ঢাকা | মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯ |
৩১ °সে
|
বাংলা কনভার্টার
walton

হোম অ্যাপ্লায়েন্সে এলজির নতুন দুই উদ্ভাবন

হোম অ্যাপ্লায়েন্সে এলজির নতুন দুই উদ্ভাবন
হোম অ্যাপ্লায়েন্সে এলজির নতুন দুই উদ্ভাবন

প্রতিদিনের জীবনকে আরও সহজ ও সুন্দর করতে এলজি বাজারে নিয়ে এল দুটি নতুন হোম অ্যাপ্লায়েন্স প্রোডাক্ট—এলজি ইনস্টাভিউ ডোর-ইন-ডোর রেফ্রিজারেটর ও এলজি ওলেড ইভো টিভি। ‘দ্য বেটার লাইফ ইউ ডিজার্ভ’ শীর্ষক ইভেন্টে প্রোডাক্ট দুটি উন্মোচন করা হয়। মুমতাহিনা চৌধুরী টয়ার সঞ্চালনায় গত সোমবার (২৮ মার্চ) প্রথম আলোর ফেসবুক পেজে লাইভ প্রিমিয়ারটি প্রচারিত হয়। যেখানে উপস্থিত ছিলেন এলজি ইলেকট্রনিকস বাংলাদেশ শাখার ম্যানেজিং ডিরেক্টর পিটার কো এবং এলজি ইলেকট্রনিকস বাংলাদেশ শাখার হেড অব কনজ্যুমার ইলেকট্রনিকস আশিকুল ইসলাম।

নক করেই দেখুন ফ্রিজের ভেতরে

ফ্রিজের দরজা না খুলে ভেতরের স্টোরেজ দেখাবে এলজির নতুন ইনস্টাভিউ ডোর-ইন-ডোর রেফ্রিজারেটর। ফ্রিজের ডোরে একটি মসৃণ কাচের প্যানেল রয়েছে, যেখানে মাত্র দুবার নক করলেই বাইরে থেকে দেখতে পাবেন ভেতরের সবকিছু। এই ফিচারের সবচেয়ে ভালো দিক হচ্ছে ডোরে দুবার নক করামাত্রই লাইট জ্বলে উঠবে এবং ইজি অ্যাকসেস কম্পার্টমেন্টের বাইরে থেকে ফ্রিজের ভেতরের অংশটা দেখা যাবে ডোর না খুলেই। এর ফলে ঠান্ডা বাতাস বারবার বের হয়ে যাবে না এবং খাবার বা ড্রিংকস অনেক সময় পর্যন্ত ভালো থাকবে।

ফ্রিজটির ইজি অ্যাকসেস কম্পার্টমেন্টের বাঁ পাশেই ইউভি ন্যানোটেকনোলজিসংযুক্ত একটি ফিল্টারড ওয়াটার ডিসপেনসার রয়েছে। এই ইউভি প্রযুক্তি ওয়াটার নজেল থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ৯৯.৯৯% জীবাণু দূর করে। সাধারণত ওয়াটার ডিসপেনসিং নজেল আনপ্রোটেকটেড থাকে, তাই জীবাণুর সংক্রমণের আশঙ্কা থেকে যায়। কিন্তু এই বিশেষ টেকনোলজি প্রতি ঘণ্টায় ১০ মিনিট ধরে এই নজেল রিফ্রেশ করে, অর্থাৎ দিনে ২৪ বার পর্যন্ত কাজ করে। তাই ওয়াটার সাপ্লাই থাকে একদম ব্যাকটেরিয়ামুক্ত!

