শিরোনাম

বুধবার, জুলাই 26, 2017 - শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক এর ঋণ সহায়তা পাবেন বেসিস সদস্যরা | বুধবার, জুলাই 26, 2017 - উন্মুক্ত হলো শাওমি এমআই ৫এক্স | বুধবার, জুলাই 26, 2017 - ক্যাসপারস্কি অ্যান্টিভাইরাস পাওয়া যাবে বিনামূল্যে | বুধবার, জুলাই 26, 2017 - ৩৩ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরাসহ নোকিয়ার নতুন ফোন | বুধবার, জুলাই 26, 2017 - লেনোভোর ট্যাবে নতুন চমক | বুধবার, জুলাই 26, 2017 - উইমেন্স ইনোভেশন ক্যাম্প-২০১৭ এর উদ্বোধন | বুধবার, জুলাই 26, 2017 - সাশ্রয়ীমূল্যে ইন্টারনেট সেবা পেতে আন্তর্জাতিক জোটে যুক্ত হলো বাংলাদেশ | বুধবার, জুলাই 26, 2017 - অপো আকর্ষণীয় কনজ্যুমার অফার ঘোষণা করেছে | বুধবার, জুলাই 26, 2017 - ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরার ফ্ল্যাগশিপ Symphony Z9 | বুধবার, জুলাই 26, 2017 - মাল্টিমিডিয়া কিংডমে হুইনের গ্রাফিক্স ট্যাবলেটে ২৫ শতাংশ ছাড় |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / সরকারকে নিকট দিতে হবে ভিপিএন ব্যবহারকারীদের তথ্য
সরকারকে নিকট দিতে হবে ভিপিএন ব্যবহারকারীদের তথ্য

সরকারকে নিকট দিতে হবে ভিপিএন ব্যবহারকারীদের তথ্য

btrcইন্টারনেট সংশ্লিষ্ট সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক (ভিপিএন) সার্ভিস ব্যবহারকারীদের তথ্য চায় সরকার। এজন্য ভিপিএন ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে স্ট্যাম্প পেপারে অঙ্গীকারনামা ও ভিপিএন রেজিস্ট্রেশন ফর্ম  জমা নিতে এবং প্রতিমাসে তা জমা দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছে বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশন (বিটিআরসি)। তবে ভিপিএন ব্যবহারে নিরাপত্তা ঝুকির কথা উল্লেখ করে বর্তমান নির্দেশনাটি সংশোধন বা পরিবর্তনের সুপারিশ করেছে ন্যাশনাল টেলিকম মনিটরিং সেন্টার (এনএমটিসি)।

এদিকে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার (আইএসপি) প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছ থেকে ভিপিএন ব্যবহারকারীদের তথ্য চেয়ে চিঠিও দিয়েছে সংস্থাটি। সম্প্রতি বিটিআরসির চেয়ারম্যান ড. শাজাহান মাহমুদের সভাপতিত্বে কমিশনের ২০২তম সভায় এ বিষয়ে আলোচনা করা হয়।

সভায় বলা হয়, বিগত কয়েক বছর ব্যবসায়িক এবং দাপ্তরিক কাজে তথ্যপ্রযুক্তির দ্রুত প্রসারের প্রেক্ষিতে ভিপিএন ব্যবহারের চাহিদা অনেক বেড়েছে। এ ক্ষেত্রে ভিপিএন টানেল ব্যবহার প্রসারের জন্য নতুন একটি আদেশপত্র প্রয়োজন মনে করায় বর্তমান টেলিযোগাযোগ আইন ও পলিসির উপর ভিত্তি করে যথাযথ ভিপিএন ব্যবহার প্রসারের জন্য এবং একইসঙ্গে এর অবৈধ ব্যবহার রোধ করতে কর্তৃপক্ষ ২০১৫ সালের ৭ জানুয়ারি ভিপিএনের পূর্বের নির্দেশনাটি বাতিল করে নতুন একটি আদেশপত্র জারি করা হয়।

প্রসঙ্গত, ভিপিএন টানেল ব্যবহারকে বৈধ করতে ২০১০ সালের ৬ জানুয়ারি এক আদেশপত্র জারি করা হয়েছিল। যেখানে ৫১২ কেবিপিএস ব্যান্ডউইথের বেশি প্রতিটি আলাদা ভিপিএন সংযোগ ব্যবহার করার পূর্বে বিটিআরসির অনুমতি নেওয়ার বিধান রাখা হয়।

কমিশনের ২০২তম সভায় আরও জানানো হয়, নতুন নির্দেশনাটিকে পর্যবেক্ষণ করে এনএমটিসি ভিপিএন ব্যবহারে নিরাপত্তা ঝুকির কথা উল্লেখ করে। উল্লেখিত নিরাপত্তা ঝুকি এবং এই ক্ষেত্রে করনীয় নিয়ে ওই বছর ৩০ মার্চ এনএমটিসির সঙ্গে বিটিআরসির একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে বর্তমান নির্দেশনাটি সংশোধন বা পরিবর্তনের সুপারিশ করে এনএমটিসি। প্রযুক্তিগত দিক পর্যালোচনা করে বিটিআরসির অন্যান্য কর্মকর্তাদের নিয়ে বর্তমান নির্দেশনাটি সংশোধনে একটি খসড়া তৈরি করতে বিটিআরসির ইএন্ড ও বিভাগের দুই জন, এসএস বিভাগের ও এলএল বিভাগের একজন করে কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়।

