেসবুক অ্যাড ম্যানেজার এ নেই। এ চমৎকার টুলটি আপনাকে আরও বেশি কার্যকর ভাবে ফেসবুক অ্যাড তৈরিতে সাহায্য করবে। এমনকি আপনি যদি চান যে আপনি আপনার ফেসবুক পেজ এ যে পোস্টগুলো দিবেন তার কিছু দেখবে শুধু মেয়েরা, কিছু দেখবে শুধু ছেলেরা বা কিছু পোস্ট শুধু দেখবে শুধুই ঢাকা বা চট্রগ্রামের মানুষ তাও আপনি পাওয়ার এডিটর দিয়ে করতে পারবেন। পাওয়ার এডিটর খুবই মজার, এটি দিয়ে যে কতকিছু করা যায়!

xpower-editor

৫। ফেসবুক একচেঞ্জ
এটি দিয়ে আপনি ফেসবুকের থার্ডপার্টি ডাটা ব্যবহার করতে পারবেন। আবার ডাইনামিক অ্যাডও দেখাতে পারবেন। যারা আপনার ওয়েবসাইট ভিজিট করেছে তাদেরকে টার্গেট করতে পারবেন, ভিজিটররা কোন পেজ ভিজিট করেছে তার উপর ভিত্তি করে ডাইনামিক ভাবে অ্যাড চেঞ্জ করতে পারবেন। অর্থ্যাৎ যারা শুধু হোম পেজ ভিজিট করেছে তারা দেখবে একটা নির্দিষ্ট অ্যাড, আবার যারা একটি ক্যাটাগরি পেজ ভিজিট করেছে তারা দেখবে আরেকটি অ্যাড ইত্যাদি।

উপরের পদ্ধতিগুলো ব্যবহার করে আরও সুনির্দিষ্ট করে আপনার টার্গেট নির্বাচন করে ফেসবুকে অ্যাড দিন, নিয়মিত ফলাফল পর্যবেক্ষণ করুন, তাহলে কম বাজেটেও অনেক বেশি সাফল্য আসবে।

আর এ পদ্ধতিগুলোর ব্যবহারিক প্রয়োগ সম্পর্কে জানতে ভিজিট করতে পারেন ফেসবুক এর সাপোর্ট পেজ:

https://www.facebook.com/business/products/advanced-ads

সূত্র - রিভাররিং ডট কম 

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top