শিরোনাম

বুধবার, সেপ্টেম্বর 20, 2017 - দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারী ব্যাকআপ দিবে আইটেল পি ১১ স্মার্টফোন | বুধবার, সেপ্টেম্বর 20, 2017 - ভিসা এবং এসএসএলকমার্জ শুরু করলো অনলাইন ধামাকার দ্বিতীয় রাউন্ড | মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর 19, 2017 - প্রতিশ্রুতিশীল প্রযুক্তি বিষয়ক স্টার্টআপের খোঁজে সিডস্টারস ওয়ার্ল্ড | মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর 19, 2017 - ফেইসবুকে কাউকে বন্ধু করার ক্ষেত্রে কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখা জরুরি | মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর 19, 2017 - ম্যার্শম্যালো এখনো শীর্ষে | মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর 19, 2017 - দীর্ঘক্ষণ ব্যাটারি ব্যাকআপ দেবে ওয়ালটনের নতুন ফোন | মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর 19, 2017 - হ্যাকারের হানায় ঝুঁকিতে সিক্লিনার ব্যবহারকারীদের ডিভাইস | মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর 19, 2017 - শুরু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের প্রথম ডিজিটাল রিয়ালিটি শো “বাংলালিংক নেক্সট টিউবার” | মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর 19, 2017 - ড্যফোডিল পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের বৃত্তিপ্রাপ্তদের সংবর্ধনা | মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর 19, 2017 - এইচপি’র মাল্টিফাংশন কপিয়ার বাজারে |
প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / ফিচার পোস্ট / সাইবার বিশ্ব যুদ্ধের আশঙ্কা: প্রস্তুতি নিচ্ছে বাংলাদেশও!
সাইবার বিশ্ব যুদ্ধের আশঙ্কা: প্রস্তুতি নিচ্ছে বাংলাদেশও!

সাইবার বিশ্ব যুদ্ধের আশঙ্কা: প্রস্তুতি নিচ্ছে বাংলাদেশও!

cyber-warইসরায়েলের হ্যাকার সংগঠন ইসরায়েল এলিট ফোর্স চলতি মাসের ৪ জুন অপারেশন ইসলাম (#OpIslam)নামের একটা বার্তা প্রকাশ করার পর বিশ্বব্যাপী উত্তাল সৃষ্টি হয়েছে।তাদের বার্তা থেকে জানা গেছে, আমেরিকা, ইসরায়েল, রাশিয়ার হ্যাকাররা সংঘবদ্ধভাবে মুসলিম দেশের সাইবার স্পেসের উপর হামলা চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে।আগামী ২৬ জুলাই চূড়ান্তভাবে হামলা চালানো হবে। এদিকে গত ৭ জুন একইসাথে মুসলিম দেশের হ্যাকাররাও পাল্টা আক্রমণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিশ্লেষকদের মতে, ঢালাও এই হামলা পাল্টা হামলা দীর্ঘস্থায়ী হলে সাইবার বিশ্ব যুদ্ধ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।এদিকে সম্প্রতি ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু এই যুদ্ধ সম্পর্কে বিবৃতিও দিয়েছেন।মুসলিম দেশগুলোর পক্ষ নিয়ে কাজ করার জন্য এই সাইবার যুদ্ধে অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশের হ্যাকার সংগঠন বাংলাদেশ গ্রে হ্যাট হ্যাকারস।

হ্যাকারদের সংবাদ সরবরাহকারী ওয়েবসাইট হ্যাকার নিউজ বুলেটিন জানিয়েছে, এখন (১২ জুন ভোর) পর্যন্ত বাংলাদেশ গ্রে হ্যাট হ্যাকারস প্রস্তুতি মূলক ৬০১ টি ইসরাইলী সাইট হ্যাক করেছে।গত ৪ জুন হটাৎ করেই ইসরায়েলের হ্যাকার সংগঠন ইসরায়েল এলিট ফোর্স ঘোষণা দেয় তারা চলতি মাসের ২৬ জুন মুসলিম দেশগুলোতে সাইবার হামলা চালাবে। একই সাথে তারা তাদের মিত্র হ্যাকার সংগঠনগুলোকে এই হামলায় অংশ নেওয়ার জন্য আহ্বান জানায়।

ইউটিউবে প্রজেক্ট লিকাভাত নামের একজন ইসরায়েল এলিট ফোর্স এর পক্ষে “হ্যাকার কল টু অ্যাকশন অপারেশন ইসলাম” শিরোনামে একটি ভিডিও প্রকাশ করে। সাথে তাদের ফেসবুক ও টুইটারএকাউন্টের ঠিকানাও দেওয়া হয়।বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মুসলিম দেশগুলোতে হামলা করার জন্য নির্দেশনা দিচ্ছে ইসরায়েল এলিট ফোর্স। এছাড়া তারা বিদ্বেষ মূলক কিছু তথ্য দিয়েছে পেস্টাবিনে।

