শিরোনাম

বুধবার, ডিসেম্বর 13, 2017 - জেমসক্লিপ এবং অ্যাডকম লিমিটেড-এর সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর | বুধবার, ডিসেম্বর 13, 2017 - টানলেই ইলাস্টিকের মতো বাড়বে এই ব্যাটারি,দাবি গবেষকদের | বুধবার, ডিসেম্বর 13, 2017 - টাকার চিন্তায় ডুবে থাকা মানুষই ফেসবুকে বেশি অ্যাক্টিভ:গবেষণা | বুধবার, ডিসেম্বর 13, 2017 - হোয়াটস অ্যাপে নতুন ফিচার,গ্রুপ থেকেই ব্যক্তিগত মেসেজ | বুধবার, ডিসেম্বর 13, 2017 - পোক ফিচারটি ফিরিয়ে আনছে ফেসবুক | বুধবার, ডিসেম্বর 13, 2017 - গ্রামীণফোনের প্যানেল আলোচনায় ডিজিটাল চট্টগ্রামের রূপরেখা | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - দেশের সবচেয়ে বড় গেমিং প্লাটফর্ম ‘মাইপ্লে’ চালু করলো রবি | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - রাজধানীতে টেকনোর আরও নতুন দুইটি ব্র্যান্ড শপের শুভ উদ্বোধন | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - বৃহস্পতিবার থেকে রাজধানীতে ল্যাপটপ মেলা | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - মোবাইল ইন্টারনেট গতিতে বাংলাদেশের অবস্থান ১২০তম |
প্রথম পাতা / ফ্রিল্যান্সিং / ১০০ ডলার থেকে শুরু শফিউলের
১০০ ডলার থেকে শুরু শফিউলের

১০০ ডলার থেকে শুরু শফিউলের

বিশ্ববিদ্যালয় পড়া অবধি যাঁর কাছে কোনো কম্পিউটার ছিল না, সেই শফিউল আলম এখন দেশের একজন ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা। saifulএকজন সফল ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন শফিউল আলম। তিনি একজন অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপার। ১০০ ডলারের কাজ দিয়ে শুরু করেছিলেন তাঁর ফ্রিল্যান্সার ক্যারিয়ার। এখন নিজেকে একজন উদ্যোক্তা পরিচয় দিতেই পছন্দ তাঁর।

অনলাইন মার্কেটপ্লেস ফ্রিল্যান্সার ডটকম কর্তৃপক্ষ প্রতি সপ্তাহে একজন ফ্রিল্যান্সার সম্পর্কে তাদের ব্লগ সাইটে বিস্তারিত তুলে ধরে। এ সপ্তাহে ফ্রিল্যান্সার ডটকমে বাংলাদেশী ফ্রিল্যান্সার শফিউল আলম সেই মর্যাদা পেয়েছেন। ফ্রিল্যান্সার ডটকম সাইটটিতে প্রায় ৯০ লাখ ফ্রিল্যান্সারের অ্যাকাউন্ট রয়েছে।

শফিউল আলম তাঁর উদ্যোগ ও ফ্রিল্যান্সিং পেশা সম্পর্কে প্রথম আলো ডটকমকে বলেন, ‘শুরুতে চাকরির পেতে মরিয়া চেষ্টা করেছি। ছোটখাটো কিছু চাকরিও করেছি। এর ফাঁকে নিজেকে অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট বিষয়ে দক্ষ করে তুলেছি। দক্ষতা থাকার পরও প্রথম কাজ পেতে অপেক্ষা করতে হয়েছে। ধৈর্য ধরতে হয়েছে। ১০০ ডলারের যে কাজ দিয়ে ব্যক্তিগতভাবে শুরু করেছিলাম, তা এখন প্রাতিষ্ঠানিক রূপ নিয়েছে। এখন আমি নিজেই একজন উদ্যোক্তা।’

ফ্রিল্যান্সিংয়ে আসা প্রসঙ্গে শফিউল আলম বলেন, ‘চেষ্টা ছিল ডাক্তার বা প্রকৌশলী হব, কিন্তু হয়ে গেলাম ফ্রিল্যান্সার। পড়াশোনা করেছি সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে। আশ্চর্যের বিষয় হলো, তখনো কোনো কম্পিউটার ছিল না আমার। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি হওয়ার ছয় মাস পর কম্পিউটার পেয়েছিলাম আমি। কম্পিউটার পাওয়ার পর শখের বসেই শিখতে শুরু করেছিলাম জাভা নামের প্রোগ্রামিং ভাষা। বর্তমানে আমি অ্যান্ড্রয়েড, আইওএস, ব্ল্যাকবেরি, ওয়েবসার্ভিস ও গ্রাফিকস ডেভেলপমেন্ট বিষয়ে দক্ষ।’

ফ্রিল্যান্সিংয়ের উদ্যোগ প্রসঙ্গে শফিউল বলেন, ২০১০ সাল থেকে শখের বসে শুরু করেছিলাম ফ্রিল্যান্সিং। শুরুতে ধৈর্য ধরে কাজ পাওয়ার পরই আমি কয়েকজনকে নিয়ে কাজ করার উদ্যোগ গ্রহণ করি। ফ্রিল্যান্সারে আমার টিমের নাম অ্যাপবিডি।

শফিউল আলম  বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সারদের প্রসঙ্গে জানান, বাংলাদেশে অনেক ফ্রিল্যান্সার আছেন, যাঁরা ভালো কাজ করছেন। আবার অনেকেই এক্ষেত্রে নতুন। যাঁরা দক্ষ ও অভিজ্ঞ তাদের উচিত অন্যদের সহযোগিতা করা। আর নতুন যাঁরা তাদের উচিত দক্ষতা অর্জন করে কাজ শুরু করা। একজন সফল ফ্রিল্যান্সার ও উদ্যোক্তা হিসেবে কাজ করার এবং কর্মসংস্থান তৈরির যে সুযোগ রয়েছে, তা কাজে লাগানো প্রয়োজন। সর্বোপরি ভাল মানুষ হিসেবে নিজেকে গড়ে তোলাটাও গুরুত্বপূর্ণ।

শফিউল আলম বিপ্লবকে নিয়ে ফ্রিল্যান্সারডটকমের ব্লগে প্রকাশিত লেখাটি পড়তে পারেন নিচের লিংক থেকে
http://blog.freelancer.com/featured-freelancers/featured-freelancer-friday-shafiul-alam-biplob/

Comments

comments



One comment

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top