শিরোনাম

বুধবার, নভেম্বর 22, 2017 - উবারের ৫ কোটি ৭০ লাখ গ্রাহকের তথ্য চুরি হয়েছিল | বুধবার, নভেম্বর 22, 2017 - ৫০০০মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি সহ বাজারে আসতে চলেছে নোকিয়া’র নতুন ফোন | বুধবার, নভেম্বর 22, 2017 - অনলাইন শপিংয়ে সিম কার্ড | বুধবার, নভেম্বর 22, 2017 - রেকর্ড গড়ছে বিটকয়েন | বুধবার, নভেম্বর 22, 2017 - প্রধানমন্ত্রীর নিকট অ্যাসোসিও ডিজিটাল গভর্নমেন্ট অ্যাওয়ার্ড হস্তান্তর | মঙ্গলবার, নভেম্বর 21, 2017 - ‘ডাকছে থাইল্যান্ড’ নামে মেগা ক্যাম্পেইন রবি’র | মঙ্গলবার, নভেম্বর 21, 2017 - ডিজিটালাইজেশনে রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব্যাংকগুলো এখনো পিছিয়ে | মঙ্গলবার, নভেম্বর 21, 2017 - ভলভোর ২৪,০০০ গাড়ি কিনছে উবার | মঙ্গলবার, নভেম্বর 21, 2017 - হোয়াটসঅ্যাপে নতুন ফিচার | মঙ্গলবার, নভেম্বর 21, 2017 - গ্রাহকদের সেবায় চালু হলো D-Link সার্ভিস সেন্টার |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / ফিচার পোস্ট / মোবাইলে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ জনপ্রিয় হচ্ছে
মোবাইলে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ জনপ্রিয় হচ্ছে

মোবাইলে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ জনপ্রিয় হচ্ছে

দেশে মোবাইলের মাধ্যমে বিদ্যুৎ ও গ্যাস বিল প্রদানের হার বাড়ছে। সময় রক্ষা, লাইন বিড়ম্বনা এবং দূরত্বের কষ্ট এড়াতে নগর এবং পল্লী উভয় অঞ্চলের মানুষ মোবাইল ব্যবহার করে বিল পরিশোধে আগ্রহী হচ্ছেন। নগরসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রথমবারের মতো এ সেবা প্রদান করে গ্রামীনফোন।

২০০৬ সালে চট্টগ্রামে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সঙ্গে মোবাইলে বিদ্যুৎ বিল প্রদান নিয়ে কাজ শুরু করে গ্রামীণফোন। এ সেবার নাম গ্রামীণফোন বিল-পে সার্ভিস। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রথম এবং উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ ছিল গ্রামীণফোনের এ উদ্যোগ। বিল প্রদানে বিড়ম্বনা দূর করা, স্বচ্ছতা নিশ্চিত করা এবং দূরত্বে বাধা দূর করতেই গ্রামীণফোন এ উদ্যোগ গ্রহণ করে। শুরুতেই বেশ জনপ্রিয় হতে থাকে এ সেবা। তরুন থেকে শুরু করে নানা পেশাজীবীর মানুষ এ সেবার মাধ্যমে দ্রুত বিল পরিশোধ করতে পারছে। প্রথমদিন গ্রামীণফোন বিল-পে সার্ভিসে মোট ৭,৬১৬ টাকার ৮টি বিল জমা পড়ে। ২০০৬ সাল থেকে চলতি বছরের মে মাস পর্যন্ত মোট ২৬.৭৯ বিলিয়ন টাকার বিল জমা পড়েছে এ মোবাইল সেবার মাধ্যমে।

