শিরোনাম

বৃহস্পতিবার, জুলাই 20, 2017 - উইপ্রোর সঙ্গে চুক্তির কথা স্বীকার করল গ্রামীণফোন | বৃহস্পতিবার, জুলাই 20, 2017 - লেনোভোর নতুন আর্কষন – আইডিয়াপ্যাড ৩২০ | বৃহস্পতিবার, জুলাই 20, 2017 - হজ্ব রোমিং প্যাকেজ চালু করল রবি | বৃহস্পতিবার, জুলাই 20, 2017 - অনলাইন প্রশিক্ষণ সেবা চালু করলো ক্রিয়েটিভ-ই-স্কুল | বৃহস্পতিবার, জুলাই 20, 2017 - ল্যাপটপের চার্জ বাড়ানোর উপায় সমূহ | বৃহস্পতিবার, জুলাই 20, 2017 - যেসব তথ্য ফেইসবুকে গোপন রাখা উচিত | বৃহস্পতিবার, জুলাই 20, 2017 - গুগলের মোবাইল সার্চ অ্যাপে পরিবর্তন | বুধবার, জুলাই 19, 2017 - আমারি ঢাকাতে ফ্রাইডে ব্রাঞ্চ | বুধবার, জুলাই 19, 2017 - ঢাকায় বিজনেস ইনোভেশন সামিট ও আইডিয়া চ্যালেঞ্জ | বুধবার, জুলাই 19, 2017 - আসুস নিয়ে এলো বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী গেমিং ল্যাপটপ |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / স্মার্টকার্ড: অর্ধেকের বেশি কার্ড প্রস্তুত হয়নি
স্মার্টকার্ড: অর্ধেকের বেশি কার্ড প্রস্তুত হয়নি

স্মার্টকার্ড: অর্ধেকের বেশি কার্ড প্রস্তুত হয়নি

এজন্য ছাপার মেশিনের অপ্রতুলতার পাশাপাশি যে ব্ল্যাঙ্ককার্ডে ওই স্মার্টকার্ড ছাপানোর কথা, চুক্তি অনুযায়ী নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ফ্রান্সের অবার্থুর টেকনোলজিস থেকে সেই ব্ল্যাঙ্ককার্ডের সব এখনও বুঝে পায়নি জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ।

জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম বলেন, “চুক্তি অনুযায়ী ফ্রান্স থেকে নয় কোটি ব্ল্যাঙ্ককার্ড আসার কথা। চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত এসেছে প্রায় ৫ কোটি ২০ লাখ।

“আমাদের পক্ষ থেকে চলতি বছরের ৩০ জুনের মধ্যে বাকি কার্ড দিতে বলা হয়েছে।এই সময়ের মধ্যে তারা কার্ড দিবে বলে লিখিতও দিয়েছে।”

ফ্রান্সের ওই প্রতিষ্ঠান নির্ধারিত সময়ে কার্ড দিতে ব্যর্থ হলে চুক্তি অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান মহাপরিচালক।

নাগরিকদের উন্নতমানের স্মার্টকার্ডটি করার আগে ফ্রান্স থেকে ‘ব্লাঙ্ককার্ড’ দেশের আসার পর ব্যবহার উপযোগী করার জন্য ‘পারসনালাইজেশন’ করা হয়।

স্মার্টকার্ড প্রস্তুত ও বিতরণের লক্ষ্যে অবার্থুর টেকনোলজিসের সঙ্গে ২০১৪ সালে প্রায় ৮০০ কোটি টাকার চুক্তি করে ইসি। তাদের সঙ্গে চুক্তি ছিল নয় কোটি কার্ডের। দফায় দফায় পিছিয়ে সেই কার্ড বিতরণ শুরু হয় ২০১৬ সালে।

এর মধ্যে আরও সোয়া কোটি ভোটার যুক্ত হয়ে হালনাগাদ তথ্য অনুযায়ী দেশে মোট ভোটারের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ কোটি ১৭ লাখ। তালিকায় বাকিদেরকে দেশীয় ব্যবস্থাপনায় স্মার্টকার্ড দেওয়ার সম্ভাবনা যাচাই-বাছাই করছে নির্বাচন কমিশন-ইসি।

তবে পুরনো নয় কোটি ভোটারের স্মার্টকার্ডের জন্য ছাপার মেশিনের অপ্রতুলতার কথাও বলছেন জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক সাইদুল ইসলাম।

সোমবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশন ভবনে স্মার্টকার্ড প্রকল্পের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, ব্ল্যাঙ্ককার্ডে স্মার্টকার্ড ছাপাতে তাদের মাত্র ১০টি প্রিন্টার মেশিন রয়েছে।

“এ বছরের মধ্যেই সব নাগরিকের হাতে কার্ড পৌঁছে দিতে হলে আমাদের বাড়তি আরও ১৮টি প্রিন্টার মেশিনের প্রয়োজন।”

এ অবস্থায় ১০টি মেশিনেই শিফট সংখ্যা বাড়িয়ে কাজ শুরু হয়েছে বলে জানান সাইদুল ইসলাম।

তিনি বলেন, “আগে ১০টি মেশিনে এক শিফটে কাজ করা হতো। ১৪ ফেব্রুয়ারি থেকে দুই শিফটে প্রিন্ট করা হচ্ছে। এখন সবগুলো দিয়ে তিন শিফটে কাজ করতে হবে।”

এদিকে গত বছর রাজধানীতে স্মার্টকার্ড বিতরণ শুরু হওয়ার পর ঢাকায় এ পর্যন্ত ৫৯ দশমিক ৫৪ শতাংশ স্মার্টকার্ড বিতরণ করা হয়েছে বলে জানান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাইদুল।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন কমিশনের পরিচালক (জনসংযোগ) এস এম আসাদুজ্জামান, এনআইডি উইংয়ের পরিচালক (অপারেশন্স) আবদুল বাতেন, যোগাযোগ কর্মকর্তা মো. আশিকুর রহমান।

সুত্র ঃ বিডিনিউজ

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top