শিরোনাম

মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - বাজারে এলো শাওমির নতুন দুই ফোন | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - বিশ্ব বিখ্যাত পাঁচ রাঁধুনি রোবট | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - সনি’র দুর্দান্ত এক আপকামিং ফোনের তথ্য ফাঁস | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - বিসিএস এর ২৬তম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - ‘জিপি লাউঞ্জ’ উদ্বোধন করল গ্রামীণফোন | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - ল্যাপটপ মেলায় আই লাইফের ফ্রী গিফট! | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - শপ আপের নতুন অ্যাড প্ল্যাটফর্মের উদ্বোধন ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - গ্লোবাল ব্র্যান্ড নিয়ে এলো এস সিরিজের নতুন অষ্টম প্রজন্মের নোটবুক | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - অ্যান্ড্রয়েডে আসছে আইফোনের জনপ্রিয় গেম | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - জিপি ওয়াওবক্স ব্যবহারকারীদের জন্য বিশেষ সুবিধা আনল পাঠাও |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / ফিচার পোস্ট / ২ অক্টোবর থেকে স্মার্টকার্ড বিতরণ শুরু
২ অক্টোবর থেকে স্মার্টকার্ড বিতরণ শুরু

২ অক্টোবর থেকে স্মার্টকার্ড বিতরণ শুরু

দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর অবশেষে দেশে স্মার্টকার্ড বা জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) বিতরণ করার জন্য চূড়ান্ত তারিখ ২ অক্টোবর নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওই দিন আনুষ্ঠানিকভাবে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন। কমিশন এর আগে ১ সেপ্টেম্বর থেকেই এই কার্ড বিতরণের প্রস্তুতি গ্রহণ করলেও প্রধানমন্ত্রীর সম্মতির জন্য একমাস পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।  ইসির সিদ্ধান্ত অনুসারে, প্রথম পর্যায়ে ঢাকার দুই সিটি এবং দেশের দুর্যোগপ্রবণ এলাকায় এই কার্ড বিতরণ হবে। ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের প্রতিটি ওয়ার্ড কাউন্সিলরের কার্যালয় থেকে এই কার্ড বিতরণ করা হবে। তবে এই স্মার্ট কার্ড নিতে হলে নাগরিকদের দশ আঙুলের ছাপ ও চোখের মণির ছবি দিতে হবে। এ ছাড়া স্মার্ট কার্ডে বিদ্যমান নম্বর ১০ ডিজিটে পাল্টে যাবে।

নির্বাচন কমিশন (ইসি) সূত্র জানায়,  প্রথম পর্যায়ে ঢাকার দুই সিটির ভোটারদের এই স্মার্ট কার্ড দেওয়ার নীতিগত সিদ্ধান্ত আগেই ছিল। গত ১৭ আগস্ট চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় কিভাবে বিতরণ হবে সে বিষয়ে। এ ছাড়া  ঢাকার পর পরবর্তী পর্যায়গুলোতে কোন কোন এলাকায় এই স্মার্ট কার্ড বিতরণ হবে সে সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়। ইসির জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সুলতানুজ্জান মো. সালেহ উদ্দিন জানান, ‘জাতীয় পরিচয়পত্র করে পরিচয় দিন গর্ব ভরে’ স্লোগান নিয়ে নাগরিকদের হাতে স্মার্টকার্ড তুলে দেওয়ার সব প্রস্তুতি তারা শেষ করেছেন। ইতোমধ্যে ঢাকার ১০টি নির্বাচনী থানায় প্রয়োজনীয় স্মার্টকার্ড পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। কোথায় কীভাবে স্মার্টকার্ড দেওয়া হবে- সে বিষয়ে বিস্তারিত সূচি পরে জানিয়ে দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

nidআগামী ২ অক্টোবর থেকে প্রাথমিকভাবে ২০১৪ ও ২০১৫ সালের ভোটারদের স্মার্টকার্ড দেওয়া হবে। ২০১৪ সালে ভোটার হয়েছিলেন ৪৬ লাখ ৯৫ হাজার ৬৫০ নাগরিক এবং ২০১৫ সালে নতুন ভোটার হয়েছেন ৪৪ লাখ ৩২ হাজার ৯২৭ নাগিরক। এই দুই বছরের মোট ৯১ লাখ ২৮ হাজার ৬২২ জনকে স্মার্টকার্ড দেওয়ার পর ধারাবাহিকভাবে অন্যান্যদের মধ্যেও বিতরণ করা হবে। প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির মাধ্যমে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আনুষ্ঠানিকভাবে এই স্মার্টকার্ড বিতরণ করার কথা রয়েছে।

