শিরোনাম

বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় র‌্যাংকিং নিয়ে ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির সংবাদ সম্মেলন | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - বাংলাদেশে ডেলইএমসি এক্সপেরিয়েন্স সেন্টার চালু | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - চীনে স্কাইপ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - আসছে দুই সিমের আইফোন | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলের জন্য অসাধারণ অ্যাপ ফেসবুক-এর | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - ইয়োন্ডার মিউজিক বাংলাদেশের এক নম্বর মিউজিক অ্যাপ | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - উদিয়মান ব্রান্ড হিসেবে লিনেক্স পেল ‘গ্লোবাল ব্রান্ড এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড ২০১৭’ | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - ইউনিক বিজনেস সিস্টেমস লিমিটেড ডিলার সেলিব্রেশন ২০১৭ | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 23, 2017 - এলো ডেলের নতুন ইন্সপাইরন এন৭৩৭০ ল্যাপটপ | বুধবার, নভেম্বর 22, 2017 - আবার স্মার্টফোনে ফিরছে ইন্টেল |
প্রথম পাতা / প্রডাক্ট রিভিউ / অন্যান্য / সেরা সব ব্ল–টুথ হেডসেট
সেরা সব ব্ল–টুথ হেডসেট

সেরা সব ব্ল–টুথ হেডসেট

সময়ের জনপ্রিয়তম পণ্যের নাম স্মার্টফোন। এর সাথে পাল্লা দিয়ে দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ট্যাবলেট পিসি। এই স্মার্টফোন আর ট্যাবলেট পিসি’র আবশ্যক আকসেসরিজ হিসেবেই এখন উঠে আসছে ব্ল–-টুথ হেডসেটের নাম। নানান ধরনের ব্ল–টুথ হেডসেট এখন রয়েছে বাজারে। এর মধ্যে প্রযুক্তি বিষয়ক জনপ্রিয় সাইট সিনেট-এর দৃষ্টিতে সেরা পাঁচ ব্ল–-টুথ হেডসেটের কথা জানানো হলো এই লেখায়।
270-jobo-bluetooth-headset
জবোন এরা
জবোন তাদের প্রথম ব্ল–টুথ হেডসেট নিয়ে আসে ২০০৭ সালে। এরপর তারা একে একে নিয়ে আসে জবোন-২, জবোন প্রাইম এবং জবোন আইকন। এই ধারাবাহিকতায় সর্বশেষ সংযোজন জবোন এরা। তাদের ব্ল–টুথ হেডসেট সিরিজের সর্বাধুনিক এই হেডসেটটি সিনেটের দৃষ্টিতে সময়ের সেরা হেডসেট। এই হেডসেটগুলো দেখতে অত্যন্ত আকর্ষণীয় এবং অনন্য ডিজাইনের, যা একে সবার থেকে আদা করে তুলেছে। বাড়তি ফিচারের মধ্যে রয়েছে এর কলার আইডি, বিল্ট-ইন অ্যাকসেলারোমিটার, মোশন সেন্সর, আলাদা অন/অফ সুইচ, মাল্টিপয়েন্ট টেকনোলজি, নয়েজ অ্যাসিস্ট্যান্ট টেকনোলজি, উইন্ড নয়েজ রিডাকশন এবং অটেমেটিক ভলিউম কন্ট্রোলার। ব্ল–-টুথ হেডসেটে অ্যাকসেলারেটারের ব্যবহার এই প্রথম। অ্যাকসেলারোমিটার এবং মোশন সেন্সরের সমন্বয়ে এতে নানান ধরনের কাজ কেবল বিভিন্নরকম ঝাঁকুনিতেই করা সম্ভব। আর ইচ্ছাকৃত এবং অনিচ্ছাকৃত ঝাঁকুনির পার্থক্যও বুঝতে পারে এর স্মার্ট সফটওয়্যার। কল রিসিভ করা, রিজেক্ট করা এবং কল শেষ করা ছাড়াও এটি ভয়েস ডায়ালিং এবং লাস্ট-নাম্বার ডায়াল সমর্থন করে। আর এর এইচডি কোয়ালিটির অডিও এবং বিভিন্ন ডিভাইসে এর পারফরম্যন্স একে অপ্রতিদ্বন্দ্বী করে তুলেছে।
