শিরোনাম

শুক্রবার, অক্টোবর 20, 2017 - ইন্টেলের ৮ জেন কোর প্রসেসর বাইনারি লজিকে | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর 19, 2017 - গুগল ফটোসে যে ভাবে ব্যক্তিগত ছবি ও ভিডিও লুকাবেন | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর 19, 2017 - মধ্যবিত্তের কথা ভেবে সস্তায় মাইক্রোম্যাক্সের নতুন ফোন | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর 19, 2017 - নতুন ফিচারের ক্যামেরা নিয়ে উন্মুক্ত হলো নোকিয়া ৭ | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর 19, 2017 - পেপালের ‘জুম’ উদ্বোধন করলেন সজীব ওয়াজেদ জয় | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর 19, 2017 - ম্যাক্সেল এর বিভিন্ন পণ্য নিয়ে আইসিটি এক্সপোতে মেট্রো কভারেজ | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর 19, 2017 - সিঙ্গাপুরের মাস্টারকার্ড গ্লোবাল রিস্ক লিডারশিপ কনফারেন্স অনুষ্ঠিত | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর 19, 2017 - শুরু হলো এমসিসিআই অগ্রগামী ২০১৭ | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর 19, 2017 - বিএমই দিচ্ছে আইসিটি এক্সপো উপলক্ষে তোশিবা পণ্যে বিশেষ অফার! | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর 19, 2017 - আইসিটি এক্সপো তে আসুসের সর্বাধুনিক প্রযুক্তির নোটবুক |
প্রথম পাতা / ক্যারিয়ার / ক্যান্ডি: গ্র্যাজুয়েশনের পর জিপি অ্যাকসেলারেটর টিম
ক্যান্ডি: গ্র্যাজুয়েশনের পর জিপি অ্যাকসেলারেটর টিম

ক্যান্ডি: গ্র্যাজুয়েশনের পর জিপি অ্যাকসেলারেটর টিম

1465897438
ব্যবহারকারীদের লক স্ক্রিনে কন্টেন্ট নিয়ে আসার মত বুদ্ধিমান একটি অ্যাপের মত কাজ করে যাচ্ছে ক্যান্ডি। কম সময়ের মধ্যে ক্যান্ডি অ্যাপটি যে কোন ব্যবসায়িক কন্টেন্টকে সবার কাছে পরিচিত করে তোলার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। সম্প্রতি জিপি অ্যাকসেলারেটর প্রোগ্রাম থেকে গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করেছে সেরা পাঁচের একটি দল ক্যান্ডি।
অক্টোবর ২০১৫ থেকে বাংলাদেশের সেরা টেকনোলজি স্টার্ট-আপদের অ্যাকসেলারেট করার জন্য গ্রামীণফোনের সাথে এসডি এশিয়া যুক্ত হয়ে ‘জিপি অ্যাকসেলারেটর’ প্রোগ্রামের যাত্রা শুরু করে। ‘জিপি অ্যাকসেলারেটর’ প্রোগ্রামের প্রথম ব্যাচের জন্য কয়েকশ’ স্টার্ট-আপ অ্যাপ্লিকেশন থেকে ইন্টার্ভিউ, ডেমো প্রেজেন্টেশন এবং বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বাছাই শেষে ‘জিপি অ্যাকসেলারেটর’ প্রোগ্রামের জন্য সেরা পাঁচটি স্টার্ট-আপকে বাছাই করা হয়েছে।ক্যান্ডিও ছিল সেই সেরাদের একটি দল।
ক্যান্ডির সিইও সিদ্দিক আবু বক্করের সাথে কথা বলে জিপি অ্যাকসেলারেটর থেকে স্টার্টআপদের শেখার মত অনেক বিষয় নিয়েই জানা গেল। সিদ্দিক জানালেন অ্যাকসেলারেটর প্রোগ্রাম কিভাবে একটি স্টার্টআপকে সাহায্য করে,
অ্যাকসেলারেটরে যোগদান করার পর স্টার্টআপের এগিয়ে চলা:
জিপি অ্যাকসেলারেটর প্রোগ্রাম থেকে ক্যান্ডির সবচেয়ে বেশী কাজে এসেছে সবার কাছে পরিচিত হওয়ার সুযোগকে। এতে করে তাদের মার্কেটিং এবং অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারকারীর সংখ্যা অনেক বেড়ে গেছে। যেখানে জিপি অ্যাকসেলারেটর যোগদানের আগে তাদের সক্রিয় ব্যবহারকারী ছিল ১০ জন, এখন তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫০০ ব্যবহারকারী।প্রতিদিন এখন, ১০০-র বেশী ব্র্যান্ডের ৫০০টিরও বেশী বিজ্ঞাপন প্রকাশিত হয় এই অ্যাপে।ক্যান্ডি অ্যাপে এখন গড়ে ২০ মিনিটেরও বেশী সময় ধরে ব্যবহারকারীরা ব্যয় করে।
জিপি অ্যাকসেলারেটর প্রোগ্রাম থেকে শিক্ষা:
এক্সপার্টদের মেন্টরশিপ থেকেই সবচেয়ে বেশী শিখেছেন বলেই মনে করছে সিদ্দিক। শুধু তাই নয়, অনেক বিনিয়োগকারীদের সাথেও দেখা করার সুযোগ পেয়েছে ক্যান্ডি। ৪-মাসের এই বুটক্যাম্পকে সিদ্দিক স্টার্টআপদের অনেক কিছুই শেখার মত একটি প্রোগ্রাম বলেই মনে করছেন।
ডেমো ডে থেকে অভিজ্ঞতা:
৪ মাসের জিপি অ্যাকসেলারেটর প্রোগ্রাম শেষ করে ডেমো ডেতে ক্যান্ডি ১০০-র বেশী সংখ্যক বিনিয়োগকারী, প্রফেশনাল এবং উদ্যোক্তাদের সামনে তাদের ব্যবসা তুলে ধরার সুযোগ পেয়েছে। এমনকি অনেক বিনিয়োগকারীদের নজরও কেড়েছে সম্ভাবনাময় এই স্টার্টআপটি। সিদ্দিক মনে করেন জিপি অ্যাকসেলারেটরে যোগদানের পর ১০% ব্যবসার অংশ দিয়ে দিলেও তার চেয়ে অনেক বেশী কিছুই অর্জন করতে পেরেছে তারা স্টার্টআপটি।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top