শিরোনাম

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - বাংলাদেশেই তৈরি হবে সকল ডিজিটাল ডিভাইস : মোস্তাফা জব্বার | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - যে কারণে অনলাইন অ্যাকাউন্টে কঠিন পাসওয়ার্ড দিবেন | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - ফিশিং জালিয়াতির শিকার হচ্ছেন জিমেইল ব্যবহারকারীরা | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী 19, 2017 - দেশের বাজারে লেনোভোর এইচডি ডিসপ্লের ল্যাপটপ | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - হিটাচি প্রজেক্টরে ম্যাজিক অফার | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - বাংলাদেশে ডি-লিংক কাস্টমার কেয়ার সেন্টারের অংশীদার কম্পিউটার সোর্স | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - অপ্পোর নতুন ২ স্মার্টফোনে গ্রামীণফোনের ফ্রি ইন্টারনেট | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - ওয়েস্টার্ন ডিজিটাল এর পার্টনার মিট | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - ইউটিউবের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ছে পর্নগ্রাফি ভিডিও | বুধবার, জানুয়ারী 18, 2017 - আসছে স্বল্প মূল্যের অ্যান্ড্রয়েড ওয়ান ফোন |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / ২০২১ সালে তথ্যপ্রযুক্তি পোশাক খাতকেও ছাড়িয়ে যাবে : জয়
২০২১ সালে তথ্যপ্রযুক্তি পোশাক খাতকেও ছাড়িয়ে যাবে : জয়

২০২১ সালে তথ্যপ্রযুক্তি পোশাক খাতকেও ছাড়িয়ে যাবে : জয়

ict-incubetorপ্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, ‘তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বাংলাদেশের অপার সম্ভাবনা রয়েছে। বাংলাদেশের স্টার্টআপগুলোই তার প্রমাণ। এসব স্টার্টআপের মাধ্যমেই দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাত এগিয়ে যাবে এবং বিশ্বের সামনে বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতকে তুলে ধরবে।’ গতকাল রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে জনতা টাওয়ারে আইটি ইনকিউবেটরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ এবং বাংলালিংকের উদ্যোগে এই আইটি ইনকিউবেটরটি চালু করা হয়েছে। আইটি ইনকিউবেটরটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সভাপতিত্বে  গেস্ট অব অনার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইন্টারন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট হাউলিন ঝাও এবং ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হক।

সজিব ওয়াজেদ জয় আরও বলেন, ‘আমার জীবনের সবচেয়ে বড় স্টার্টআপ ডিজিটাল বাংলাদেশ যার শুরুটা হয়েছিল সাত বছর আগে। এখন স্টার্টআপটি অনেকটা পরিণত অবস্থার দিকে যাচ্ছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘তথ্য-প্রযুক্তির যথোপোযুক্ত ব্যবহারের মাধ্যমে বাংলাদেশকে জ্ঞানভিত্তিক সমৃদ্ধ একটি দেশে রূপান্তর করার জন্যই সরকার কাজ করে যাচ্ছে।’ ২০২১ সালের দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাত পোশাক খাতকেও ছাড়িয়ে যাবে বলে এ সময় তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠানে আইটি ইনকিউবেটর উদ্বোধনের পাশাপাশি কানেক্টিং স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার সেরা ১০টি স্টার্টআপের উদ্যোক্তাদের হাতেও পুরস্কার তুলে দেন জয়। পুরস্কারপ্রাপ্ত স্টার্টআপগুলোকে সহায়তা করার বিষয়ে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, ‘বিজয়ী স্টার্টআপগুলোকে তাদের উদ্ভাবনী কর্মকাণ্ড এগিয়ে নিতে সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্² ধরনের সহযোগিতা দেওয়া হবে। জনতা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে চালু হওয়া আইটি ইনকিউবেটরে বাংলালিংকের সহায়তায় এক বছরের জন্য জায়গা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া আন্তর্জাতিক পর্যায়ে যেন তারা গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে যেতে পারে, সে বিষয়েও তাদের সহযোগিতা করা হবে।’

বিজয়ী ১০ স্টার্টআপ ছাড়াও সেরা ৫০টি স্টার্টআপের বাকি স্টার্টআপগুলোকেও তাদের উদ্যোগকে সফল করার জন্য এখানে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ওয়ার্কিং ষ্পেস ব্যবহারের সুযোগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে আইসিটি ডিভিশন। এর পাশাপাশি থাকবে দ্রুতগতির ইন্টারনেট, কনফারেন্স রুম, নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎসহ আরও বিভিন্ন সুবিধা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন আইসিটি সচিব শ্যাম সুন্দর শিকদার, বিটিআরসি চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ, ভিম্পেলকমের চেয়ারম্যান এমিরেটাস এবং কো-ফাউন্ডার অগি কে ফাবেলা, বাংলালিংকের সিইও এরিক অস এবং আইসিটি ডিভিশন, বেসিস, বিসিসি, হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষসহ প্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিরা।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top