শিরোনাম

সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - বিসিএস এর ২৬তম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - ‘জিপি লাউঞ্জ’ উদ্বোধন করল গ্রামীণফোন | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - ল্যাপটপ মেলায় আই লাইফের ফ্রী গিফট! | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - শপ আপের নতুন অ্যাড প্ল্যাটফর্মের উদ্বোধন ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - গ্লোবাল ব্র্যান্ড নিয়ে এলো এস সিরিজের নতুন অষ্টম প্রজন্মের নোটবুক | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - অ্যান্ড্রয়েডে আসছে আইফোনের জনপ্রিয় গেম | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - জিপি ওয়াওবক্স ব্যবহারকারীদের জন্য বিশেষ সুবিধা আনল পাঠাও | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - শেষ হলো অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডস ঢাকা ২০১৭ | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - উন্মোচন হলো দেশে তৈরি প্রথম স্মার্টফোন ওয়ালটন ‘প্রিমো ই৮আই’ | রবিবার, ডিসেম্বর 10, 2017 - টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা পূরণে সহায়তা করবে ভেঞ্চার ক্যাপিটাল |
প্রথম পাতা / অর্থনীতি / ই-কমার্স খাতে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের নজর এখন বাংলাদেশে
ই-কমার্স খাতে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের নজর এখন বাংলাদেশে

ই-কমার্স খাতে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের নজর এখন বাংলাদেশে

commerce-bdওয়াসিম আলীম ২০১৩ সালে ওয়ার্টন স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করন। এরপর তিনি দেশে ফিরে একটি ই-কমার্স ব্যবসা শুরু করার পরিল্পনা করেন। এটাই ছিলো বাংলাদেশের প্রথম স্টার্টআপ, যা শূন্য থেকে শুরু হয়েছিলো।ওয়াসিম আলীর পরিকল্পনা ছিলো যে, যে করেই হোক এই অবস্থার পরিবর্তন করতে হবে। তিনি অনুভব করেন,‘তখন আমি উপলব্ধি করেছিলাম- আমার যে দক্ষতা আছে তাতে আমার নিজের দেশে একটি প্রযুক্তিনির্ভর ব্যবসা চালু করতে পারি।’

অন্য দেশগুলোর মতো অনলাইনে কেনাকাটার চর্চা শুরু হতে লাগলো। আলীম বুঝতে পেরেছিলেন, অনলাইনে কেনাকাটায় আগ্রহী করতে জনগণকে বোঝানোর মতো একটি চালিকা শক্তি তার ছিলো।

যাইহোক, ইন্টারনেট নির্ভর কোম্পানি পারে না এমন কিছুই নেই। তাই শুরুতেই আলীম একটি ই-মুদি দোকান খোলার পরিকল্পনা করলো। যার নাম দিলেন ‘চালডাল’। মুদির প্রয়োজনীয় পণ্যগুলো গ্রাহকের কাছে পৌঁছে দেয়ার পরিকল্পানা করেন তিনি। গ্রহকদের নিকট পণ্যগুলো পৌঁছে দিতে ঢাকার রাস্তার কু-খ্যাত ট্রাফিক জ্যামে তার দারুন অভিজ্ঞতা হলো।

পরবর্তীতে, কোম্পানিটিতে ভেঞ্চার বিনিয়োগ হয়েছে। বর্তমানে কোম্পানিটির বছরে প্রায় ৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য বিক্রি হয়। এর প্রবৃদ্ধির হার বর্তমানে ১০০ শতাংশ। বিগত ৩-৪ বছর আগে বাংলাদেশে থ্রিজি ইন্টারনেট চালু হওয়ার ফলে, অনলাইনে শপিং খুব দ্রুত বৃদ্ধি পেয়েছে। দেশটি ২০১৭ সালে ই কামার্স খাত থেকে ৭০ শতাংশ প্রবৃদ্ধির আশা করছে। বাংলাদেশের জনসংখ্যা ১৬৫ মিলিয়ন থেকে ৪০ শতাংশ জনগণ ইন্টারনেট ব্যবহার করে ই-কমার্স, এফ-কমার্স (ফেসবুক পেজ ব্যবহার করে ব্যবসা) ও ই-মুদিশপ এই খাতকে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছে।

