শিরোনাম

বৃহস্পতিবার, জুন 22, 2017 - পাকিস্তানের টাওয়ার কোম্পানি অধিগ্রহণ করছে ইডটকো | বৃহস্পতিবার, জুন 22, 2017 - নোকিয়া ৯ স্মার্টফোনে ৬জিবি এবং ৮জিবি র‌্যাম | বৃহস্পতিবার, জুন 22, 2017 - চীন বানাল বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতির সুপার কম্পিউটার | বৃহস্পতিবার, জুন 22, 2017 - পদত্যাগ করলেন উবার প্রধান | বৃহস্পতিবার, জুন 22, 2017 - আসছে উড়ন্ত গাড়ি | বৃহস্পতিবার, জুন 22, 2017 - রাজধানীতে ভিক্ষাতে প্রযুক্তির ছোয়া | বৃহস্পতিবার, জুন 22, 2017 - স্মার্টফোন থেকে মুছে যাওয়া ছবি ফিরে পেতে করনীয় | বুধবার, জুন 21, 2017 - সাকিব আল হাসান ও হুয়াওয়ে ভক্তদের চীন সফর | বুধবার, জুন 21, 2017 - নির্ভরযোগ্য ইন্টারনেটের উন্নততর মানের সূচনা | বুধবার, জুন 21, 2017 - জিপিহাউজে টেলিনর ইয়ুথ ফোরাম নিয়ে রোড শো অনুষ্ঠিত |
প্রথম পাতা / সোশ্যাল মিডিয়া / মনের খবর ফেসবুক এর কাছে
মনের খবর ফেসবুক এর কাছে

মনের খবর ফেসবুক এর কাছে

mental-fbফেসবুকে আপনার কার্যক্রম দেখেও অনেক কিছু বুঝে নেওয়া যায়। ফেসবুকে যা লাইক দেনপোস্ট করেন বা  পোস্ট করেন তা দেখে বোঝা যাবে আপনি ডিপ্রেশন বা সিজোফ্রেনিয়াতে ভুগছেন কিনা।

ক্যামব্রিজ ও স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞরা সোশাল মিডিয়ায় মানুষের আচরণ নিয়ে গবেষণা করছেন। তাদের বাস্তব জীবনের আচরণের চেয়ে সোশাল মিডিয়ার আচরণে ব্যক্তিত্ব সম্পর্কে ভালোমতো বিশ্লেষণ করা যায়। এর কারণ মানুষ, বিশেষ করে বাস্তবের চেয়ে অনলাইনেই তাদের আবেগ পরিষ্কারভাবে প্রকাশ করে টিনএজাররা।

ল্যানসেট সাইকিয়াট্রিতে প্রকাশিত গবেষণাপত্রে প্রধান গবেষক ড. বেকি ইনকস্টার বলেন, ফেসবুক দারুণ জনপ্রিয় মাধ্যম। মানুষের মানসিক অবস্থা ও জ্ঞানের পরিধি বিচারে অনেক তথ্য দেয় ফেসবুক। এখান থেকেই বোঝা যায় কেউ বিষণ্নতা বা সিজোফ্রেনিয়ায় ভুগছেন কিনা।

বিশেষজ্ঞদের মতে, ছবি ও পোস্টে মানুষের ক্রমাগত লাইক দেখেই তাদের মানসিকতা সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়। বিশেষ করে এখান থেকেই অফলাইনে তাদের আচরণ কেমন হবে তা পরিষ্কার হয়। বাস্তব জীবনে কোন মানুষটি কেমন তা সোশাল মিডিয়াতেই বোঝা যায়।

এর আগে সোশাল মিডিয়া নিয়ে অনেক গবেষণাই হয়েছে। এসব গবেষণায় মূলত মানুষের ওপর মিডিয়ার প্রভাব নিয়ে বিশ্লেষণ করা হয়েছে।

মনে নেতিবাচক আবেগ দেখা দেয় আনফ্রেন্ড হলে। আবার নিউজ ফিডও তাদের মেজাজ বদলে দিতে পারে। আবার ফেসবুকের মাধ্যমে কেবল মানুষের সমস্যা চিহ্নিত করাই নয়, তার সমাধানও মিলতে পারে।

ড. ইনকস্টার বলেন, ফেসবুকে সম্পর্কের মাধ্যমে সেই মানুষদের উপকার করা সম্ভব যারা আত্মবিশ্বাসের অভাবে ভুগছেন। যারা সবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে জীবন কাটান তাদের সবার মাঝে ফিরিয়ে আনা সম্ভব। যে সকল মানুষ মারাত্মক বিষণ্নতা ও আত্মহত্যা প্রবণতায় ভুগছেন, তাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনা সম্ভব সোশাল মিডিয়ার মাধ্যমেই।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top