ঢাকা | শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৯ আশ্বিন ১৪২৮ |
৩৩ °সে
|
বাংলা কনভার্টার

প্রথমবারের মতো সর্বস্তরে ‘বাংলা কিউআর’ চালু করলো মাস্টারকার্ড

প্রথমবারের মতো সর্বস্তরে ‘বাংলা কিউআর’ চালু করলো মাস্টারকার্ড
প্রথমবারের মতো সর্বস্তরে ‘বাংলা কিউআর’ চালু করলো মাস্টারকার্ড

মাস্টারকার্ড এবং পেমেন্ট গেটওয়ে সংযোগকারী প্রতিষ্ঠান এসএসএলকমার্জ সম্প্রতি মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড (এমটিবি)-এর সঙ্গে সহযোগিতার ভিত্তিতে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো হোয়াইট লেবেল কুইক রেসপন্স (কিউআর) অ্যাকুয়ারিং প্ল্যাটফর্ম চালু করেছে। ‘হোয়াইট লেবেল কিউআর’ হলো একটি কোডভিত্তিক ইন্টারঅপারেবল পেমেন্ট অ্যাকসেপ্টটেন্স সুল্যশন, যেটি বাংলা কিউআর নেটওয়ার্কের মাধ্যমে অনলাইনে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের অংশগ্রহণের আরো বেশি সুযোগ তৈরি করবে। এর ফলে “লেস ক্যাশ সোসাইটি” গড়ে তোলার ক্ষেত্রে আরো একধাপ এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।

এর আগে, ২০১৯ সালে এমটিবি’র মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাপে বাংলা কিউআর কোড চালু-তে পাইওনিয়ার ভূমিকা পালন করেছিল মাস্টারকার্ড ও এমটিবি। এবার নতুন সুবিধা যোগ হবার ফলে ব্যবহারকারীদের জন্য কিউআর-ভিত্তিক লেনদেন আরো সহজ হবে, যেখানে যেকোনো মাস্টারকার্ড ব্যবহারের মাধ্যমে তারা রিয়েল-টাইম কনটাক্টলেস পেমেন্টের সুযোগ পাবেন।

এসএসএল-এর হোয়াইট লেবেল অ্যাকুয়ারিং সুল্যশনের ‘স্ক্যান টু পে’ অপশনের মাধ্যমে ব্যবসায়ী সহ সারা দেশের মাস্টারকার্ড কার্ডহোল্ডাররা আরো সহজ ও দ্রুততার সঙ্গে কিউআর কোডভিত্তিক লেনদেন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে লেনদেন সম্পন্ন করার জন্য ব্যবহারকারীদেরকে তাদের ব্যাংক অ্যাপে মাস্টারকার্ড কিউআর অপশনে প্রবেশ করে মার্চেন্ট ওয়েবসাইট বা চেকআউট কাউন্টারে প্রদর্শিত নির্দিষ্ট কোডটি স্ক্যান করতে হবে। এরপর তারা যে পরিমাণ অর্থ পরিশোধ করতে চান, সেটি উল্লেখ করলেই লেনদেনটি সম্পন্ন হবে।

এসএসএলকমার্জের ম্যানেজিং ডিরেক্টর (এমডি) সাইফুল ইসলাম বলেন, “এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমরা একটি নতুন অধ্যায় শুরু করলাম। এসএসএলকমার্জ, বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ পেমেন্ট সলিউশন প্রদানকারী হিসেবে, সবসময় দেশে ব্যবসার মানোন্নয়নে সবচেয়ে আধুনিক ডিজিটাল পেমেন্ট সলিউশন দিয়ে আসছে। এই যাত্রায় মাষ্টারকার্ড এবং এমটিবি-কে আমাদের সহযোগী হিসেবে পেয়ে আমি অত্যন্ত আনন্দিত। কিউআর পেমেন্ট একটি আধুনিক ও নিরাপদ ডিজিটাল পেমেন্ট ব্যবস্থা। এটির জন্য বিক্রেতাদের দোকানে আলাদা করে কোন ডিভাইস বা প্রিন্টার রাখতে হবে না, এমনকি বিদ্যুৎ না থাকলেও কোন সমস্যা নেই। শুধুমাত্র একটা কিউআর কোড কাগজে ছাপিয়ে রেখে দিলেই হবে, যা মোবাইল দিয়ে স্ক্যান করে ক্রেতারা পেমেন্ট করতে পারবেন। সামনের দিনগুলোতে একজন ক্রেতা সামান্য টং দোকানের চায়ের বিল অথবা বাসার পাশের মুদি দোকানের বিলও কিউআর স্ক্যান করে দিতে পারবেন। কারণ ক্রেতারা তাদের মোবাইল ফোনে থাকা ব্যাংকের অ্যাপ দিয়ে খুব সহজেই পেমেন্ট করতে পারবেন। তাই ক্রেতার সাথে কোন কার্ড বা নগদ অর্থ না থাকলেও কিউআর পেমেন্ট করতে কোন অসুবিধা হবে না। কিউআর পেমেন্ট সেবার মাধ্যমে সারা দেশে ছড়িয়ে থাকা লাখো ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা, সরবরাহকারী, ডিস্ট্রিবিউটর এবং কারখানা মালিকেরা সরাসরি উপকৃত হবেন। শুধু ঢাকা শহরে নয়; সারা দেশে আমরা এই স্বপ্নটাকে খুব দ্রুত বাস্তবে পরিণত করতে চাই।”

মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের গ্রুপ এমডি এবং সিইও সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, “দিন বদলের এই প্রচেষ্টায় মাস্টারকার্ড ও এসএসএলকমার্জ-কে সহযোগিতা করতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। আমরা বিশ্বাস করি যে, গ্রাহকদের অর্থ লেনদেনের সক্ষমতা বৃদ্ধির মাধ্যমে এই উদ্যোগ সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশের লক্ষ্য পূরণে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।”

মাস্টারকার্ড বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার সৈয়দ মোহাম্মদ কামাল বলেন, “এসএসএলকমার্জ ও মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের সঙ্গে পার্টনারশীপের ভিত্তিতে কিউআর-ভিত্তিক অ্যাকসেপ্টটেন্স সুল্যশন চালু করতে পেরে মাস্টারকার্ড আনন্দিত। এটি কার্ডহোল্ডারদের দৈনন্দিন লেনদেনকে আরো সহজ ও দ্রুততর করবে। বাংলাদেশের অগ্রযাত্রার বিশ্বস্ত পার্টনার হিসেবে মাস্টারকার্ড আগামীতেও প্রযুক্তিনির্ভর সমাধান প্রদানের পাশাপাশি আরো সহজ, স্মার্ট ও নিরাপদ ‘কনটাক্টলেস পেমেন্ট’ সুবিধা নিশ্চিত করতে কাজ করবে।”

বাংলা কিউআর,মাস্টারকার্ড
আরও পড়ুন -
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়