রকেট ইন্টারনেট সমর্থিত অনলাইন মার্কেট প্লেস ‘দারাজ’, ফক্সকন সমার্থিত ই-রিটেইলার ‘পিকাবু’ এবং ‘চালডাল’ এই ইকোসিস্টেম ব্যবহার করে ই-কমার্স স্টার্টআপের শীর্ষে অবস্থান করছে। ধারণা করা হচ্ছে- বাংলাদেশে এ বছরের ই-কমার্স মার্কেট সাইজ ১১০ থেকে ১১৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার যা, দেশের মোট খুরচা বাজারের ০.৭ শতাংশ। এই দৃষ্টিকোনে এ বছর ভারতে ই-কমার্স মার্কেট ১৭ বিলিয়ন অতিক্রম করার কথা।

বাংলাদেশের ই-গ্রোসারি মার্কেট সাইজ ৪ থেকে ৫ মিলিয়নের কম বা দেশের মোট গ্রোসারি মার্কেটের ০.০৩ শতাংশ। এমনকি, বিশেষজ্ঞরা মনেকরেন, ২০২০ সালে দেশের ই-কমার্স মার্কেটের আকার ২০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার হবে। ভারতের গোল্ডম্যান শ্যাস অনুযায়ী, এই সময়ে ভারতের অনলাইন মার্কেন ৬৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে উন্নীত হওয়ার কথা রয়েছে।

বাংলাদেশের ই-কমার্স মার্কেট ছোট হলেও ক্রমবর্ধমান। এ হিসেবে ৭ বছর আগে ভারতের ই-কমার্স মার্কেটের অবস্থা ভাল ছিল না। ভারতের ৫০০ স্টার্টআপে ভেঞ্চার পার্টনার শালিনী প্রকাশ বলেন,‘ই-কমার্স ব্যবসায় প্রতিযোগিতার জন্য এখনই দারুন সময়। এর মধ্যে ২০১১ সাল থেকে চলমান ৫০টি কোম্পানি রয়েছে।’

bangladesh-b2cদারাজ ২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়ে ইলেকট্রনিক্স যন্ত্রপাতি, পোশাক ও মোবাইল ফোন বিক্রি করে বাংলাদেশ ই-কমার্স মার্কেটে আধিপত্য বিস্তার করছে। কোম্পানিটির প্রবৃদ্ধি প্রতিমাসে দ্বিগুণ হারে বাড়ছে এবং প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, নেপাল ও মায়ানমারের গ্রহকদের কাছে পণ্য বিক্রি করছে। এটা একটি ভাল দিক। পিকাবু প্রতিমাসে ঘড়ি বিক্রি করে ৬ লাখ মার্কিন ডলার আয় করছে, খুব শীঘ্রই চামড়ার পণ্য যুক্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে তাদের।

যখন ফ্লিপকার্ড তাদের ই-কমার্স ব্যবসা শুরু করে তখন তারা শুধুমাত্র অনলাইনে বই বিক্রি করেছিল । অনলাইনে যা দেখছেন আপনাকে তার হুবহু পৌঁছে দেয়াই ছিল তাদের বৈশিষ্ট। আজকের বিশ্বে ইলেকট্রনিক্স ক্যাটাগরির আওতায় কেনাকাটার ব্যবস্থায় পার্থক্য হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। বাংলাদেশের ই-কমার্স মার্কেটের প্রায় ২০ শতাংশই পিকাবুর দখলে বলে জানালেন গুপ্ত।

