শিরোনাম

রবিবার, নভেম্বর 19, 2017 - লেনেভোর নতুন দুইটি ট্যাব উন্মোচন | রবিবার, নভেম্বর 19, 2017 - ব্যবহারকারী বাড়াতে ফেসবুক এর নতুন অ্যাপ | রবিবার, নভেম্বর 19, 2017 - নোট ৫ এর আদলে ‘শাওমিY1’ | রবিবার, নভেম্বর 19, 2017 - নেটগিয়ার অরবি আরবিকে৪০বাজারে | রবিবার, নভেম্বর 19, 2017 - বিপিএল এ ক্রিকেট বেটিং বন্ধে দরকার নতুন আইন ও সচেতনতা | রবিবার, নভেম্বর 19, 2017 - ঢাকায় দ্বিতীয় বাংলাদেশ রিটেইল কংগ্রেস অনুষ্ঠিত | শনিবার, নভেম্বর 18, 2017 - এখন হোয়্যাটসঅ্যাপে ডিলিট হয়ে যাওয়া মেসেজও পড়তে পারবেন | শনিবার, নভেম্বর 18, 2017 - বাজারে এসেছে গুগল এর পিক্সেল ২এক্সএল | শনিবার, নভেম্বর 18, 2017 - উন্মুক্ত হলো ওয়ানপ্লাস ৫টি | শনিবার, নভেম্বর 18, 2017 - আইটি প্রশিক্ষণে আয় করে ফি পরিশোধের সুযোগ |
প্রথম পাতা / অফবিট / মহাকাশযানে লেটুস চাষ
মহাকাশযানে লেটুস চাষ

মহাকাশযানে লেটুস চাষ

nasaইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশন (ISS) এ সবজি জন্মানোর ব্যাপারটা চমকপ্রদ মনে হতে পারে। কিন্তু এই কাজটি যেমন খরুচে, তেমনি মহাকাশচারীদের সময়ও নষ্ট করে খুব।

মহাকাশযানে সবজি চাষ করানোর ব্যাপারটা সহজ করার জন্য খাবারের বক্স প্রস্তুতকারক টাপারওয়্যারের সাহায্য নেবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নাসা।

ভেজিটেবল প্রোডাকশন সিস্টেম হলো এমন একটি এক্সপেরিমেন্ট যা ISS এ নেওয়া হয় ২০১৪ সালে। ভরশূন্য পরিবেশে প্লাস্টিক গ্রিনহাউজে গাছ জন্মানো হয়।

লাল, নীল এবং সবুজ এলইডি লাইটের আলোয় এদেরকে রাখা হয়। মহাকাশযানে মাটি নিয়ে যাওয়াটা মোটেই বুদ্ধিমানের কাজ নয়, এ কারণে এসব গাছের  বীজ “রোপন” করা হয় এক ধরণের বালিশে যা পানি ধরে রাখে এবং গাছের মূল বিস্তার করার মাধ্যম হিসেবে কাজ করে।

সমস্যা হলো, এতদিন ধরে ব্যবহার হয়ে আসা এসব বালিশ খুব একটা পানি ধরে রাখতে পারে না, নিয়ম করে এতে পানি দিতে হয়। এগুলোতে পানি  দিতে গেলে অনেক মূল্যবান সময় নষ্ট হয় মহাকাশচারীদের।

মহাকাশচারীদের দিয়ে লেটুস গাছে পানি দেওয়া আর একজন নিউরোসার্জন হায়ার করে ঘাস কাটানো একই কথা। এ কারণে নাসা চেষ্টা করতে এই পদ্ধতিটাকে আরও উন্নত করতে, যাতে মহাকাশচারীদের এত সময় নষ্ট না হয়।

এই ক্ষেত্রে নাসা সাহায্য নিচ্ছে টাপারওয়্যার কোম্পানির। তাদের আছে ফুড-গ্রেড প্লাস্টিকের পণ্য তৈরির ৭৫ বছরের অভিজ্ঞতা।  তারা নাসার জন্য তৈরি করে দেবে প্লাস্টিক মেশের তৈরি এমন একটি পিলো যা স্পঞ্জের মতো পানি ধরে রাখবে এবং মূল বাড়তে সাহায্য করবে জিরো গ্রাভিটিতে।

এই সিস্টেমকে বলা হচ্ছে প্যাসিভ অরবিটাল নিউট্রিয়েন্ট ডেলিভারি সিস্টেম বা PONDS। টাপারওয়্যারের পাশাপাশি টেকশট কোম্পানিটিও এক্ষেত্রে সাহায্য করবে।

২০১৮ সালের শেষের দিকে এই PONDS ডিভাইস পাঠানো হবে ISS এ। দুইটি স্পেসএক্স ড্রাগন কার্গো মিশনে তা পাঠানো হবে। এরপর ছয়টি পিলো কাজে লাগানো হবে এসব গাছ জন্মাতে।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top