ঢাকা | বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯ |
২০ °সে
|
বাংলা কনভার্টার
walton

জানুয়ারী ২৬ - ২৮ ঢাকায় ডিজিটাল বাংলাদেশ মেলা

আইএসপিএবি এর আয়োজনে ইউনিভার্সিটি অফ স্কলার্স-এ নিরাপদ ইন্টারনেট নিয়ে ক্যাম্পাস এক্টিভেশন অনুষ্ঠিত

আইএসপিএবি এর আয়োজনে ইউনিভার্সিটি অফ স্কলার্স-এ নিরাপদ ইন্টারনেট নিয়ে ক্যাম্পাস এক্টিভেশন অনুষ্ঠিত
আইএসপিএবি এর আয়োজনে ইউনিভার্সিটি অফ স্কলার্স-এ নিরাপদ ইন্টারনেট নিয়ে ক্যাম্পাস এক্টিভেশন অনুষ্ঠিত

ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার্স অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) এর আয়োজনে ইউনিভার্সিটি অফ স্কলার্স, বনানী, ঢাকায় অনুষ্ঠিত হলো "Safe Internet for Digital Bangladesh And Campus Activation for Digital Mela" এর উপর সচেতনামূলক অনুষ্ঠান। গত ১৬ই জানুয়ারি বুধবার বিকাল ৫ টায় আইএসপিএবি এর আয়োজনে ইউনিভার্সিটি অব স্কলার্স এর অডিটোরিয়ামে এই সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান এর আয়োজন করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে ইউনিভার্সিটির প্রায় এক হাজার শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। সচেতনতামূলক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইকবাল বাহার জাহিদ, নিজের বলার মত একটি গল্প ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও ডাইরেক্টর অপটিম্যাক্স কমিউনিকেশন লিমিটেড।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, আমি সৌভাগ্যবান যে ইউনিভার্সিটি অব স্কলার্সের ক্যাম্পাসে এসে অডিটরিয়াম ভর্তি ছাত্র-ছাত্রী পেয়েছি। তিনি ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াশোনার সময়ই নিজেকে চাকরির জন্য যোগ্য করে তোলার পাশাপাশি নিজেকে উদ্যোক্তা হিসাবে গড়ে তোলার প্রস্তুতি নিতে হবে। তিনি বলেন আমরা স্বপ্ন দেখি কিন্তু স্বপ্ন বাস্তবায়নের চেষ্টা করি না বা চেষ্টা করার মত সক্ষমতা বা দক্ষতা আমাদের থাকে না। তিনি উল্লেখ করেন যে, করোনা প্রাদূর্ভাবের পর থেকেই দেশে চাকুরির বাজার ভীষণ মন্দা তাই চাকরি প্রাপ্তির উদ্যোগের সাথে নিজেকে উদ্যোক্তা হিসাবে গড়ে তুললে আর চাকরির জন্য কারো কাছে ধরনা দিতে হবে না। তাই জীবনে এমন কিছু করা দরকার যাতে, প্রত্যেকরই একটা নিজের বলার মত একটা গল্প থাকে। তিনি নিরাপদ ব্যবহারের উপর গুরুত্ব আরোপ করেন এবং ইন্টারনেটের খারাপ দিকগুলো এড়িয়ে ভালো দিকগুলো গ্রহণ করার মাধ্যমে অনেক বড় কাজ করা যায়। তাই সকলকে ইন্টারনেটের সৎ ব্যবহার করার উপর তাগিদ দেন।

বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, আইএসপিএবি'র প্রেসিডেন্ট মোঃ ইমদাদুল হক, ডাইরেক্টর এবং সিওও, অপটিম্যাক্স কমিউনিকেশনস লিমিটেড । তিনি তার বক্তব্যে উপস্থিত সকল ছাত্র-ছাত্রীদের আসন্ন ডিজিটাল বাংলাদেশ মেলায-২০২৩ তে উপস্থিত থাকার জন্য আমন্ত্রণ জানান এবং বলেন ডিজিটাল বাংলাদেশ মেলায় বাংলাদেশে ব্যবহৃত সমস্ত প্রযুক্তির ডিসপ্লে করা হবে যেমন, ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট,৫জি হার্ডওয়্যার, তথ্যপ্রযুক্তি ইন্ডাস্ট্রিজের আধুনিক যন্ত্রপাতিও থাকবে এবং স্কুল কলেজ ও ইউনিভার্সিটি থেকে বিভিন্ন প্রজেক্ট নিয়ে কাজ করে তাদের জন্য এই মেলায় অংশগ্রহণের জন্য বিনামূল্যে স্টল দেওয়া হবে। তিনি ২৬, ২৭ এবং ২৮ তারিখের ডিজিটাল মেলায় সকলকে উপস্থিত থেকে প্রযুক্তির সাথে পরিচিত হওয়ার জন্য আহ্বান জানান। তিনি বলেন আমাদের দেশের ইন্ডাস্ট্রিগুলোতে যে ধরনের জনবল আমাদের প্রয়োজন আর ইউনিভার্সিটিতে যে সকল কারিকুলাম শেখানো হয় তার ভিতরে একটা বিস্তর ফারাক থেকে যায়। তিনি উদাহরণ স্বরূপ বলেন, আমাদের আইএসপি ইন্ডাস্ট্রিতে অনেক গ্রাজুয়েটের পদ খালি আছে কিন্তু আমরা সেখানে যোগ্য লোক খুঁজে পাই না। তাই তিনি ছাত্র-ছাত্রীদের ইন্টার্ন ট্রেনিং করার জন্য আইএসপি ইন্ডাস্ট্রিগুলোকে বেছে নেওয়ার জন্য তাগিদ দেন। তিনি আরো বলেন, ইন্ডাস্ট্রিগুলোতে মেয়েদের সংখ্যা খুবই নগণ্য। তিনি মেয়েদেরকে এ পেশায় এগিয়ে আসার জন্য আহ্বান জানান। তিনি আরো বলেন আমরা দেশকে ইতিমধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশে পরিণত করেছি কিন্তু স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের জন্য আমাদের দক্ষ জনবল দরকার হবে। ভবিষ্যতে আমাদের ইন্ডাস্ট্রি গুলোতে অনেক পদ পূরণের দরকার হবে এবং সেগুলো আমাদের ছেলেমেয়েদের মধ্য থেকেই চাকরি দেওয়া হবে ‌। সুতরাং সেজন্য নিজেদেরকে যোগ্য করে তোলার প্রয়োজনীয়তার উপরে তিনি গুরুত্ব আরোপ করেন। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টির পরিচালক, আব্দুল হাসিব সিদ্দিকী, ইউনিভার্সিটি অব স্কলার্সের রেজিস্ট্রার ক্যাপ্টেন মোবাশ্বর আলী খন্দকার ও বিভিন্ন ফ্যাকাল্টির হেড ও অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ইউনিভার্সিটি অব স্কলার্সের ট্রেজারার ।

ডিজিটাল বাংলাদেশ মেলা,ডিজিটাল বাংলাদেশ মেলা ২০২৩,ডিজিটাল বাংলাদেশ,আইএসপিএবি,নিরাপদ ইন্টারনেট,ক্যাম্পাস এক্টিভেশন
আরও পড়ুন -
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়