বিশ্বব্যাংকের বেসরকারি খাতে ঋণ ও বিনিয়োগের খাত ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স কোম্পানি (আইএফসি), বাংলাদেশের ই-কমার্স মার্কেট ও ইকোসিস্টেমকে নজরদারি করেছে। তাদের তালিকায় ৪৩টি স্টার্টআপকে নজরদারির আওতায় রেখেছে যার মধ্যে ‘চালডাল’ বিনিয়োগ উপযোগী প্রতিষ্ঠানগুলোর শীর্ষে রয়েছে।

চালডাল হলো ভারতের ই-গ্রোসারি বিগ বাসকেট এর মতো একটি ই-কমার্স সাইট। এই প্রতিষ্ঠানটি ঢাকাতে অবস্থান করে গুদামজাত মুদি পণ্য বিভিন্ন যায়গায় নেটওয়ার্ক ব্যবহারের মাধ্যমে পৌঁছে দেয়। প্রতিষ্ঠানটির সিইও আলীম বলেন,‘ আমরা চালডালকে উন্মুক্ত করেছি, কারণ আমরা বুঝতে পেরেছি যে, গ্রাহকদের মুদি পণ্যের প্রয়োজন রয়েছে।’ তিনি আরো বলেন,‘যেহেতু দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। দেশকে আরো এগিয়ে নিয়ে যেতে মধ্য শ্রেণির লোকজনদের সময় বাঁচি সেবা দেয়াটা খুব জরুরি।

ভারতের বিভিন্ন ই-কমার্স ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসা প্রসারিত করার জন্য যথেষ্ট পরিমানে বিনিয়োগ করেছে। মার্কেটিং পলিসির মাধ্যমে দ্রুত তাদের ব্যবসাকে সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে বিভিন্ন কৌশল ব্যবহার করেছে তারা। পণ্যের কোয়ালিটি নিশ্চিত ও বিনিয়োগ পলিসি নিয়ে বিগ বাসকেট তা করেছে বলে জানালেন আলীম।

bangladesh-b2c-1সম্প্রতির জন্মানো ই-কমার্স সাইটগুলোর একটি বড় দিক হচ্ছে – অনলাইনের মাধ্যমে গ্রাহকদের খরচের পরিমান ও আয়। ফেসবুক পেজের মাধ্যমে প্রায় ১৫ হাজার ছোট ছোট কোম্পানি তাদের ব্যবসা পরিচালনা করে এবং এই মাধ্যমে প্রায় ৫০ মিলিয়ন ডলার লেনদেন হয় যা ।

রুচিরা শুক্লা বলেন,‘বাংলাদেশের ই-কমার্স ইকোসিস্টেমে একজন বা দুইজন তাদের ব্যবসাকে ডেভেলপ করেছে এবং এখানে রয়েছে অনেক ছোট আকারের বণিক যারা অনলাইনে কেটাবেচা করে। আঞ্চলিক প্রধান্যতার দরুন দক্ষিণ এশিয়ায় ভেঞ্চার ক্যাপিটাল আইএফসি ভারতের বড় ই-কমার্স সাইট বিগ বাসকেটে বিনিয়োগ করেছে। ’

বাংলাদেশের দ্রুত অর্থনৈতিক উন্নতি ও কর্মবর্ধমান শহুরে জনগোষ্ঠির কারণে, আইএফসি বিশ্বাস করে ইকোসিস্টেম ও স্টার্টআপের উন্নতির এখন একটি সুবর্ণ সময়।

শুক্লা বলেন, ‘ম্যাট্রিক্স বাংলাদেশের সুস্থ বিকাশের নির্দেশনা দেয়। আমরা দেশেছি, ভারতের এ লেভেলের কিছু কোম্পানিতে প্রথম সারির বিনিয়োগ করতে।’ তিনি আরো বলেন, ‘ভারতের তুলনায় অনেক বড় ঘন বসতির শহর হচ্ছে -বাংলাদেশ।  যেখানে প্রবৃদ্ধির সীমাবদ্ধতা ভেঙ্গে তাদের প্রত্যাশা নিশ্চিত করে।          সূত্র : দ্য ইকোনোমিক টাইমস

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top