শিরোনাম

মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের ডিজিটাল পেমেন্ট সার্ভিস ইউপের যাত্রা শুরু | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - হুয়াওয়ে মেট ১০ এ যা আছে | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - শাওমির নতুন ফোন রেডমি ৫এ | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - ফাঁস হয়ে গেল নোকিয়া ৯ এর গোপন সমস্ত তথ্য | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - হ্যাকারদের লক্ষ্য বাংলাদেশসহ অন্যান্য এশিয়ার দেশগুলোর ব্যাংকগুলো | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - এডিএন ইডু সার্ভিসেস এর উদ্দেগে এজাইল বিষয়ক কর্মশলা অনুষ্ঠিত | মঙ্গলবার, অক্টোবর 17, 2017 - প্রথম ডিজিটাল মার্কেটিং অ্যাওয়ার্ডসে গ্রামীণফোনের ব্যাপক সাফল্য | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - গুগলের এই এয়ারপড হেডফোন যখন ট্রান্সলেটর | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - কম্পিউটার গেমের আসক্তিতে হতে পারে ভয়াবহ পরিণতি | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - ওটিসি ড্রাগ বিষয়ে সচেতনতা জরুরি |
প্রথম পাতা / টিউটোরিয়াল / সাবধানে ব্যবহার করুন ফ্রি ওয়াইফাই
সাবধানে ব্যবহার করুন ফ্রি ওয়াইফাই

সাবধানে ব্যবহার করুন ফ্রি ওয়াইফাই

wifiআজকাল জনবহুল বা উন্মুক্ত জায়গাগুলোতে আমরা হরহামেশাই বিনামূল্যের ওয়াইফাই নেটওয়ার্ক ব্যবহার করি। কিন্তু কখনো সতর্ক থাকি কী?উন্মুক্ত ওয়াইফাই দিয়ে প্রতিবেশীরা ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারলেও নিজেদের মোবাইল বা ল্যাপটপে বসে কোন কোন পেইজ ব্রাউজ করছি তা দেখার কোনো উপায় তাদের নেই।

কিন্তু এসব উন্মুক্ত স্থানের বিনামূল্যের ওয়াইফাই দিয়ে ওয়েব পেইজ ব্রাউজ করলে তা সহজেই অন্যরা দেখতে পারে। এতে ব্যাংকিং বা ক্রেডিট কার্ড সংক্রান্ত তথ্য চুরি হওয়ার ভয় থাকে।তাই লাইব্রেরি, এয়ারপোর্ট বা বাসে ফ্রি ওয়াইফাই ব্যবহার করলেও সাইবার নিরাপত্তার ব্যাপারে আমাদের কিছুটা সতর্কতা মেনে চলা উচিত। কিভাবে উন্মুক্ত বা জনবহুল জায়গায় ওয়াইফাই ব্যবহার করা উচিত সেটিও জানা দরকার।

১. গোপনীয় তথ্য 

গান শোনা, সিনেমা দেখা ও ব্লগ পড়া বাদে উন্মুক্ত স্থানের ওয়াইফাই ব্যবহার করে অন্য কোনো কাজ না করাই ভালো। যেমন ফ্রি ওয়াইফাই চালিয়ে কখনওই অনলাইন ব্যাংকিংয়ের কাজ করা উচিত না।

২. উন্মুক্ত নেটওয়ার্ক

সম্পূর্ণভাবে উন্মুক্ত নেটওয়ার্কের বদলে কিছুটা উন্মুক্ত নেটওয়ার্কই ব্যবহার করা উচিত। রেঁস্তোরায় বা এয়ারপোর্টের লাউঞ্জে পাসওয়ার্ড  উন্মুক্ত অবস্থায় থাকলে তা ব্যবহার না করাই ভালো। যেসব জায়গায়  অন্যের কাছ থেকে পাসওয়ার্ড জেনে নিতে হয় সেখানকার ওয়াই-ফাই ব্যবহার করা কিছুটা নিরাপদ।

৩. ফাইল শেয়ারিং

ইন্টারকানেক্টেড অ্যাপগুলোর ফাইল শেয়ারিংয়ের অপশন বন্ধ রাখা উচিত। এতে ব্যক্তিগত ফাইলগুলো নিরাপদ থাকবে।

৪. ওয়াই-ফাই বন্ধ করুন

অনলাইনের কাজ শেষ হয়ে গেলে ওয়াইফাই অফ করে রাখাই ভালো। ফ্রি ওয়াই-ফাই ব্যবহার করেও তা বন্ধ রাখা উচিত কারণ এতে আপনার ডিভাইসের চার্জ দ্রুত ক্ষয় হবে না।

৫. অ্যান্টিভাইরাস

অরক্ষিত উন্মুক্ত নেটওয়ার্ক ব্যবহার করার সময় অ্যান্টিভাইরাস বা অ্যান্টিম্যালওয়্যার সফটওয়্যার ইন্সটল করে নিন। উইন্ডোজের জন্য অ্যাভিরা ব্যবহার করা যেতে পারে।

৬.  ভিপিএন ব্যবহার

ফ্রি ওয়াইফাই দিয়ে ব্যাংকিংয়ের কাজ বা অন্য কোনো কাজ করতে গেলে অবশ্যই ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক (ভিপিএন) ব্যবহার করা উচিত। এটি যেকোনো ধরনের ফিল্টারিং বা ওয়েবসাইট ব্লকিং এড়িয়ে যায়। এর ফলে কোনো ঝুঁকি ছাড়াই ফ্রি ওয়াইফাই ব্যবহার করা যায়।

৭. মোবাইল ডাটা

পাবলিক ওয়াইফাই থেকে দূরে থাকার সবচেয়ে কার্যকর উপায় হলো নিজের রাউটার বা মোবাইল ডাটা ব্যবহার করা। ত্রুটিযুক্ত ফ্রি নেটওয়ার্ক ব্যবহার করার চেয়ে নিজের মোবাইল ডাটা ব্যাবহার করাই ভালো।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top