প্ল্যানট্রনিক্স ভয়েজার প্রো ইউসি
ব্ল–টুথ হেডসেটের প্রায় শুরুর দিক থেকেই বাজারে রয়েছে প্ল্যানট্রনিক্স। এই সিরিজের সর্বশেষ সংযোজন ‘প্ল্যানট্রনিক্স ভয়েজার প্রো ইউসি’ সিনেটের দৃষ্টিতে দ্বিতীয় সেরা ব্ল–টুথ হেডসেট। আগের হেডসেটগুলোর তুলনায় এতে বাড়তি যুক্ত হয়েছে এটুডিপি স্ট্রিমিং, ভয়েস অ্যালার্ট এবং উন্নততর নয়েজ রিডাকশন প্রযুক্তি। এতে সংযোজিত নতুন সেন্সর টেকনোলজি এটি কখন কানে সংযুক্ত আছে এবং কখন নেই- তা বুঝতে পারে। আর কল রিসিভ করার জন্য এটি কানে পড়াই যথেষ্ট, বাড়তি কিছু করার প্রয়োজন নেই। স্মার্টফোন ছাড়াও এটি ভিডিও কলিং এবং সংশ্লিষ্ট অ্যাপ্লিকেশনগুলোও সমর্থন করে। গান শোনার জন্য এটি চমৎকার একটি হেডসেট। গান শুনতে শুনতে হেডফোনটি খুলে ফেললে সাথে সাথেই এটি গান থামিয়ে দেয়। আবার এটি কানে লাগালেই পুনরায় গান চালু হয়ে ঠিক আগের জায়গা থেকেই। এর ডিজাইনও চিত্তাকর্ষক।
মটোরোলা ফিনিটি
ব্ল–টুথ হেডসেট হিসেবে সিনেটের বিবেচনায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে মটোরোলার ফিনিট। সেরা ব্ল–টুথ হেডসেট হিসেবে এর বিশেষ ফিচার হচ্ছে ‘স্টেলথ মোড’, যা পরিবেশের সব ধরনের শব্দ থেকে হেডফোনটিকে মুক্ত রাখে। ফলে স্বচ্ছ এবং পরিস্কার শব্দ পাওয়া যায় এতে। এতে রয়েছে তিনটি বিল্ট-ইন মাইক্রোফোন,  অ্যাডভান্সড মাল্টিপয়েন্ট টেকনোলজি, ক্রিস্টাল টক টেকনোলজি, ইজি পেয়ারিং টেকনোলজি, ইকো ক্যানসেলেশন এবং মটোস্পিক অ্যাপ্লিকেশন সমর্থন। এটি ভয়েস কমান্ড এবং ভয়েস কলার আইডি সমর্থন করে। বাড়তি সুবিধা হিসেবে এটি অ্যানড্রয়েডের বেশকিছু অ্যাপ্লিকেশন সমর্থন করে এবং এর ফলে এটি টেক্সট ম্যাসেজও পড়ে দেয়। চমৎকার ডিজাইনের হেডসেটটি কানের জন্যও আরামদায়ক।
ব্ল–অ্যান্ট কিউ২
ব্ল–টুথ হেডসেট হিসেবে ব্ল–অ্যান্টও দীর্ঘদিন থেকে জনপ্রিয় হিসেবেই স্বীকৃত। কিউ১ মডেলের পর তারা নিয়েছে কিউ২ মডেলের ব্ল–টুথ হেডসেট। ভয়েস কন্ট্রোল, ইকো ক্যানসেলেশন, অডিও গেইন কন্ট্রোল, মাল্টিপয়েন্ট টেকনোলজি, উইন্ড আরমার টেকনোলজিসহ এতে প্রায় সব অত্যাধুনিক ফিচারই রয়েছে। রয়েছে ভয়েস কন্ট্রোল এবং ভয়েস ডায়ালিংয়ের সুবিধা। এর আরেকটি বড় সুবিধা হচ্ছে এর ফার্মওয়্যার আপগ্রেড করার ব্যস্থা রয়েছে। এর মাধ্যমে টেক্সট-টু-স্পিচ ফিচারটিও আকর্ষণীয়। ভয়েস আইসোলেশন থাকায় ভিড়ের মধ্যেও এর মাধ্যমে স্পষ্ট কথা শোনা যায়।
