শিরোনাম

মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - বন্ধ হচ্ছে উইকিপিডিয়ার ডেটা ছাড়া তথ্যসেবা | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - বাজারে এলো সিউ কম্প্যাক্ট ডেস্কটপ নেটওয়ার্ক লেবেল প্রিন্টার | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - জুতা পরে হাঁটলেই চার্জ হবে ফোন | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - নতুন সংস্করণে আসুসের গেইমিং ল্যাপটপ | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - টাটা নিয়ে আসছে ড্রাইভারলেস গাড়ি | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - চার মোবাইল অপারেটর পেল ফোরজি লাইসেন্স | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - স্যামসাংয়ের ক্ষতির কারন আইফোন ১০ | সোমবার, ফেব্রুয়ারী 19, 2018 - নতুন কনফিগারেশনে আসছে নোকিয়া ৬ | সোমবার, ফেব্রুয়ারী 19, 2018 - স্যামসাং গ্যালাক্সি জে২ এলো ফোর-জি রূপে | সোমবার, ফেব্রুয়ারী 19, 2018 - এখনই ফোরজি সেবা পাবেনা টেলিটক গ্রাহকরা |
প্রথম পাতা / স্থানীয় খবর / মোবাইল সেবার মাধ্যমে বাংলাদেশ অর্জন করবে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা
মোবাইল সেবার মাধ্যমে বাংলাদেশ অর্জন করবে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা

মোবাইল সেবার মাধ্যমে বাংলাদেশ অর্জন করবে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা

 

 

mobileগত ১৮ জানুয়ারি ২০১৮,প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে “টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নে মোবাইল সেবা সম্প্রসারণ” বিষয়ক একটি গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রাম এবং মোবাইল সেবা প্রদানকারীদের আন্তর্জাতিক সংস্থা জিএসএমএ যৌথভাবে গোলটেবিল বৈঠকটি আয়োজন করেছে । জিএসএমএ-এর এই উদ্যোগটির অর্থায়নে ছিল বাংলাদেশ সরকার, সুইডিশ ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট কো-অপারেশন এজেন্সি (সিডা) এবং যুক্তরাজ্যের ডিপার্টমেন্ট ফর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট (ডিএফআইডি) এবং জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি) এবং মোবাইল অপারেটরদের জাতীয় সংস্থা এমটব।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সরকারের ভিশন ২0২১ রোডম্যাপসহ জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে মোবাইল সেবাপ্রদানকারীদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা তুলে ধরা হয়। বিভিন্ন বিষয়ের মধ্যে আলোচনা করা হয় যে বাণিজ্যিকভাবে টেকসই মোবাইল সেবা প্রদানের মাধ্যমে কীভাবে সমাজের সকল স্তরের মানুষের ক্ষমতায়ন সম্ভব।উদ্ভাবনী ও জনবান্ধব নাগরিক সেবা ব্যবস্থার পরিমণ্ডল তৈরিতে এটুআই প্রোগ্রাম নিরলসভাবে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে কাজ করে চলছে। নাগরিক সেবাগুলোকে কীভাবে জনবান্ধব করা যায় এবং সমাজের সকল ক্ষেত্রে কীভাবে উদ্ভাবন আনা যায় এই বিষয় নিয়ে এটুআই প্রোগ্রাম কাজ করছে। এই প্রেক্ষিতে এটুআই প্রোগ্রাম বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে সাথে নিয়ে উদ্ভাবনী ধারণাকে নাগরিক সেবায় রূপান্তরিত করছে যা কিনা মোবাইলের মাধ্যমে জনগণ ব্যবহার করতে পারবে। এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বাংলাদেশে উদ্ভাবনী মোবাইল সেবা প্রদানবিষয় সকলের সামনে তুলে ধরা হয়েছে।

জিএসএমএ-এর এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চল প্রধান আলাসদাইর গ্রান্ট বলেন, “আজকের এই উদ্যোগটির মাধ্যমে আবারও প্রতিষ্ঠিত হল বাংলাদেশ সরকারের দীর্ঘমেয়াদী উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সহায়তা প্রদানে মোবাইল প্রযুক্তির গুরুত্ব অপরিসীম। সরকার ও মোবাইল সেবা প্রদানকারী সংস্থাগুলো একসাথে কাজ করে ব্যবসায়িক এবং সামাজিক প্রভাবকে বাড়িয়ে তোলার সুযোগ তৈরি করতে পারবে এবং ২0৩0 সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবে।“

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় কৃষি মন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী এমপি, প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক মাননীয় উপদেষ্টা ডঃ তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মূখ্য সমন্বয়ক জনাব আবুল কালাম আজাদ, ইউএনডিপি বাংলাদেশ এর কান্ট্রি ডিরেক্টরজনাব সুদীপ্ত মুখার্জি, জিএসএমএ-এর এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চল প্রধান জনাব অ্যালাসদাইর গ্রান্ট, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) এবং এটুআই প্রোগ্রামের প্রকল্প পরিচালক জনাব কবির বিন আনোয়ার, এবং এটুআই প্রোগ্রামের পলিসি এ্যাডভাইজর জনাব আনীর চোধুরী। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ৪টি শীর্ষ মোবাইল কোম্পানির প্রধান কর্মকর্তাগণ, বিভিন্ন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিবগন ও দপ্তর প্রধানগণ, এবংএটুআই ও জিএসএমএএর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ এবং বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top