শিরোনাম

সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - রোহিঙ্গাদের কাছে মোবাইল বিক্রি নিষিদ্ধ করেছে সরকার | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - ডাটা খরচ কমাতে আসছে টুইটারের নতুন সংস্করণ | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - লন্ডনে লাইসেন্স বাঁচানোর চেষ্টায় উবার | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - ড্রোন যখন কৃষকের বন্ধু | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - আইফোন ৮ এর ভেতরে যা দেখা গেল | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - ডি-লিংক এর স্পেশাল অফার | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - রংতা ব্র্যান্ডের নতুন পিওএস প্রিন্টার | সোমবার, সেপ্টেম্বর 25, 2017 - নারীর নিরাপত্তা ও শরনার্থীদের শিক্ষা বিষয়ক ধারণা যাচ্ছে ওসলোর টেলিনর ইয়ুথ ফোরামে | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - উদ্বোধনের অপেক্ষায় শেখ হাসিনা সফটওয়্যার পার্ক | রবিবার, সেপ্টেম্বর 24, 2017 - আপনারই কিছু ভুল হয়তো অজান্তে ফোনের পারফরম্যান্স খারাপ করছে |
প্রথম পাতা / অর্থনীতি / এ বছরের সেরা স্টার্টআপ
এ বছরের সেরা স্টার্টআপ

এ বছরের সেরা স্টার্টআপ

নতুন ব্যবসায়িক উদ্যোগগুলোকে বলা হয় ‘স্টার্টআপ’।হাল আমলে দেখা যাচ্ছে, সৃজনশীল ধারণা আর প্রযুক্তির উদ্ভাবনী ব্যবহার আছে যেসব উদ্যোগে, সেগুলোই ‘স্টার্টআপ’ হিসেবে দুনিয়াজুড়ে সফলতা পায়। বিশ্বখ্যাত সাময়িকী ফোর্বস ২০১৩ সালের সেরা ৯ স্টার্টআপের একটা তালিকা প্রকাশ করেছে। এগুলো যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক। সেই তালিকার ছয় ‘স্টার্টআপ’ নিয়ে এ প্রতিবেদন।

best startup 2013

বক্সড
একেবারে কম খরচে পণ্য সরবরাহের সুবিধা দিতে চালু হয়েছে বক্সড। গত জুন মাসে যুক্তরাষ্ট্রের দুটি অঙ্গরাজ্যে চালু হওয়া এই প্রতিষ্ঠান অল্প সময়ের মধ্যেই ৪৮টি রাজ্যে ব্যবসা পরিচালনা করছে। নিউইয়র্কভিত্তিক এই উদ্যোগ প্রতিষ্ঠা করেছেন ‘জিংগা’র সাবেক কর্মকর্তা চি হাং। গত আগস্টে ১১ লাখ ডলার বিনিয়োগ সংগ্রহ করা হয়েছিল বক্সডের জন্য। সাধারণত এই সেবার মাধ্যমে গড়ে ১০০ ডলার মানের অর্ডার করা হয়। খুবই অল্প খরচে পণ্য সংরক্ষণ ও প্রেরণের সুবিধার জন্য দ্রুত জনপ্রিয়তা পেয়ে যায় এই সেবাটি। যদিও অ্যামাজান ডট কমের পণ্য সরবরাহ সেবার সঙ্গে এর প্রতিযোগিতা চলছে। কিন্তু ওয়েবসাইট থেকে নিবন্ধন ছাড়াই মোবাইল ফোনের মাধ্যমে এই সেবা ব্যবহার করার সুবিধা থাকায় বক্সডের জনপ্রিয়তা বেড়েই চলেছে।

ব্লু অ্যাপ্রন
ব্রুকলেনভিত্তিক একটি নৈশভোজের খাবার-দাবার সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান এটি। অনলাইনে অর্ডার নেয় ব্লু অ্যাপ্রন। একই ধরনের সেবাদাতা প্রতিদ্বন্দ্বী প্লেটেড ও হ্যালোফ্রেশকে ছাড়িয়ে বর্তমানে এটি যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান। বিনিয়োগকারী ম্যাট স্যালজবার্গ ই-কমার্সে খ্যাতিমান ‘ইলিয়া পেপস’ ও অভিজ্ঞ শেফ ম্যাথু ওডিয়াককে নিয়ে যৌথভাবে এ প্রতিষ্ঠান চালু করেন। বিশেষ ধরনের উপাদানে এবং সহজে তৈরি করা যায় এমন খাবার সরবরাহ করতে সহায়তা করছেন ম্যাথু। অতিরিক্ত কোনো ফি ছাড়া মাত্র ৯ দশমিক ৯৯ ডলারে নৈশভোজের খাবার পাওয়া যায় এখানে। যুক্তরাষ্ট্রের মোট জনসংখ্যার ৮০ শতাংশের খাবার সরবরাহ করেছে এই প্রতিষ্ঠান। বর্তমানে এটি প্রতি মাসে তিন লাখ খাবার সরবরাহ করছে।