জবোন আইকন এইচডি
সিনেটের সেরা পাঁচে কেবল জবোনেরই দুইটি হেডসেট স্থান পেয়েছে। তাদের দ্বিতীয় হেডসেটটি হচ্ছে আইকন এইচডি + দ্য নার্ড। স্মার্টফোনের পাশাপাশি পিসি এবং ম্যাকেও খুব সহজেই ব্যবহার করা যায় এটি। এতে রয়েছে হাই ডেফিনেশন ওয়াইডব্যান্ড স্পিকার। এর মাল্টিপয়েন্ট টেকনোলজি একইসাথে একে পিসি, ম্যাক এবং স্মার্টফোনের মধ্যে দুইটি ডিভাইসে সংযুক্ত রাখতে পারে। এর মাধ্যমেই গান পজ করা এবং পুনরায় চালু করার সুবিধা রয়েছে। এটি স্কাইপি বা অন্যান্য ভিডিও চ্যাটিং সফটওয়্যার এবং অ্যাপ্লিকেশনও সমর্থন করে। সব ধরনের ডিভাইসের সাথেই এটি সংযুক্ত হতে পারে অত্যন্ত সহজেই।

সেরা সব ব্ল–টুথ হেডসেটসময়ের জনপ্রিয়তম পণ্যের নাম স্মার্টফোন। এর সাথে পাল্লা দিয়ে দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ট্যাবলেট পিসি। এই স্মার্টফোন আর ট্যাবলেট পিসি’র আবশ্যক আকসেসরিজ হিসেবেই এখন উঠে আসছে ব্ল–-টুথ হেডসেটের নাম। নানান ধরনের ব্ল–টুথ হেডসেট এখন রয়েছে বাজারে। এর মধ্যে প্রযুক্তি বিষয়ক জনপ্রিয় সাইট সিনেট-এর দৃষ্টিতে সেরা পাঁচ ব্ল–-টুথ হেডসেটের কথা জানানো হলো এই লেখায়।
জবোন এরাজবোন তাদের প্রথম ব্ল–টুথ হেডসেট নিয়ে আসে ২০০৭ সালে। এরপর তারা একে একে নিয়ে আসে জবোন-২, জবোন প্রাইম এবং জবোন আইকন। এই ধারাবাহিকতায় সর্বশেষ সংযোজন জবোন এরা। তাদের ব্ল–টুথ হেডসেট সিরিজের সর্বাধুনিক এই হেডসেটটি সিনেটের দৃষ্টিতে সময়ের সেরা হেডসেট। এই হেডসেটগুলো দেখতে অত্যন্ত আকর্ষণীয় এবং অনন্য ডিজাইনের, যা একে সবার থেকে আদা করে তুলেছে। বাড়তি ফিচারের মধ্যে রয়েছে এর কলার আইডি, বিল্ট-ইন অ্যাকসেলারোমিটার, মোশন সেন্সর, আলাদা অন/অফ সুইচ, মাল্টিপয়েন্ট টেকনোলজি, নয়েজ অ্যাসিস্ট্যান্ট টেকনোলজি, উইন্ড নয়েজ রিডাকশন এবং অটেমেটিক ভলিউম কন্ট্রোলার। ব্ল–-টুথ হেডসেটে অ্যাকসেলারেটারের ব্যবহার এই প্রথম। অ্যাকসেলারোমিটার এবং মোশন সেন্সরের সমন্বয়ে এতে নানান ধরনের কাজ কেবল বিভিন্নরকম ঝাঁকুনিতেই করা সম্ভব। আর ইচ্ছাকৃত এবং অনিচ্ছাকৃত ঝাঁকুনির পার্থক্যও বুঝতে পারে এর স্মার্ট সফটওয়্যার। কল রিসিভ করা, রিজেক্ট করা এবং কল শেষ করা ছাড়াও এটি ভয়েস ডায়ালিং এবং লাস্ট-নাম্বার ডায়াল সমর্থন করে। আর এর এইচডি কোয়ালিটির অডিও এবং বিভিন্ন ডিভাইসে এর পারফরম্যন্স একে অপ্রতিদ্বন্দ্বী করে তুলেছে।
