শিরোনাম

সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - ডি-লিংক এর স্পেশাল অফার | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - রংতা ব্র্যান্ডের নতুন পিওএস প্রিন্টার | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - নারীর নিরাপত্তা ও শরনার্থীদের শিক্ষা বিষয়ক ধারণা যাচ্ছে ওসলোর টেলিনর ইয়ুথ ফোরামে | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - উদ্বোধনের অপেক্ষায় শেখ হাসিনা সফটওয়্যার পার্ক | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - আপনারই কিছু ভুল হয়তো অজান্তে ফোনের পারফরম্যান্স খারাপ করছে | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - খুলনায় দুইদিনের বেসিক আরডুইনো কর্মশালা অনুষ্ঠিত | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - ঢাকা মহিলা পলিটেকনিককে স্যামসাং এর পক্ষ থেকে অত্যাধুনিক ল্যাব হস্তান্তর  | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - সিডস্টারস ঢাকায় দেশের সেরা স্টার্টআপ সিমেড হেলথ | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - অ্যান্ড্রয়েড ফোনকে মডেম হিসেবে ব্যবহারের উপায় | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - আসছে নকিয়ার আরও দুই ফোন |
প্রথম পাতা / সোশ্যাল মিডিয়া / সমকামী ছবি সরিয়ে ফেললো ফেসবুক
সমকামী ছবি সরিয়ে ফেললো ফেসবুক

সমকামী ছবি সরিয়ে ফেললো ফেসবুক

ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা সংবিধান বিরোধী নয়, সুপ্রিম কোর্টের এই রায় ঘোষণার পরই দেশ জুড়ে ওঠে প্রতিবাদের ঝড়। প্রবাসে থাকা ভারতীয়রাও প্রতিবাদে সরব হয়ে ওঠেন।

M_Id_200628_Facebook

সোমবার শীর্ষ আদালতের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ফেসবুকে একটি ছবি পোস্ট করেন কানাডা প্রবাসী কানওয়ার অনিত সিংহ সাইনি নামে এক শিখ যুবক। ছবিটিতে কানওয়ার অনিতকে তাঁরই এক পুরুষবন্ধুর সঙ্গে চুম্বনরত অবস্থায় দেখা যায়। ছবিটি পোস্ট করার সঙ্গে সঙ্গেই এক হাজার ছাড়িয়েছিল লাইকের সংখ্যা। ছবিটিকে আশি জন শেয়ার করেছিল। তার পরই শুরু হয় সমস্যা।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ অনিতকে একটি মেসেজ পাঠিয়েছিলেন। ছবিটি পোস্ট করে অনিত ফেসবুকের শর্তাবলি লঙ্ঘন করেছেন। তাই অনিতের ফেসবুক প্রোফাইলটি ১২ ঘণ্টার জন্য ব্লক করা হল। এবং পোস্ট করা ছবিটিও ডিলিট করছে ফেসবুক।

দুই প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষ বা নারী স্বেচ্ছায় সমকামী সম্পর্কে জড়ালে তা অপরাধ নয় বলে ২০০৯ সালে রায় দিয়েছিল দিল্লি হাইকোর্ট। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ নম্বর ধারাকে সংবিধান স্বীকৃত মৌলিক অধিকারের বিরোধী বলেছিল তারা। বুধবার সুপ্রিম কোর্ট সেই রায় খারিজ করে বলল, ৩৭৭ ধারা অসাংবিধানিক নয়। অর্থাৎ সমকামিতার উপরে ফের অপরাধের তকমা ফিরে এল।

এর পরই প্রতিবাদের ঝড় ওঠে ফেসবুকে। অনিত কিন্তু থেমে থাকেননি। তিনি তার পর টুইটার ও ইন্সতাগ্রামের মতো সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট বেছে নেন। টুইটারে ওই একই ছবি পোস্ট করেন। এবং ফেসবুকের শর্তাবলির নিন্দায় সরব হন।  সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘আমি গে। আর এর জন্য আমাকে অনেক কথাই শুনতে হয়। আমি যে ছবিটি পোস্ট করেছি তা সুন্দর।’ অনিত কানাডার টরন্টো শহরের ডিজে।

পরে অবশ্য ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, ছবিটি তাঁরা ডিলিট করতে চাননি। ভুলবশত ছবিটি ডিলিট করা হয়ে গিয়েছে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top