শিরোনাম

শনিবার, ফেব্রুয়ারী 24, 2018 - গুগল এআরকোর উন্মোচন | শনিবার, ফেব্রুয়ারী 24, 2018 - ছয় ক্যামেরার ফোরজি স্মার্টফোন নকিয়া ৮প্রো | শনিবার, ফেব্রুয়ারী 24, 2018 - উদ্ভাবনের জন্য ‘ওপেন গ্রুপ প্রেসিডেন্ট অ্যাওয়ার্ড ২০১৮’ পেল বিসিসি | শনিবার, ফেব্রুয়ারী 24, 2018 - শাওমির নতুন ফোন এমআই ম্যাক্স ৩ | শনিবার, ফেব্রুয়ারী 24, 2018 - কুমিল্লায় আনুষ্ঠানিকভাবে ৪জি চালু করলো গ্রামীণফোন | শনিবার, ফেব্রুয়ারী 24, 2018 - ট্রাভেল বুকিং এ যুক্ত হলেন সাকিব আল হাসান | শুক্রবার, ফেব্রুয়ারী 23, 2018 - অনলাইন পোর্টালের গুঞ্জনে ক্ষুব্ধ তাসকিন | বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী 22, 2018 - দর্শনার্থী নেই বেসিস সফটএক্সপোতে ! | বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী 22, 2018 - বিসিএস নির্বাচনে চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ | বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী 22, 2018 - ২০১৭ সালে রবি’র লোকসান ২৮০ কোটি টাকা |
প্রথম পাতা / টেলিকম / ভ্যাট ফাঁকির ৯২৪ কোটি টাকা পরিশোধে রবিকে চূড়ান্ত নোটিস
ভ্যাট ফাঁকির ৯২৪ কোটি টাকা পরিশোধে রবিকে চূড়ান্ত নোটিস

ভ্যাট ফাঁকির ৯২৪ কোটি টাকা পরিশোধে রবিকে চূড়ান্ত নোটিস

robi003 copyমোবাইল ফোন অপারেটর রবি অজিয়াটার ভ্যাট (মূল্য সংযোজন কর) ফাঁকির ৯২৪ কোটি টাকা পরিশোধে চূড়ান্ত দাবিনামা জারি করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড। আগামী তিন মাসের মধ্যে প্রতিষ্ঠানটিকে এ অর্থ পরিশোধ করতে হবে। অন্যথায় আলোচ্য সময়ের মধ্যে এনবিআরের ভ্যাট আপিলাত ট্রাইব্যুনালে আপিল বা উচ্চ আদালতে যেতে হবে। এর কোনটিই না করা হলে আরো কিছু আইনি প্রক্রিয়া শেষে এনবিআর চাইলে প্রতিষ্ঠানটির ব্যাংক হিসাব জব্দ করতে পারবে। বৃহত্ করদাতা ইউনিট (এলটিইউ-ভ্যাট) অফিস সূত্র জানিয়েছে, গত রবিবার আলাদা চারটি চিঠিতে এ অর্থ পরিশোধের তাগিদ দেওয়া হয়। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, একটি চিঠিতেই ৭১২ কোটি টাকা পরিশোধের জন্য বলা হয়েছে। সম্প্রতি এনবিআরের একটি দল বিশেষায়িত নিরীক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে রবি’র ওই ফাঁকি উদঘাটন করে। ২০১৩ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৬’র ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটির ভ্যাট প্রদান সংক্রান্ত বিভিন্ন কার্যক্রম পরীক্ষা করা হয়। তাতে দেখা যায়, প্রতিষ্ঠানটির প্রদেয় ভ্যাটের পরিমাণ ৩ হাজার ৫৩৩ কোটি টাকা। কিন্তু পরিশোধ করা হয়েছে ২ হাজার ৯৭৯ কোটি টাকা। অর্থাত্ কোম্পানিটি প্রায় ৫৫৪ কোটি টাকার ভ্যাট কম দিয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটির কাছে রক্ষিত তথ্যভাণ্ডার থেকে পাওয়া তথ্যে ১৫৮ কোটি টাকার উেস ভ্যাট ফাঁকির তথ্যও বের হয়ে আসে। আলোচ্য সময়ে প্রতিষ্ঠানটি সরকারকে প্রদেয় ভ্যাট ৫৫৩ কোটি টাকার স্থলে ৩৯৫ কোটি টাকা দিয়েছে। এছাড়া অবৈধভাবে রেয়াত নেওয়া ১১৬ কোটি টাকাও পরিশোধের জন্য আলাদা একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে এয়ারটেলের সঙ্গে একীভূত (মার্জ) হওয়া এবং তরঙ্গ বরাদ্দের অর্থের (স্পেকট্রাম চার্জ) উপর প্রযোজ্য ভ্যাটের ৯১ কোটি টাকা ও ইন্টারকানেকশন চার্জের উপর প্রযোজ্য ভ্যাট বাবদ দুইটি আলাদা চিঠিতে ৫ কোটি ২২ লাখ টাকাও দাবি করা হয়।

এদিকে ৯২৪ কোটি টাকার এ দাবি অযৌক্তিক বলে মনে করছে মোবাইল অপারেটর রবি। প্রতিষ্ঠানটির এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট শাহেদ আলম ইত্তেফাককে বলেন, এ বিষয়ে যথাযথ ব্যাখ্যা দেওয়ার জন্য সময় না দিয়েই চূড়ান্ত দাবিনামা জারি করেছে এনবিআর, যা আইনের লঙ্ঘন। ৭১২ কোটি টাকা দাবির বিষয়ে তিনি বলেন, ট্রায়াল ব্যালান্সের (হিসাববিজ্ঞানের ভাষায় রেওয়ামিল) ওপর ভিত্তি করে কোন দাবি করা যায় না। অথচ এলটিইউ-ভ্যাট সেই দাবিই করছে। যথাযথ নিরীক্ষক দিয়ে নিরীক্ষা হলে এ দাবি আসতো না। এছাড়া বিটিআরসি’র ভ্যাট নিবন্ধন না থাকায় ভ্যাট দেওয়া যাচ্ছে না। এই সমস্যার সমাধান আমাদের হাতে নয়। আর মার্জার ফি’র ভ্যাট বিষয়ে তিনি বলেন, এটি আদালতে বিচারাধীন। ফলে এর ওপর ভ্যাট দাবি করা যায়না।

অবশ্য এনবিআরের একজন ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তা ইত্তেফাককে বলেন, আমরা উদ্দেশ্যমূলকভাবে কোন দাবি করিনি। যদি সেটাই করা হতো তাহলে আগে একই ধরণের ইস্যুতে আদালতের রায় আমাদের পক্ষে আসত না। এর আগের প্রায় সব রায়ই আমাদের পক্ষে এসেছে। বিটিআরসি’র ভ্যাট নিবন্ধন না থাকার যে যুক্তি দেখানো হয়, তাও খোঁড়া। কেননা এর আগে টুজি ও থ্রিজি’র ফি’র ওপর প্রদেয় ভ্যাট বিটিআরসি’র ভ্যাট নিবন্ধন না থাকা সত্বেও তারা পরিশোধ করেছে। তাহলে এখন পরিশোধ করতে সমস্যা কী? তিনি স্মরণ করিয়ে দেন, এনবিআর এর বিশেষ অডিটে এই ফাঁকির বিষয়টি বের হয়ে এসেছে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top