কয়েন বেজ
সানফ্রানসিসকোভিত্তিক কয়েনবেজ বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বেশি প্রচলিত অনলাইনে ডলার ক্রয়ের পদ্ধতি। ডিসেম্বরে অ্যান্ড্রিসেন হরোউইজ এই প্রতিষ্ঠানের জন্য আড়াই কোটি ডলার ব্যাংকে জমা করেন। এর পরে মোট তিন কোটি ১০ লাখ ডলার নিয়ে যাত্রা শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি। বর্তমানে এটি ১৬ হাজার মার্চেন্টকে নিয়মিত লেনদেনে সহায়তা করছে। ২০১২ সালে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। গত এপ্রিল মাসে কয়েন বেজের মাধ্যমে দেড় কোটি ডলার লেনদেন হয়েছে। তখন এর প্রাহক ছিল এক লাখা ১৫ হাজারের বেশি। বর্তমানে গ্রাহকের সংখ্যা ছয় লাখ ছাড়িয়ে গেছে।
এস্টিমাইজ
শেয়ারবাজারে আয়ের সম্ভাব্য পরিমাণ নির্ধারণে সহায়তা দেয় এই প্রতিষ্ঠান। ব্যবহারকারীদের আগের পরিমাণ থেকে মোট সম্ভাব্য আয় নির্ধারণ করা হয় এবং এর ওপর ভিত্তি করে নির্দিষ্ট ব্যবহারকারীর সম্ভাব্য আয় সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যেতে পারে। এই সম্ভাব্য পরিমাণ নির্ধারণে সহায়তা করছেন তিন হাজার প্রদায়ক বিশ্লেষক এবং ১৫ হাজার সদস্য। এখানে যে আয়ের যে সম্ভাব্য পরিমাণ দেওয়া হয়, সেটি ওয়াল স্ট্রিটের বর্ণনা থেকে ৬৯ শতাংশ বেশি সময় সঠিক প্রমাণিত হয়েছে। এস্টিমাইজ প্রতিমুহূর্তে শেয়ারবাজারের বিশ্লেষণ প্রকাশ করে অনলাইনে। ম্যাথু জর্ডিং ২০১১ সালে এই প্রতিষ্ঠান শুরু করেছেন এবং গত বছর কোম্পানির পরিধি ব্যাপ্তির জন্য দেড় কোটি ডলার সংগ্রহ করা হয়েছে।

হায়ার্ড
হায়ার্ড একটি মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনার প্রযুক্তিগত সমাধান, যার মাধ্যমে কারিগরি কাজে দক্ষ ব্যক্তিদের খুঁজে পাওয়া যায়। বর্তমানে ৭২০টি প্রতিষ্ঠানের জন্য সেবাদানকারী এই প্রতিষ্ঠান সবচেয়ে বড় মানবসম্পদ পাওয়ার জায়গা হিসেবে নিজেদের দাবি করে থাকে। হায়ার্ড জানিয়েছে যে তাদের কাছে প্রকৌশলী ও ডিজাইনারদের চাহিদাই সবচেয়ে বেশি। টুইটার, পিন্টারেস্টের মতো প্রতিষ্ঠান নিয়মিতভাবে এখান থেকে কর্মী নিয়োগ করে থাকে। হায়ার্ডের মাধ্যমে নতুন কোনো প্রতিষ্ঠানে যোগ দিলে হায়ার্ডের পক্ষ থেকে তাকে ন্যূনতম তিন হাজার ডলারের একটি চেক দেওয়া হয়। আর যে প্রতিষ্ঠানে যোগ দেয়, তাদের থেকে ওই কর্মচারীর বেতনের ১ শতাংশ পরিমাণ চার্জ কেটে রাখে।

উইলকল
কনসার্টের টিকিট সহজে পাওয়ার সুযোগ করে দেয় উইলকল। ২০১০ সালে প্রতিষ্ঠিত এই প্রতিষ্ঠান এ বছর থেকে ব্যাপকভাবে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা শুরু করেছে। এ বছর এখানে মোট ১২ লাখ ডলার বিনিয়োগ করেছে এসভি অ্যাঞ্জেল, ন্যাপস্টারের প্রতিষ্ঠাতা শন পার্কার। আগামী বছর আরও বড় পরিসরে কার্যক্রম শুরুর পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন কোম্পানির সহপ্রতিষ্ঠাতা ডোমেনিক ডিনচ। ২৪ বিলিয়ন ডলার মূল্যের লাইভ মিউজিক ইন্ডাস্ট্রির জন্য সব সহায়তা নিশ্চিত করার পরিকল্পনা রয়েছে এই প্রতিষ্ঠানের। মোবাইল অ্যাপস ও অনলাইনেই মূলত টিকিট বিক্রি করে প্রতিষ্ঠানটি।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top