শিরোনাম

মঙ্গলবার, আগস্ট 22, 2017 - কে করবে অস্ত্রোপচার ? | মঙ্গলবার, আগস্ট 22, 2017 - আসছে স্যামসাংয়ের নতুন ট্যাব | মঙ্গলবার, আগস্ট 22, 2017 - চেক লেখার সময়ে এই ভুলগুলি করলেই ফাঁকা হবে অ্যাকাউন্ট! | মঙ্গলবার, আগস্ট 22, 2017 - জিওনির কম বাজেটের নতুন স্মার্টফোন | মঙ্গলবার, আগস্ট 22, 2017 - নিটল ইলেকট্রনিক্স এর শোরুম এখন সিলেটে | সোমবার, আগস্ট 21, 2017 - সীমান্তে অবৈধ টাওয়ার, ১৭ কোটি টাকা জরিমানা গুনতে হবে বাংলালিংককে | সোমবার, আগস্ট 21, 2017 - টাকা ওঠাতে চার্জ বেশি নিচ্ছে বিকাশ | সোমবার, আগস্ট 21, 2017 - এরিকসনে বিনা নোটিশে ৫০ কর্মী ছাঁটাই করায় অবরুদ্ধ শীর্ষ কর্মকর্তারা | সোমবার, আগস্ট 21, 2017 - যে অ্যাপ বাধ্য করবে সন্তানদের সাড়া দিতে | সোমবার, আগস্ট 21, 2017 - মোজিলা ফায়ারফক্সের প্রয়োজনীয় কিছু কীবোর্ড শর্টকাট |
প্রথম পাতা / টেলিকম / বিটিসিএল এমডির ব্যাখ্যা তলব টেলিযোগাযোগ বিভাগের
বিটিসিএল এমডির ব্যাখ্যা তলব টেলিযোগাযোগ বিভাগের

বিটিসিএল এমডির ব্যাখ্যা তলব টেলিযোগাযোগ বিভাগের

btcl-logoএখতিয়ারবহির্ভূতভাবে জনবলসহ মুখ্য অধীক্ষক (আইটিও) পদটি স্থানান্তরের আদেশ জারি করেছেন বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন্স কোম্পানি লিমিটেডের (বিটিসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক। এখতিয়ারবহির্ভূত কার্যক্রম পরিচালনার ব্যাখ্যা চেয়ে এমডির কাছে চিঠি পাঠিয়েছে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ।

গত ৭ জুন জারি করা এক আদেশে আইটিও পদটি জনবলসহ ‘বৈদেশিক টেলিযোগাযোগ অঞ্চল, ঢাকা’ থেকে স্থানান্তর করে গাজীপুর টেলিযোগাযোগ স্টাফ কলেজে নেয়া হয়। বিটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহফুজ উদ্দিন আহমেদ এ আদেশ জারি করেন।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, আইটিও বিটিসিএলের কোনো পদ নয়। এটি বিলুপ্ত বাংলাদেশ টেলিগ্রাফ অ্যান্ড টেলিফোন বোর্ডের (বিটিটিবি) একটি পদ। বর্তমানে পদটি টেলিযোগাযোগ অধিদপ্তরের সাংগঠনিক কাঠামোভুক্ত। পদ স্থানান্তরের ফলে অনুমোদিত সাংগঠনিক কাঠামো পরিবর্তিত হয়। এজন্য কর্তৃপক্ষের নীতিনির্ধারণী সিদ্ধান্ত প্রয়োজন। তবে এ প্রক্রিয়া অনুসরণ না করে এখতিয়ারবহির্ভূতভাবে পদ স্থানান্তরের আদেশ জারি করেন বিটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক।

এখতিয়ারবহির্ভূত এমন কার্যক্রমের জন্য কেন বিটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহফুজ উদ্দিন আহমেদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে না জানতে চেয়ে সম্প্রতি চিঠি দিয়েছে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ। চিঠিতে বলা হয়েছে, অফিস আদেশ বাতিলের জন্য মৌখিকভাবে মাহফুজ উদ্দিনকে নির্দেশনা দেয়া হলেও তা অনুসরণ করেননি তিনি। এটি অনভিপ্রেত।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার বলেন, পরিচালনা পর্ষদের পূর্বানুমোদন ছাড়া এ ধরনের সিদ্ধান্ত গ্রহণের এখতিয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালকের নেই। এখতিয়ারবহির্ভূত এ আদেশ জারি করায় প্রাতিষ্ঠানিক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে টেলিযোগাযোগ অধিদপ্তর গঠনের বিষয়ে অনুমোদন দেয় মন্ত্রিপরিষদ। ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের বিভিন্ন নীতি প্রণয়নে পেশাগত, কারিগরি পরামর্শ ও সহায়তা দেয়ার দায়িত্ব টেলিযোগাযোগ অধিদপ্তরের। এতে ২৩৮টি স্থায়ী পদের মধ্যে প্রথম শ্রেণীর পদ থাকছে ৮১টি। এছাড়া আরো ৭ হাজার ৫৩৬টি পদ থাকবে, যা পর্যায়ক্রমে বিলুপ্ত হবে।

১৯৭৯ সালের একটি অধ্যাদেশের আওতায় বাংলাদেশ টেলিগ্রাফ অ্যান্ড টেলিফোন বোর্ড (বিটিটিবি) গঠন করা হয়। স্বাধীনোত্তর বাংলাদেশে টেলিযোগাযোগ খাতের সব ধরনের কর্মকাণ্ডের নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রায় তিন দশক কাজ করেছে এ বোর্ড। ২০০৮ সালে অধ্যাদেশে দুটি ধারা সংযোজনের মাধ্যমে বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন্স কোম্পানি লিমিটেড (বিটিসিএল) ও বাংলাদেশ সাবমেরিন  কেবল কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল) গঠন করা হয়। এ সংশোধনের মাধ্যমে বিলুপ্ত করা হয় বিটিটিবি।

তবে বিটিটিবিতে কর্মরত বিসিএস (টেলিকম) ক্যাডার কর্মকর্তারা শুরু থেকেই বিটিসিএলে যোগদানের বিরোধিতা করে আসছিলেন। এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আদালতে যান তারা। এর পরিপ্রেক্ষিতে টেলিযোগাযোগ অধিদপ্তর গঠনের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। টেলিযোগাযোগ অধিদপ্তর গঠনের ফলে বিটিটিবির জন্য তৈরি করা ১৯ হাজার ২৯টি পদের মধ্যে ১১ হাজার ২৫৫টি বিলুপ্ত করা হয়।

সুত্র ঃবণিক বার্তা

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top