প্ল্যানট্রনিক্স ভয়েজার প্রো ইউসিব্ল–টুথ হেডসেটের প্রায় শুরুর দিক থেকেই বাজারে রয়েছে প্ল্যানট্রনিক্স। এই সিরিজের সর্বশেষ সংযোজন ‘প্ল্যানট্রনিক্স ভয়েজার প্রো ইউসি’ সিনেটের দৃষ্টিতে দ্বিতীয় সেরা ব্ল–টুথ হেডসেট। আগের হেডসেটগুলোর তুলনায় এতে বাড়তি যুক্ত হয়েছে এটুডিপি স্ট্রিমিং, ভয়েস অ্যালার্ট এবং উন্নততর নয়েজ রিডাকশন প্রযুক্তি। এতে সংযোজিত নতুন সেন্সর টেকনোলজি এটি কখন কানে সংযুক্ত আছে এবং কখন নেই- তা বুঝতে পারে। আর কল রিসিভ করার জন্য এটি কানে পড়াই যথেষ্ট, বাড়তি কিছু করার প্রয়োজন নেই। স্মার্টফোন ছাড়াও এটি ভিডিও কলিং এবং সংশ্লিষ্ট অ্যাপ্লিকেশনগুলোও সমর্থন করে। গান শোনার জন্য এটি চমৎকার একটি হেডসেট। গান শুনতে শুনতে হেডফোনটি খুলে ফেললে সাথে সাথেই এটি গান থামিয়ে দেয়। আবার এটি কানে লাগালেই পুনরায় গান চালু হয়ে ঠিক আগের জায়গা থেকেই। এর ডিজাইনও চিত্তাকর্ষক।
মটোরোলা ফিনিটিব্ল–টুথ হেডসেট হিসেবে সিনেটের বিবেচনায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে মটোরোলার ফিনিট। সেরা ব্ল–টুথ হেডসেট হিসেবে এর বিশেষ ফিচার হচ্ছে ‘স্টেলথ মোড’, যা পরিবেশের সব ধরনের শব্দ থেকে হেডফোনটিকে মুক্ত রাখে। ফলে স্বচ্ছ এবং পরিস্কার শব্দ পাওয়া যায় এতে। এতে রয়েছে তিনটি বিল্ট-ইন মাইক্রোফোন,  অ্যাডভান্সড মাল্টিপয়েন্ট টেকনোলজি, ক্রিস্টাল টক টেকনোলজি, ইজি পেয়ারিং টেকনোলজি, ইকো ক্যানসেলেশন এবং মটোস্পিক অ্যাপ্লিকেশন সমর্থন। এটি ভয়েস কমান্ড এবং ভয়েস কলার আইডি সমর্থন করে। বাড়তি সুবিধা হিসেবে এটি অ্যানড্রয়েডের বেশকিছু অ্যাপ্লিকেশন সমর্থন করে এবং এর ফলে এটি টেক্সট ম্যাসেজও পড়ে দেয়। চমৎকার ডিজাইনের হেডসেটটি কানের জন্যও আরামদায়ক।
ব্ল–অ্যান্ট কিউ২ব্ল–টুথ হেডসেট হিসেবে ব্ল–অ্যান্টও দীর্ঘদিন থেকে জনপ্রিয় হিসেবেই স্বীকৃত। কিউ১ মডেলের পর তারা নিয়েছে কিউ২ মডেলের ব্ল–টুথ হেডসেট। ভয়েস কন্ট্রোল, ইকো ক্যানসেলেশন, অডিও গেইন কন্ট্রোল, মাল্টিপয়েন্ট টেকনোলজি, উইন্ড আরমার টেকনোলজিসহ এতে প্রায় সব অত্যাধুনিক ফিচারই রয়েছে। রয়েছে ভয়েস কন্ট্রোল এবং ভয়েস ডায়ালিংয়ের সুবিধা। এর আরেকটি বড় সুবিধা হচ্ছে এর ফার্মওয়্যার আপগ্রেড করার ব্যস্থা রয়েছে। এর মাধ্যমে টেক্সট-টু-স্পিচ ফিচারটিও আকর্ষণীয়। ভয়েস আইসোলেশন থাকায় ভিড়ের মধ্যেও এর মাধ্যমে স্পষ্ট কথা শোনা যায়।
জবোন আইকন এইচডিসিনেটের সেরা পাঁচে কেবল জবোনেরই দুইটি হেডসেট স্থান পেয়েছে। তাদের দ্বিতীয় হেডসেটটি হচ্ছে আইকন এইচডি + দ্য নার্ড। স্মার্টফোনের পাশাপাশি পিসি এবং ম্যাকেও খুব সহজেই ব্যবহার করা যায় এটি। এতে রয়েছে হাই ডেফিনেশন ওয়াইডব্যান্ড স্পিকার। এর মাল্টিপয়েন্ট টেকনোলজি একইসাথে একে পিসি, ম্যাক এবং স্মার্টফোনের মধ্যে দুইটি ডিভাইসে সংযুক্ত রাখতে পারে। এর মাধ্যমেই গান পজ করা এবং পুনরায় চালু করার সুবিধা রয়েছে। এটি স্কাইপি বা অন্যান্য ভিডিও চ্যাটিং সফটওয়্যার এবং অ্যাপ্লিকেশনও সমর্থন করে। সব ধরনের ডিভাইসের সাথেই এটি সংযুক্ত হতে পারে অত্যন্ত সহজেই।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top