পরবর্তীতে বিটিআরসির ওই কমিটি ২০১৬ সালের ৯ মে আইএসপি প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে এক সভায় আয়োজন করে। যেখানে আইএসপির প্রতিনিধিগণ জানান, ভিপিএন মনিটরিং এর জন্য যথাযথ প্রযুক্তি তাদের কাছে নেই। তাই গ্রাহক প্রান্তে আইনগত বাধ্যবাধকতা বাড়াতে মতামত দেন তারা। এ ছাড়াও এই বিষয়ে আইএসপি প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (আইএসপিএবি) কাছে তাদের মতামত জানতে চাইলে তারা বলেন, অনেক একক গ্রাহক ভিপিএন সেবা গ্রহণ করতে পারে। সেই ক্ষেত্রে তাদের জন্যও ভিপিএন সেবা গ্রহণের সুযোগ রাখার অনুরোধ করে আইএসপিএবি। এসময় বিটিআরসির পূর্বানুমোদনের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ দুইদিনের মধ্যে প্রদান প্রয়োজন, অঙ্গীকারনামার ক্ষেত্রে লেটার হেড প্যাড হলেই হবে এবং গ্রাহকদের পক্ষে যাবতীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা স্থাপন করা সম্ভব নয় বলেও মত প্রদান করে সংগঠনটি। এ ছাড়াও ননকমার্শিয়াল ভয়েস, অডি-ভিডিও কনফারেন্সিং ট্রাফিক ভিপিএন টানেলের মাধ্যমে পরিচালনার সুযোগ চেয়ে বিটিআরসির কাছে অনুরোধ করে আইএসপিএবি।

ওই সভার ১০ দিন পরে ১৯ মে নির্দেশনাটি সংশোধনের লক্ষ্যে এনএমটিসির সঙ্গে একটি সভার আয়োজন করে। ওই সভায় এনএমটিসির প্রতিনিধি হয়ে মেজর খালিদ ইবনাল আসাদ (অব.) বলেন, ভিপিএন সেবার ক্ষেত্রে বিটিআরসির পূর্বানুমোদন গ্রহণ এবং ব্যান্ডউইথের সীমানা নির্ধারণের প্রয়োজন নেই। তবে ভিপিএন এর মাধ্যমে গ্রাহকগণ কোন কোন সার্ভিসের ট্রাফিক স্থানান্তর করছে এবং আইপি অ্যাড্রেস সংক্রান্ত তথ্য এনএমটিসির জানা প্রয়োজন বলে মনে করেন তিনি। এক্ষেত্রে স্ট্যাম্প পেপারে অঙ্গীকারনামা ও ভিপিএন রেজিস্ট্রেশন ফর্ম পূরণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এই জন্য আইএসপি ভিপিএন সার্ভিস উন্মুক্তের জন্য আইআইজি প্রতিষ্ঠানকে অনুরোধ করবে এবং প্রতিমাসে স্ট্যাম্প পেপারে অঙ্গীকারনামা ও ভিপিএন রেজিস্ট্রেশন ফর্ম বিটিআরসিতে জমা দিবে বলেও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এমএনটিসি, আইআইজি ও আইএসপিবির সাথে বিটিআরসির নির্দেশনা সংশোধনী কমিটির কয়েকদফা মতবিনিময় শেষে ভিপিএন সংক্রান্ত বর্তমান নির্দেশনাটি যুগোপযোগি করতে কিছু সুপারিশ প্রদান করেন। এরমধ্যে কর্পোরেট গ্রাহকদের পাশাপাশি ইন্ডিভিজুয়াল গ্রাহকরাও ভিপিএন সেবা পাবে। ভিপিএন ব্যবহারকারী বা সেবা প্রদানকারী বিটিআরসি বা অন্য কোন সংস্থাকে ভিপিএন ট্রাফিক মনিটরিং এর সুযোগ দিবে। আইএসপিসমূহ প্রতিমাসের প্রতিবেদনের পাশাপাশি স্ট্যাম্প পেপারে অঙ্গীকারনামা ও ভিপিএন রেজিস্ট্রেশন ফর্ম বিটিআরসিতে জমা দিবে। আইআইজি সমূহ আইএসপি থেকে লিখিত ছাড়া ভিপিএন টানেল উন্মুক্ত করবে না এবং বিটিআরসি যে কোন সময় উক্ত তথ্য কিংবা ভিপিএন এক্সেস লিস্ট মনিটরিং করতে পারবে। কোন এলইএ বা এলআইএ সংস্থা অনুরোধ করলে বিটিআরসি ভিপিএন ট্রাফিক বন্ধ করবে বলেও নির্দেশনা অন্তর্ভুক্ত করার সুপারিশ করা হয়। এ ছাড়াও কোন প্রতিষ্ঠান শর্ত ভঙ্গ করলে তার বিরুদ্ধে অপারেশনাল এবং আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের কথাও বলা হয়।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top