শিরোনাম

মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - বাজারে এলো শাওমির নতুন দুই ফোন | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - বিশ্ব বিখ্যাত পাঁচ রাঁধুনি রোবট | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - সনি’র দুর্দান্ত এক আপকামিং ফোনের তথ্য ফাঁস | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - বিসিএস এর ২৬তম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - ‘জিপি লাউঞ্জ’ উদ্বোধন করল গ্রামীণফোন | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - ল্যাপটপ মেলায় আই লাইফের ফ্রী গিফট! | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - শপ আপের নতুন অ্যাড প্ল্যাটফর্মের উদ্বোধন ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - গ্লোবাল ব্র্যান্ড নিয়ে এলো এস সিরিজের নতুন অষ্টম প্রজন্মের নোটবুক | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - অ্যান্ড্রয়েডে আসছে আইফোনের জনপ্রিয় গেম | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - জিপি ওয়াওবক্স ব্যবহারকারীদের জন্য বিশেষ সুবিধা আনল পাঠাও |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / ফলোআপ > ৪ আইজিডব্লিউ প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধ করল বিটিআরসি
ফলোআপ > ৪ আইজিডব্লিউ প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধ করল বিটিআরসি

ফলোআপ > ৪ আইজিডব্লিউ প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধ করল বিটিআরসি

সরকারের পাওনা প্রায় ১২০ কোটি টাকা গতকালের মধ্যে পরিশোধ করতে ছয় ইন্টারনেট গেটওয়ে প্রতিষ্ঠানকে (আইজিডব্লিউ) নির্দেশ দিয়েছিল নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।
কিন্তু ছয় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দুটি গতকাল বিটিআরসিতে পারফরম্যান্স ব্যাংক গ্যারান্টি জমা দিয়েছে। বাকি চারটি প্রতিষ্ঠান বকেয়া পরিশোধ না করায় তাদের কার্যক্রম বন্ধের বিষয়ে গতকালই চিঠি দিয়েছে বিটিআরসি।বিটিআরসি সূত্রে জানা গেছে, বকেয়া পরিশোধে ব্যর্থ চার আইজিডব্লিউ প্রতিষ্ঠান হলো— মসফাইভ টেল, এসএম কমিউনিকেশন, ফার্স্ট কমিউনিকেশন ও সেল টেলিকম। গতকাল ব্যাংক গ্যারান্টি জমা দিয়েছে র্যাংকস টেলিকম ও সিগমা ইঞ্জিনিয়ার্স।
IGW-BTRC
এ প্রসঙ্গে বিটিআরসির সহকারী পরিচালক (মিডিয়া অ্যান্ড কমিউনিকেশন্স) জাকির হোসেন খান বণিক বার্তাকে বলেন, ছয় আইজিডব্লিউ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দুটি ব্যাংক গ্যারান্টি জমা দিয়েছে। কার্যক্রম বন্ধের বিষয়ে গতকালই বাকি চার প্রতিষ্ঠানকে চিঠি দেয়া হয়েছে।
বকেয়া পরিশোধ না করায় এর আগে আরো ছয় প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধ করেছে কমিশন। এগুলো হলো— ভিশনটেল, বেসটেক টেলিকম, রাতুল টেলিকম, টেলেক্স, কেএওয়াই টেলিকমিউনিকেশন্স ও অ্যাপল গ্লোবালটেল কম লিমিটেড।
নিয়মিত অর্থ পরিশোধ না করায় প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে বকেয়া থাকা বিপুল অঙ্কের অর্থ আদায়ের লক্ষ্যে গত অক্টোবরে নীতিমালা সংশোধন করে বিটিআরসি। সংশোধিত নীতিমালা অনুযায়ী, আইজিডব্লিউগুলোকে ব্যাংক গ্যারান্টি হিসেবে অ্যাকাউন্টে ন্যূনতম সাড়ে ৭ কোটি টাকা রাখতে হবে। এক বছরের জন্য এ ব্যাংক গ্যারান্টি দেয়ার বাধ্যবাধকতা দেয়া হয়। তবে সংশোধনের আগে নীতিমালা অনুযায়ী প্রতিটি আইজিডব্লিউর জন্য ব্যাংক গ্যারান্টি নির্ধারিত ছিল ১৫ কোটি টাকা।
সম্প্রতি বার্ষিক লাইসেন্স ফি ও রাজস্ব আয়ের ভাগাভাগির অংশসহ অন্যান্য পাওনা নিয়মিত না দেয়ায় আইজিডব্লিউগুলোর বকেয়ার পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় হাজার কোটি টাকা। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ব্যাংক গ্যারান্টি রাখার বিষয়ে প্রতিষ্ঠানগুলোকে নির্দেশ দেয় কমিশন। প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে থাকা সরকারের পাওনা অর্থ সমন্বয়ের উদ্দেশেই ব্যাংক গ্যারান্টির বিষয়ে এ বাধ্যবাধকতা দেয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা।
বিটিআরসি সূত্রে জানা গেছে, র্যাংকস ও সিগমার কাছে সরকারের পাওনা প্রায় ২৪ কোটি টাকা। তবে প্রতিষ্ঠান দুটি ব্যাংক গ্যারান্টি হিসেবে দিয়েছে ১৫ কোটি টাকা। বাকি চার প্রতিষ্ঠানের কাছে সরকারের পাওনা প্রায় শতকোটি টাকা।
এদিকে আইজিডব্লিউ লাইসেন্স পাওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য বার্ষিক লাইসেন্সিং ফিও কমিয়ে অর্ধেক করা হয়েছে। নীতিমালা সংশোধন করে প্রতিষ্ঠানগুলোর এ ফি কমানো হয়েছে। আগে যেখানে প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানকে বার্ষিক লাইসেন্স ফি সাড়ে ৭ কোটি টাকা দিতে হতো, তা সংশোধন করে এখন ৩ কোটি ৭৫ লাখ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।
বর্তমানে দেশে আইজিডব্লিউ লাইসেন্সধারী প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ২৯। ২০০৮ সালে অনুষ্ঠিত নিলামের মাধ্যমে লাইসেন্স পায় চার প্রতিষ্ঠান। আর গত বছরের এপ্রিলে নতুন ২৫টি প্রতিষ্ঠানকে এ লাইসেন্স দেয় কমিশন। আইজিডব্লিউগুলো আন্তর্জাতিক কল আদান-প্রদান করছে। আর আইজিডব্লিউর মাধ্যমে আসা কল গ্রাহক পর্যায়ে পৌঁছে দিচ্ছে সেলফোন ও ফিক্সড ফোন অপারেটররা।

 

 

আগের খবরঃ

ছয় আইজিডব্লিউ বন্ধ হচ্ছে আজ

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top