GP-BILL-pay
গ্রামীণফোন বিল- পে সেবার মাধ্যমে গ্রামীণফোনের গ্রাহকরা ছাড়াও অন্য অপারেটর ব্যবহারকারীরা এমনকি যাদের মোবাইল নেই তারাও বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করতে পারবেন। গ্রামীণফোন গ্রাহকদের ১২০০ নম্বরে একটি এসএমএস পাঠিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে যে অ্যাকাউন্ট তৈরি হবে সে অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে গ্রাহক যখন খুশি তখনই বিল পরিশোধ করতে পারবেন। এ সুবিধা প্রদানের জন্য সারাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে গ্রামীণফোন বিল-পে/মোবিক্যাশ আউটলেট স্থাপন করা হয়েছে। অন্য অপারেটরের গ্রাহকরা এবং যাদের মোবাইল নেই তারা বিলের কাগজ নিয়ে বিল-পে/মোবিক্যাশ আউটলেটে গিয়ে বিল পরিশোধ করতে পারবেন। বিল পরিশোধের সঙ্গে সঙ্গে গ্রহণ নিশ্চিত করতে ফিরতি এসএমএস চলে আসে। এছাড়া বিল-পে কল সেন্টারে ফোন করে বিল পরিশোধের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়। এজন্য যেকোনো জিপি নম্বর থেকে ১২০০ এবং অন্য অপারেটর থেকে ০১৭১৩২৩৪৫৬৭ নম্বরে ফোন করে নিশ্চিত হওয়া যায়। নিজ মোবাইলে বিল পরিশোধ করলে *৭৭৭# এ ডায়াল করলেই তথ্য পাওয়া যায়। এরজন্য কোনো চার্জও লাগেনা। গ্রাহকরা ইচ্ছে করলে গ্রামীণফোন সেন্টার থেকে পরিশোধিত বিলের স্টেটমেন্ট সংগ্রহ করতে পারেন। এ সেবার সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে ব্যাংক খুঁজতে দূর-দূরান্তে যাওয়ার দরকার নেই। গ্রাহকদের সুবিধার জন্য দেশের প্রতিটি এলাকাতেই গ্রামীণফোন বিল-পে/মোবিক্যাশ আউটলেট স্থাপন করা হয়েছে।
এ সেবার মাধ্যমে লেনদেন প্রক্রিয়া ভুল হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। এছাড়া বিল জমা দেওয়ার জন্য সকাল ৯টা থেকে ১টা পর্যন্ত অপেক্ষা করার ঝামেলা নেই। দিনে ও রাতে যেকোনো সময় বিল-পে/মোবিক্যাশ আউটলেটের মাধ্যমে বিল পরিশোধ করা যায়।
২০০৬ সাল থেকে চলতি বছর পর্যন্ত বিল-পে সেবাগ্রহণকারীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় ১.৫ মিলিয়নে। এ প্রক্রিয়ায় গ্রামীনফোনের সহযোগী হিসাবে কাজ করছে বিদ্যুৎ ও গ্যাস সেবাপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (বিপিডিবি), তিতাস, ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি), ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (ডেসকো), বাখরাবাদ গ্যাস সিস্টেম লিমিটেড (বিজিএসএল), কর্নফুলী গ্যাস লিমিটেড (কেজিএসএল) এবং জালালাবাদ গ্যাস লিমিটেড (জেজিএসএল)। এদের মধ্যে সর্বপ্রথম কাজ শুরু হয় বিপিডিবির সাথে ২০০৬ সালে। এ সেবায় সর্বশেষ যুক্ত হয়েছে জালালাবাদ গ্যাস ২০১১ সালের মার্চ মাসে।
বর্তমানে গ্রাহকরা বিল-পে সেবার আওতায় পিডিবি চট্টগ্রাম, পিডিবি সিলেট, ডেসকো, ডিপিডিসি, বাখরাবাদ গ্যাস, কর্নফুলী গ্যাস, জালালাবাদ গ্যাস, তিতাস গ্যাস এবং চট্টগ্রাম ওয়াসার বিল পরিশোধ করতে পারছেন।
এ সেবার মাধ্যমে বিল পরিশোধ করলে বিল সংক্রান্ত অসুবিধা হলে গ্রামীনফোন গ্রাহকদের সহযোগিতা করছে। শুধু তাই নয় সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করে সমস্যা নিরসনে সহযোগিতা করছে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top