ইসরায়েলি হ্যাকারদের জবাব দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে বিশ্বের শীর্ষ হ্যাকার সংগঠন অ্যানোনিমাস। তারা মুসলিম দেশগুলোর হ্যাকার সংগঠনগুলোর সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছে।মুসলিম দেশগুলোর যৌথ এই অভিযানের নাম দেওয়া হয়েছে অপারেশন ইসরায়েল রিলোডেড (#OP Israel Reloaded)।

প্রতিপক্ষের জবাব দিতে তারাও গত ৭ জুন ইউটিউবে একটি বার্তা দিয়েছে।এছাড়া ফেসবুকেও এ সম্পর্কে একটি ইভেন্ট পেজ খোলা হয়েছে।মুসলিম দেশগুলোর সাথে এই হামলায় অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশের হ্যাকার সংগঠন বাংলাদেশ গ্রে হ্যাট হ্যাকারস। তারা প্রাথমিক প্রস্তুতি মূলক এখন পর্যন্ত ৬০১ টি ইসরাইলী সাইট হ্যাক করেছে।

এ সম্পর্কে বাংলাদেশ গ্রে হ্যাট হ্যাকারসের প্রতিষ্ঠাতা এডমিন রটেটিং রটার এই প্রতিবেদককে জানিয়েছেন, আমাদের কাছে এমন একটি সাইবার অস্ত্র আছে, যা হ্যাকিং জগতে “মাস ডিফেসার গান” নামে পরিচিত।

আমরা আশা করছি মাস ডিফেসার গানের মাধ্যমে সাইবার যুদ্ধ শুরুর প্রথম ১৫ মিনিটের মধ্যেই ১০,০০০ ওয়েবসাইটে ডিফেস দিতে পারবো।তিনি আরও জানান, বর্তমান পরিস্থিতি যে দিকে যাচ্ছে তা নিয়মিত হলে হয়তো এটিই হবে মুসলিম এবং অমুসলিম দেশগুলোর মধ্যে প্রথম সাইবার যুদ্ধ।এদিকে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু দাবি করেছেন, ইরান ইসরায়েলের কম্পিউটার নেটওয়ার্কে অব্যাহত সাইবার হামলা চালাচ্ছে। এ ধরনের সাইবার হামলার মাত্রা ক্রমেই তীব্রতর হচ্ছে বলে জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স।

ইরান ও এর অন্য মিত্র দেশগুলো (বিশেষ করে ফিলিস্তিন ও লেবানন) থেকে এ সাইবার হামলার সূত্রপাত হচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন নেতানিয়াহু।এ হামলার বেশির ভাগই হচ্ছে দেশটির মূল নিরাপত্তা ব্যবস্থা ও স্পর্শকাতর তথ্যসমৃদ্ধ বিভিন্ন স্থাপনার ওয়েবসাইটে। হ্যাকারদের এ দৌরাত্ম্য থেকে রক্ষা পাচ্ছে না বিদ্যুৎ-জ্বালানি ও ব্যাংকিংয়ের মতো বিভিন্ন সেবামূলক প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইটগুলোও।হ্যাকাররা কোম্পানিগুলোর ওয়েবসাইটে হামলার পাশাপাশি এর মূল সঞ্চালন ব্যবস্থায় বিঘ্ন ঘটাচ্ছে বলেও এ সময় উল্লেখ করেন তিনি।

ইসরায়েলের বাণিজ্যকেন্দ্র হিসেবে পরিচিত তেলআবিবে সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ক এক সম্মেলনে নেতানিয়াহু বলেন, কয়েক মাস ধরে ইরান ক্রমাগতভাবে ইসরায়েলের কম্পিউটারগুলোয় সাইবার হামলা চালিয়ে যাচ্ছে।কখনো কখনো ইরান সরাসরি এ হামলা চালাচ্ছে। আবার কখনো দেশটি তার মিত্র হিজবুল্লাহ ও হামাসের মাধ্যমে এ হামলা পরিচালনা করছে।তবে এ পর্যন্ত ঠিক কতটি হামলা চালানো হয়েছে, সে সম্পর্কে নিশ্চিত করতে পারেননি তিনি। এর বেশির ভাগ হামলাই তেলআবিব ব্যর্থ করে দিতে সক্ষম হয়েছে বলে দাবি করেন নেতানিয়াহু।এ কারণেই এ বিপুল সংখ্যক হামলার পরও খুবই কম হামলা সম্পর্কেই গণমাধ্যমকে অবহিত করা হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top