শিরোনাম

মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - বন্ধ হচ্ছে উইকিপিডিয়ার ডেটা ছাড়া তথ্যসেবা | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - বাজারে এলো সিউ কম্প্যাক্ট ডেস্কটপ নেটওয়ার্ক লেবেল প্রিন্টার | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - জুতা পরে হাঁটলেই চার্জ হবে ফোন | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - নতুন সংস্করণে আসুসের গেইমিং ল্যাপটপ | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - টাটা নিয়ে আসছে ড্রাইভারলেস গাড়ি | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - চার মোবাইল অপারেটর পেল ফোরজি লাইসেন্স | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 20, 2018 - স্যামসাংয়ের ক্ষতির কারন আইফোন ১০ | সোমবার, ফেব্রুয়ারী 19, 2018 - নতুন কনফিগারেশনে আসছে নোকিয়া ৬ | সোমবার, ফেব্রুয়ারী 19, 2018 - স্যামসাং গ্যালাক্সি জে২ এলো ফোর-জি রূপে | সোমবার, ফেব্রুয়ারী 19, 2018 - এখনই ফোরজি সেবা পাবেনা টেলিটক গ্রাহকরা |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / ফিচার পোস্ট / অনুমোদন পেলো অ্যাপভিত্তিক পরিবহন সেবা
অনুমোদন পেলো অ্যাপভিত্তিক পরিবহন সেবা

অনুমোদন পেলো অ্যাপভিত্তিক পরিবহন সেবা

uberঅ্যাপভিত্তিক পরিবহন সেবার নীতিমালার অনুমোদন দিয়েছে সরকার।সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে ‘রাইড শেয়ারিং নীতিমালা-২০১৭’ এর খসড়ার অনুমোদন দেয়া হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দেশে ২০১৬ সালের ২২ নভেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে অ্যাপ মাধ্যমে ট্যাক্সি সেবাদানকারী কোম্পানি উবার যাত্রা শুরু করে। বিশ্বসেরা ক্রিকেট অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান প্রথম যাত্রী হয়ে ঢাকায় উবার ট্যাক্সির চাকা ঘোরে।আর এর দু’দিন পর ২৪ নভেম্বর দেশে এর কার্যক্রমকে অবৈধ ঘোষণা করে নিষেধাজ্ঞা দেয় বিআরটিএ।

নিষেধাজ্ঞার বিজ্ঞপ্তিতে বিআরটিএ তথা সরকারের অনুমোদন ছাড়া এই অনলাইন ট্যাক্সি সার্ভিস চালু করার কারণে সতর্ক করে দিয়ে এ হতে বিরত থাকতে বলা হয়। না হলে আইনানুগ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা বলে বিআরটিএ।

প্রযুক্তি মাধ্যমে এই সেবাকে সাধারণ মানুষ সাদরে গ্রহণ করায় বিআরটিএ’র এই সিদ্ধান্ত নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা হয়। এর পরই এই সেবা নীতিমালার আওতায় আনতে কাজ শুরু করে সরকার।

আর উবারের জনপ্রিয়তায় ঢাকায় অ্যাপ মাধ্যমে চলো, পাঠাও, আমার রাইড, মুভ, ইজিয়ারসহ অনেকগুলো পরিবহন সেবাই চলতে শুরু করে।

নীতিমালায় যে ১১টি শর্ত দেওয়া হয়েছে সেগুলো হলো:

১. কোম্পানিকে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি(বিআরটিএ) থেকে তালিকাভুক্তির সনদ নিতে হবে।

২. অ্যাপসের মালিককে টিআইএনধারী হতে হবে এবং নিয়মিত ভ্যাট পরিশোধ করতে হবে। আর কোম্পানি হলে জয়েন্ট স্টক থেকে কোম্পানির রেজিস্ট্রেশন নিতে হবে।

৩. নিজস্ব অফিস থাকতে হবে।

৪. ঢাকায় সেবা দেওয়ার জন্য কমপক্ষে ১০০, চট্টগ্রামে ৫০টি এবং অন্য জেলা শহরে ২০টি গাড়ি থাকতে হবে।

৫. গাড়িগুলোর বিআরটিএ থেকে ট্যাক্স পরিশোধ ও রুট পারমিট আপডেট থাকতে হবে।

৬. মালিক ও চালকের মধ্যে একটি সমঝোতা চুক্তি থাকতে হবে।

৭. স্ট্যান্ডছাড়া যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং করা যাবে না।

৮. বিআরটিএর ওয়েবসাইটে এই সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান, মালিক ও চালকের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য থাকতে হবে।

৯. তালিকাভুক্তির জন্য আবেদনের সঙ্গে এক লাখ টাকাসহ অন্যান্য ফি জমা দিতে হবে। তালিকাভুক্তির মেয়াদ হবে তিন বছর। পরে এটি নবায়ন করতে হবে। নবায়ন ফি হবে ১০ হাজার টাকা।

১০. মালিক ও চালকের বিরুদ্ধে অনলাইনে অভিযোগ করা যাবে।

১১. শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে তালিকাভুক্তির সনদ বাতিলসহ প্রচলিত আইনে মামলা করা যাবে।

এই শর্তগুলো মোটরসাইকেল ও মোটরযান উভয়ের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top