ইউভি ন্যানোটেকনোলজির মতো আরেকটি বিশেষ ফিচার হচ্ছে হাইজিন ফ্রেশ+ টেকনোলজি। যেটা শুধু ভেতরের ব্যাকটেরিয়া ৯৯.৯৯৯% পর্যন্ত দূরই করে না, ফ্রিজের ভেতরে বাজে গন্ধ তৈরি হওয়াও প্রতিরোধ করে। এর ফলে আপনার স্টোর করা খাবারগুলো তাজা থাকবে অনেক দিন পর্যন্ত। ফ্রিজটিতে ডুয়াল ইনভার্টার কম্প্রেসর থাকার কারণে বিদ্যুৎ সাশ্রয় হয় ৩২% পর্যন্ত।

টিভি দেখার এক নতুন অভিজ্ঞতা

স্লিম ডিজাইন আর আধুনিক প্রযুক্তির সেরা যুগলবন্দী এলজি ওলেড ইভো টিভি। এ টিভিতে থাকা সেলফ-লিট ফিচারটি একে অন্য সব এলইডি টিভি থেকে আলাদা করে। সাধারণ এলইডি টিভিতে স্ক্রিনের পেছনে অনেকগুলো ব্যাকলাইট থাকে, যার ফলে টিভির প্রস্থ বেড়ে যায়। কিন্তু এলজি ওলেড টিভিতে ব্যাকলাইটের পরিবর্তে ১০ লাখের বেশি সেলফ-লিট পিক্সেলস থাকে, যেটা নিশ্চিত করে একদম পারফেক্ট ব্ল্যাক ও সবচেয়ে নিখুঁত কালার। আর এ জন্যই এলজি ওলেড ইভো টিভি অনেক বেশি স্লিম।

দৃশ্য দেখা বা শব্দ শোনায় নতুন মাত্রা যোগ করতে এতে ব্যবহার করা হয়েছে ডলবির ভিশন আইকিউ ও অ্যাটমস। ভিশন আইকিউ যেকোনো কনটেন্টের ধরন ও আলোর কন্ডিশন অনুযায়ী স্ক্রিনের ব্রাইটনেস, কালার ও কনট্রাস্ট স্বয়ংক্রিয়ভাবে মানিয়ে নেয়। আর ডলবি অ্যাটমস দেয় ইমার্সিভ অডিওর অভিজ্ঞতা। শুধু দেখা বা শোনার দুর্দান্ত অভিজ্ঞতাই নয়, এই টিভিতে চোখের নিরাপত্তার বিষয়টিতেও দেওয়া হয়েছে সমান মনোযোগ। বিশ্বের প্রথম টিভি হিসেবে এলজি ওলেড ইভো টিভিতে ব্যবহার করা হয়েছে আই সেইফ ডিসপ্লে, যা টিভি দেখার সময় আপনার চোখের কোনো সমস্যা করে না এবং নীল আলোর নিঃসরণ কমায় ৫০ শতাংশ পর্যন্ত।

মুভি বা খেলা দেখাই শেষ নয়, গেমিংয়ের জন্যও এলজি ওলেড ইভো টিভি হতে পারে একটি ভালো পছন্দ। গেমিংয়ের দুর্দান্ত অভিজ্ঞতা দিতে এলজি এনভিডিয়া ও এএমডির সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করছে। এলজি ওলেড টিভিতে এনভিডিয়া জি-সিংক ও এএমডি ফ্রিসিংক যুক্ত আছে, এর ফলে যেকোনো গেমিং করা যাবে কোনো ল্যাগ বা লেটেন্সি ছাড়াই।

প্রযুক্তিনির্ভরতার যুগে স্মার্ট হোম অ্যাপ্লায়েন্স এখন এক প্রয়োজনীয়তার নাম। এলজি বরাবরই জীবনকে আরও সহজ করতে নতুন নতুন উদ্ভাবন নিয়ে কাজ করে। সেই ধারাবাহিকতা বজায় রেখেই এবার বাজারে নিয়ে এসেছে এলজি ইনস্টাভিউ ডোর-ইন-ডোর রেফ্রিজারেটর ও এলজি ওলেড ইভো টিভি।

হোম অ্যাপ্লায়েন্স,এলজি
আরও পড়ুন -
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়