শিরোনাম

রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - উদ্বোধনের অপেক্ষায় শেখ হাসিনা সফটওয়্যার পার্ক | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - আপনারই কিছু ভুল হয়তো অজান্তে ফোনের পারফরম্যান্স খারাপ করছে | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - খুলনায় দুইদিনের বেসিক আরডুইনো কর্মশালা অনুষ্ঠিত | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - ঢাকা মহিলা পলিটেকনিককে স্যামসাং এর পক্ষ থেকে অত্যাধুনিক ল্যাব হস্তান্তর  | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - সিডস্টারস ঢাকায় দেশের সেরা স্টার্টআপ সিমেড হেলথ | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - অ্যান্ড্রয়েড ফোনকে মডেম হিসেবে ব্যবহারের উপায় | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - আসছে নকিয়ার আরও দুই ফোন | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - ফেসবুকের পাঁচ মজাদার অপশন যা জানেন না অনেকেই | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - প্যাটার্ন লকও নাকি অনিরাপদ! | শনিবার, সেপ্টেম্বর 23, 2017 - ৭-১০ ডিসেম্বর বাংলাদেশে অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডস ২০১৭ |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / ফিচার পোস্ট / স্পেশাল অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারীদের পাশে এয়ারটেল
স্পেশাল অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারীদের পাশে এয়ারটেল

স্পেশাল অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারীদের পাশে এয়ারটেল

airtel-plympic

বাংলাদেশের সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল টেলিকম অপারেটর এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড স্পেশাল অলিম্পিক্স ওয়ার্ল্ড সামার গেমস্ এ বাংলাদেশী অংশগ্রহনকারীদের সহযোগিতা দেওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেডের চিফ সার্ভিস অফিসার রুবাবা দৌলা একটি স্পন্সরশীপ চেক স্পেশাল অলিম্পিক্স বাংলাদেশ এর চেয়ারম্যান ডা: শামীম মাতিন চৌধুরীর হাতে হস্তান্তর করেন। স্পেশাল অলিম্পিক্স বাংলাদেশের হেড অব ডেলিগেশনের ন্যাশনাল ডিরেক্টর ফারুকুল ইসলাম এবং স্পেশাল অলিম্পিক্স বাংলাদেশের ট্রেজারার ও ‘বিউটিফুল মাইন্ড’ এর ভাইস প্রিন্সিপাল মমতাজ সুলতানার উপস্থিতিতে চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানটি বনানীস্থ তাজওয়ার সেন্টারের এয়ারটেল বাংলাদেশের হেড অফিসে অনুষ্ঠিত হয়।

স্পেশাল অলিম্পিক্স ওয়ার্ল্ড সামার গেমস্ এর প্রতিভাবান অংশগ্রহনকারীরা বদ্ধমূলধারনাগত বাধাগুলো অতিক্রম করে বিজয়ী হতে চান। অংশগ্রহনকারীরা বিশ্বের বৈষম্যগুলো দূর করার চ্যালেঞ্জ নিয়ে নিজেদের দক্ষতা প্রমাণে প্রস্তুত। এ বছর প্রতিযোগিতাটি লস্ অ্যাঞ্জেলস এ ২০১৫ সালের ২৫ জুলাই শুরু হয়ে শেষ হবে ২ আগস্ট।

বাংলাদেশ থেকে ৮০ জন প্রতিযোগী বিকেএসপিতে চূড়ান্ত পর্যায়ের প্রশিক্ষণ নিচ্ছে লস অ্যাঞ্জেলসে অংশগ্রহণ করার জন্য। এয়ারটেল মানুষের ক্ষমতায়ন দর্শনে বিশ্বাসী হয়ে এই স্পেশাল অলিম্পিয়ানদের অর্থনৈতিকভাবে সাহায্য করছে। এয়ারটেল এই ৮০ জনের অংশগ্রহণ ও প্রশিক্ষণ বাবদ খরচের একটি অংশ বহন করবে। বাংলাদেশে স্পেশাল অলি¤িপক্স এর শুরু হয় ১৯৯৪ সালে কিন্তু বাংলাদেশী প্রতিযোগীরা স্পেশাল অলি¤িপক্স ওয়ার্ল্ড সামার গেমস্ এ অংশগ্রহণ শুরু করেন ১৯৯৫ সাল থেকে। তারপর থেকে বাংলাদেশ প্রতিটি ওয়ার্ল্ড সামার গেমস্ এ অংশগ্রহণ করেছে। এই সকল টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের অলিম্পিয়ানরা প্রচুর পদক জিতে নিয়েছেন, যার মধ্যে রয়েছে ১০০ এর বেশী স্বর্ণপদক।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top