শিরোনাম

সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - গুগলের এই এয়ারপড হেডফোন যখন ট্রান্সলেটর | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - কম্পিউটার গেমের আসক্তিতে হতে পারে ভয়াবহ পরিণতি | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - ওটিসি ড্রাগ বিষয়ে সচেতনতা জরুরি | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - ইউরোপ ও আমেরিকায় মেডিক্যাল পড়াশোনা | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - ইউরোপ সাইপ্রাসে পড়াশোনা ও কাজ | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - আসুসের নতুন অষ্টম প্রজন্মের মাদারর্বোড বাজারে | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - ক্লাউড কম্পিউটিং মেলায় অংশ গ্রহন করছে বাংলাদেশের প্রতিনিধি দল | রবিবার, অক্টোবর 15, 2017 - পাতায়া ভ্রমনের স্বপ্ন পূরণ | রবিবার, অক্টোবর 15, 2017 - বৃৃটিশ কাউন্সিল আয়োজিত বই পড়া প্রতিযোগিতার চুড়ান্ত পরীক্ষা সম্পন্ন | রবিবার, অক্টোবর 15, 2017 - ঢাকায় অনুষ্ঠিত হলো ডিজিটাল মার্কেটিং সামিট ও অ্যাওয়ার্ড ২০১৭ |
প্রথম পাতা / অর্থনীতি / ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে কম্পিউটার আমদানি শুল্ক ২% পুনর্বহালের দাবি জানিয়েছে বিসিএস
ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে কম্পিউটার আমদানি শুল্ক ২% পুনর্বহালের দাবি জানিয়েছে বিসিএস

ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে কম্পিউটার আমদানি শুল্ক ২% পুনর্বহালের দাবি জানিয়েছে বিসিএস

_DSC0278
প্রস্তাবিত বাজেটে কম্পিউটার ও কম্পিউটার এক্সেসরিজের আমদানি শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব প্রত্যাহার করে আগের মতো ২ শতাংশ নির্ধারণের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস)। মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটির সাগর-রুনির মিলনায়নে বিসিএসের আয়োজিত ‘জাতীয় বাজেট ২০১৬-১৭ পর্যালোচনা’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি জানান।
বিসিএস সভাপতি আলী আশফাক বলেন, ২০১৬-১৭ অর্থবছরের জন্য সদ্য ঘোষিত বাজেটে কম্পিউটার ও কম্পিউটার যন্ত্রাংশের বিপরীতে আমদানি শুল্ক দুই শতাংশ থেকে পাঁচ শতাংশ বৃদ্ধি করা প্রস্তাব করা হয়েছে। প্রস্তবিত বাজেটে এই বৃদ্ধি আইসিটি পণ্য আমদানিতে সরকারের অগ্রাধিকার খাতের গুরুত্বকে বাধাগ্রস্ত করবে, যা আইটি অবকাঠামো গঠনের পথে মারাত্মক অন্তরায় হবে।
তিনি বলেন, কম্পিউটারের মূল্য বৃদ্ধির পাশাপাশি ডিজিটাল ক্লাসরুম, ল্যাব, ই-সেবা কেন্দ্র, ড্যাটা সেন্টার গড়ে তোলা প্রভৃতি ক্ষেত্রে সরকারের নেয়া উদ্যোগ বাস্তবায়নে ব্যয় অনেকগুণ বৃদ্ধি পাবে।
বিসিএস সভাপতি আরও বলেন, বিদায়ী অর্থ বছরেও ২২ ইঞ্চি পর্যন্ত কম্পিউটার মনিটর আমদানি শুল্ক সুবিধা পেয়ে আসছিল। কিন্তু বর্তমান প্রস্তাবিত বাজেটে এই সুবিধা কমিয়ে ২২ ইঞ্চির স্থলে ১৯ ইঞ্চি নির্ধারণ করা হয়েছে। বর্তমান বিশ্বে ২২ ইঞ্চি বা তার নিচের আকারের মনিটর কোন খ্যাতিমান প্রস্তুতকারক উৎপাদন করে না। আর উৎপাদিত মজুত শেষে আগামীতে ২২ ইঞ্চির নিচে কোনো মনিটর উৎপাদন করা হবে না। তাই স্বাভাবিক নিয়মেই মনিটরের আকার ১৯ ইঞ্চিতে সীমাবদ্ধ না করে এর আকার ২২ ইঞ্চি থেকে বৃদ্ধি করে ২৮ ইঞ্চি নির্ধারণ করা এখন সময়ের দাবি বলেন মনে করে তিনি।
তিনি বলেন, তৃণমূল পর্যায়ে দ্রুত গতির ইন্টারনেট সংযোগ স্থাপন ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে মাইলফলক হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। এই জন্য প্রয়োজনীয় ‘অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল’ এর আমদাতিতে শুল্ক হ্রাসের প্রস্তাবটি বিবেচনার দাবি রাখে। কিন্তু ‘অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল’ এর আমদানি শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে বৃদ্ধি করে ১৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করায় আমরা আশাহত হয়েছি। আমরা এর আমদানি শুল্ক ০ শতাংশ (শূন্য)করার প্রস্তাব করছি।
খুচরা কম্পিউটার ও কাম্পিউটার যন্ত্রাংশ বিক্রির উপর ব্যবসায়ী বা দোকানে ক্ষেত্রে পূর্বে পরিশোধিত প্যাকেজ মূসকের সমপরিমাণ বহাল রাখার জন্য বিসিএসের পক্ষ থেকে প্রস্তাব করা হলেও সদ্য প্রস্তাবিত বাজেটে বৃদ্ধি করে দ্বিগুণ করা হয়েছে। প্যাকেজ মূসককে পূর্বের সমপরিমাণ বহাল রাখা এবং প্যাকেজ মূসককে চূড়ান্ত মূসক হিসেবে গণ্য করার জোর দাবি জানান বিসিএস সংগঠনটির সভাপতি।
সভাপতি বলেন, সরকারি সাহায্য-সহযোগিতা ছাড়া আইসিটি খাতের বেসরকারি পর্যায়ের সামনে এগিয়ে যাওয়া প্রায় অসম্ভব। তাই আইসিটি খাতে বাজেট বরাদ্দ বৃদ্ধির জন্য বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির পক্ষ থেকে বিশেষ দাবি জানাচ্ছি।
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি( বিসিএস) সহ সভাপতি ইউসুফ আলী শামীম, সেক্রেটারি জেনারেল ইঞ্জিনিয়ার সুব্রত সরকার, পরিচালক এ টি শফিক উদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।
মাজহারুল ইসলাম তানিম 

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top