স্মার্টকার্ডে রয়েছে ২৫ ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। এটি সহজেই কেউ নকল করতে পারবে না। এছাড়া এটি দিয়ে ২৫ ধরনের নাগরিক সেবা পাওয়া যাবে। এগোলোর মধ্যে রয়েছে- আয়করদাতা শনাক্তকরণ নম্বর, ড্রাইভিং ও ট্রেড লাইসেন্স, পাসপোর্ট ও সরকারি সহয়াতা-ভাতা প্রাপ্তি এবং বিমানবন্দরে ই-গেইটের মাধ্যমে আগমন ও বহির্গমন প্রভৃতি। এদিকে ১৮ বছরের নিচের বয়সীদেরও জাতীয় পরিচয়পত্র দেবে ইসি। সেক্ষেত্রে তারা প্রাপ্ত বয়স্ক হলে স্বয়ংক্রিয়ভাবেই ভোটার হয়ে যাবেন। এছাড়া স্মার্টকার্ডটি অনলাইনে ও অফলাইনে দু’ভাবেই ভেরিফিকেশন করা যাবে। এতে নাগরিকের সব তথ্য সংবলিত মাইক্রোচিপস থাকবে।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, এনআইডি শাখা ইতোমধ্যে কমিশন বৈঠকে স্মার্ট কার্ড বিতরণে সব রকম প্রস্তাবনা উত্থাপন করার পর নির্বাচন কমিশন এ বিষয়ে সম্মতিও দিয়েছে। এনআইডি বিতরণের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাচ্ছেন ঢাকার ভোটাররা। পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে দেশের অন্যস্থানেও এই কার্ড বিতরণ করা হবে। বর্তমানে ১০টি মেশিনে কার্ড উৎপাদনের কাজ চলছে। প্রতিটি মেশিন মাসে ৫ লাখ কার্ড উৎপাদনের ক্ষমতা রাখে। বর্তমানে ৯টি মেশিনে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ভাণ্ডারে উৎপাদন চলছে। আর একটি আগারগাঁওয়ের ইসলামী ফাউন্ডেশনে স্থাপিত এনআইডি শাখায় বসানো হয়েছে। স্মার্টকার্ড প্রস্তুত করে দিচ্ছে ফ্রান্সের একটি কোম্পানি। ১৮ মাসের মধ্যে কোম্পানিটি ৯ কোটি এনআইডি প্রস্তুত করে দেবে।

জানা গেছে, স্মার্টকার্ড বিতরণের সময় নাগরিকদের ১০ আঙুলের ছাপ ও চোখের আইরিশের প্রতিচ্ছবিও সংরক্ষণ করা হবে। এক্ষেত্রে প্রতিটি এলাকায় ক্যাম্প স্থাপন করে কার্ড বিতরণ ও চোখের আইরিশের প্রতিচ্ছবি নেবে সংস্থাটি। এজন্য প্রয়োজনীয় মেশিন কেনার বিষয়টিও প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ঢাকার ভোটারদের স্মার্টকার্ড দেওয়ার জন্য ৭৫টি ক্যাম্প করা হবে। যেখানে নাগরিকরা এসে তাদের কার্ড সংগ্রহ করবেন। প্রতিদিন প্রায় দুই লাখ ভোটারকে স্মার্ট কার্ড দেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে এগোচ্ছে নির্বাচন কমিশন।

দেশে বর্তমানে প্রায় ১০ কোটি ভোটার রয়েছেন। এদের মধ্যে ৯ কোটি ১৮ লাখ ভোটার বর্তমান লেমিনেট করা জাতীয় পরিচয়পত্র পেয়েছেন। যাদের সবাইকেই পর্যায়ক্রমে কার্ড সরবরাহ করবে ইসি। প্রতি কার্ডের জন্য খরচ হচ্ছে দুই ডলার। এর মেয়াদ হবে ১০ বছর। এর ফি দিয়ে নতুন করে কার্ড সংগ্রহ করতে হবে।

প্রসঙ্গত, ২০০৮ সালে জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়ার উদ্যোগ নেয় এটিএম শামসুল হুদার নেতৃত্বাধীন বিগত নির্বাচন কমিশন। এরপর ২০১১ সালে বিশ্বব্যাংকের সহায়তায় আইডেন্টিফিকেশন সিস্টেম ফর এনহেন্স অ্যাকসেস টু সার্ভিসেস (আইডিইএ) নামে আরেকটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়। লক্ষ্য ছিল কঠোর নিরাপত্তাবিশিষ্ট উন্নত মানের এনআইডি সরবরাহ করা। এ প্রকল্পের মেয়াদ প্রথমে ২০১৬ সাল পর্যন্ত থাকলেও তা বাড়িয়ে এখন ২০১৭ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত করা হয়েছে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top