শিরোনাম

সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - গুগলের এই এয়ারপড হেডফোন যখন ট্রান্সলেটর | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - কম্পিউটার গেমের আসক্তিতে হতে পারে ভয়াবহ পরিণতি | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - ওটিসি ড্রাগ বিষয়ে সচেতনতা জরুরি | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - ইউরোপ ও আমেরিকায় মেডিক্যাল পড়াশোনা | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - ইউরোপ সাইপ্রাসে পড়াশোনা ও কাজ | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - আসুসের নতুন অষ্টম প্রজন্মের মাদারর্বোড বাজারে | সোমবার, অক্টোবর 16, 2017 - ক্লাউড কম্পিউটিং মেলায় অংশ গ্রহন করছে বাংলাদেশের প্রতিনিধি দল | রবিবার, অক্টোবর 15, 2017 - পাতায়া ভ্রমনের স্বপ্ন পূরণ | রবিবার, অক্টোবর 15, 2017 - বৃৃটিশ কাউন্সিল আয়োজিত বই পড়া প্রতিযোগিতার চুড়ান্ত পরীক্ষা সম্পন্ন | রবিবার, অক্টোবর 15, 2017 - ঢাকায় অনুষ্ঠিত হলো ডিজিটাল মার্কেটিং সামিট ও অ্যাওয়ার্ড ২০১৭ |
প্রথম পাতা / সোশ্যাল মিডিয়া / চীন সরকারের ব্লক লিস্টে যুক্ত হলো হোয়াটসঅ্যাপ
চীন সরকারের ব্লক লিস্টে যুক্ত হলো হোয়াটসঅ্যাপ

চীন সরকারের ব্লক লিস্টে যুক্ত হলো হোয়াটসঅ্যাপ

whatsapচীনে নিষিদ্ধ হওয়া টেক জায়ান্ট কোম্পানিগুলোর তালিকা দিন দিন শুধু বড়ই হচ্ছে। ফেইসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম ও গুগলের পর এবার চীন সরকারের ব্লক লিস্টে যুক্ত হলো ইনস্ট্যান্ট ম্যাসেজিং সার্ভিস হোয়াটসঅ্যাপের নাম।সেন্সরশিপ পর্যবেক্ষণকারী একটি সংস্থা দ্য ওপেন অবসাভেটরি অব নেটওয়ার্ক ইন্টারেফেরেন্স (ওওএনআই) জানিয়েছে, সোমবার রাতে চাইনিজ ইন্টারনেট সার্ভিস হোয়াসঅ্যাপে প্রবেশের পথ বন্ধ করে দেয়। গত মঙ্গলবার থেকেই হোয়াটসঅ্যাপ ব্লক করার প্রক্রিয়া শুরু হয়।

আগামী মাসে দেশটির ক্ষমতাসীন দল কমিউনিস্ট পার্টির ১৯তম ন্যাশনাল কংগ্রেস বৈঠক হওয়ার কথা। প্রতি পাঁচ বছরে এক বার করে এই বৈঠকের আয়োজন করা হয়। সরকারের শীর্ষ কর্মকর্তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেই মূলত এনক্রিপ্টেট ম্যাসেজিং সার্ভিসটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।গত কয়েক মাস ধরেই হোয়াটসঅ্যাপ নিজেদের কার্যক্রম চালাতে গিয়ে চীন সরকারের বাধার মুখে পড়েছে। যদিও চীনে তাদের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে কখনও মুখ খোলেনি হোয়াসটস অ্যাপ।

চীনের কিছু ব্যবহারকারী ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্কস (ভিপিএন) কিংবা অন্যান্য কোনো টুল ব্যবহার করে ছদ্মবেশী ইন্টারনেট ট্রাফিকের মাধ্যমে হোয়াটসঅ্যাপে ঢুকলেও চীন সরকার চলতি বছর থেকে ভিপিএন সনাক্ত করার প্রক্রিয়া চালু করেছে।চলতি মাসের প্রথম দিকে চীনের সবচেয়ে জনপ্রিয় ম্যাসেজিং সার্ভিস উইচ্যাট জানিয়েছে, প্রয়োজনে তারা সরকারের হাতে ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য সরবরাহ করবে।

সম্প্রতি চীন সরকার ব্যবহারকারীদের অনলাইন কার্যক্রম খুব কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা শুরু করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় চীন সরকারের সেন্সরশিপ নীতিমালার আওতায় বাধাগ্রস্ত হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর কার্যক্রম।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top