শিরোনাম

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - বাংলাদেশেই তৈরি হবে সকল ডিজিটাল ডিভাইস : মোস্তাফা জব্বার | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - যে কারণে অনলাইন অ্যাকাউন্টে কঠিন পাসওয়ার্ড দিবেন | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - ফিশিং জালিয়াতির শিকার হচ্ছেন জিমেইল ব্যবহারকারীরা | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - দেশের বাজারে লেনোভোর এইচডি ডিসপ্লের ল্যাপটপ | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - হিটাচি প্রজেক্টরে ম্যাজিক অফার | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - বাংলাদেশে ডি-লিংক কাস্টমার কেয়ার সেন্টারের অংশীদার কম্পিউটার সোর্স | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - অপ্পোর নতুন ২ স্মার্টফোনে গ্রামীণফোনের ফ্রি ইন্টারনেট | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - ওয়েস্টার্ন ডিজিটাল এর পার্টনার মিট | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - ইউটিউবের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ছে পর্নগ্রাফি ভিডিও | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - আসছে স্বল্প মূল্যের অ্যান্ড্রয়েড ওয়ান ফোন |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / ফিচার পোস্ট / স্পেশাল অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারীদের পাশে এয়ারটেল
স্পেশাল অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারীদের পাশে এয়ারটেল

স্পেশাল অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারীদের পাশে এয়ারটেল

airtel-plympic

বাংলাদেশের সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল টেলিকম অপারেটর এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড স্পেশাল অলিম্পিক্স ওয়ার্ল্ড সামার গেমস্ এ বাংলাদেশী অংশগ্রহনকারীদের সহযোগিতা দেওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেডের চিফ সার্ভিস অফিসার রুবাবা দৌলা একটি স্পন্সরশীপ চেক স্পেশাল অলিম্পিক্স বাংলাদেশ এর চেয়ারম্যান ডা: শামীম মাতিন চৌধুরীর হাতে হস্তান্তর করেন। স্পেশাল অলিম্পিক্স বাংলাদেশের হেড অব ডেলিগেশনের ন্যাশনাল ডিরেক্টর ফারুকুল ইসলাম এবং স্পেশাল অলিম্পিক্স বাংলাদেশের ট্রেজারার ও ‘বিউটিফুল মাইন্ড’ এর ভাইস প্রিন্সিপাল মমতাজ সুলতানার উপস্থিতিতে চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানটি বনানীস্থ তাজওয়ার সেন্টারের এয়ারটেল বাংলাদেশের হেড অফিসে অনুষ্ঠিত হয়।

স্পেশাল অলিম্পিক্স ওয়ার্ল্ড সামার গেমস্ এর প্রতিভাবান অংশগ্রহনকারীরা বদ্ধমূলধারনাগত বাধাগুলো অতিক্রম করে বিজয়ী হতে চান। অংশগ্রহনকারীরা বিশ্বের বৈষম্যগুলো দূর করার চ্যালেঞ্জ নিয়ে নিজেদের দক্ষতা প্রমাণে প্রস্তুত। এ বছর প্রতিযোগিতাটি লস্ অ্যাঞ্জেলস এ ২০১৫ সালের ২৫ জুলাই শুরু হয়ে শেষ হবে ২ আগস্ট।

বাংলাদেশ থেকে ৮০ জন প্রতিযোগী বিকেএসপিতে চূড়ান্ত পর্যায়ের প্রশিক্ষণ নিচ্ছে লস অ্যাঞ্জেলসে অংশগ্রহণ করার জন্য। এয়ারটেল মানুষের ক্ষমতায়ন দর্শনে বিশ্বাসী হয়ে এই স্পেশাল অলিম্পিয়ানদের অর্থনৈতিকভাবে সাহায্য করছে। এয়ারটেল এই ৮০ জনের অংশগ্রহণ ও প্রশিক্ষণ বাবদ খরচের একটি অংশ বহন করবে। বাংলাদেশে স্পেশাল অলি¤িপক্স এর শুরু হয় ১৯৯৪ সালে কিন্তু বাংলাদেশী প্রতিযোগীরা স্পেশাল অলি¤িপক্স ওয়ার্ল্ড সামার গেমস্ এ অংশগ্রহণ শুরু করেন ১৯৯৫ সাল থেকে। তারপর থেকে বাংলাদেশ প্রতিটি ওয়ার্ল্ড সামার গেমস্ এ অংশগ্রহণ করেছে। এই সকল টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের অলিম্পিয়ানরা প্রচুর পদক জিতে নিয়েছেন, যার মধ্যে রয়েছে ১০০ এর বেশী স্বর্ণপদক।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top