শিরোনাম

মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - দেশের সবচেয়ে বড় গেমিং প্লাটফর্ম ‘মাইপ্লে’ চালু করলো রবি | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - রাজধানীতে টেকনোর আরও নতুন দুইটি ব্র্যান্ড শপের শুভ উদ্বোধন | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - বৃহস্পতিবার থেকে রাজধানীতে ল্যাপটপ মেলা | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - মোবাইল ইন্টারনেট গতিতে বাংলাদেশের অবস্থান ১২০তম | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - জরুরি সেবা ৯৯৯ এর উদ্বোধন করলেন জয় | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - নতুন অ্যাপ ‘ফাইলস গো’ চালু করেছে গুগল | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - বাজারে এলো শাওমির নতুন দুই ফোন | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - বিশ্ব বিখ্যাত পাঁচ রাঁধুনি রোবট | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 12, 2017 - সনি’র দুর্দান্ত এক আপকামিং ফোনের তথ্য ফাঁস | সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - বিসিএস এর ২৬তম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত |
প্রথম পাতা / প্রডাক্ট রিভিউ / ৫ মেগাপিক্সেলের ৭মোবাইল হ্যান্ডসেট
৫ মেগাপিক্সেলের ৭মোবাইল হ্যান্ডসেট

৫ মেগাপিক্সেলের ৭মোবাইল হ্যান্ডসেট

ছবি তোলার জন্য অনেকেই এখন ডিজিটাল ক্যামেরার বদলে ব্যবহার করছেন মোবাইল হ্যান্ডসেট। ভালো মানের ছবি তোলার জন্য একটু ভালো মানের ক্যামেরা আছে এমন হ্যান্ডসেটই খোঁজেন তাঁরা। দেশের বাজারে ৫ মেগাপিক্সেল বা এর চেয়ে বেশি মানের ক্যামেরাসহ হ্যান্ডসেট রয়েছে বেশ কয়েকটি।
সিম্ফনি এক্সপ্লোরার ডাব্লিউ ৯০
দেশি র্ব্যান্ড সিম্ফনির সেটগুলো সাধারণত বড় স্ক্রিনের হয়। সিম্ফনি এক্সপ্লোরার ডাব্লিউ ৯০ মডেলটিও এর ব্যতিক্রম নয়। পাঁচ ইঞ্চি সাইজের এই সেটে রয়েছে ফুল মাল্টিটাচ সুবিধা; যদিও স্ক্রিনের তুলনায় রেজল্যুশন (৪৮০ বাই ৮৫৪ পিক্সেল) যথেষ্ট নয়।পাঁচ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার এই সেট ফ্রন্টে ভিজিএ ক্যামেরাও রয়েছে। ভিডিও রেকর্ড, ওয়াই ফাই, থ্রিজিসহ আছে আরো কিছু সুবিধা। ডুয়েল কোর এক গিগাহার্জ প্রসেসরের এই সেটে রয়েছে চার জিবি রম ও ৫১২ র‌্যাম। অ্যান্ড্রয়েড আইসক্রিম স্যান্ডউইচ ভার্সন ব্যবহার করা হয়েছে এই সেটে। বেশ কিছু সেন্সর, গেম ইত্যাদি ফিচারও রয়েছে। বাজারে সিম্ফনি এক্সপ্লোরার ডাব্লিউ মডেলটির মূল্য ১৪ হাজার ৪৯০ টাকা।
walton-primo-x21
ওয়ালটন প্রিমো জি ১
আরেক দেশি প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন ক্রেতাদের হাতে কম দামে স্মার্টফোন তুলে দিতে প্রাণপণে প্রতিযোগিতা করে যাচ্ছে। মাত্র কয়েক হাজার টাকায় পাওয়া যাচ্ছে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমচালিত এসব স্মার্টফোন। ওয়ালটনের প্রিমো সিরিজের উল্লেখযোগ্য
একটি সেট হচ্ছে ওয়াল্টন জি ১। এ বছরের শুরুতে বাজারে আসা ওয়াল্টন জি ১ সেটটি এরই মধ্যে পেয়েছে গ্রাহকপ্রিয়তা। এর পাঁচ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার সঙ্গে রয়েছে ফ্রন্ট ভিজিএ ক্যামেরাও। আছে ক¤পাস, এক্সেলরোমিটার, লাইট সেন্সর, ওরিয়েন্টশন সেন্সর, প্রক্সিমটি সেন্সর ও জিপিএস সুবিধা। ডুয়েল সিমের এই সেটটি চলে অ্যান্ড্রয়েড আইসক্রিম স্যান্ডউইচ অপারেটিং সিস্টেমে। এক গিগাহার্জ ডুয়েল কোর প্রসেসরের এই সেটে রয়েছে ৫১২ মেগাবাইট র‌্যাম ও চার গিগাবাইট ধারণক্ষমতার অভ্যন্তরীণ স্টোরেজ। সঙ্গে পাওয়া যাবে আট গিগাবাইটের এক্সটার্নাল মেমরি কার্ডও। ৪.৩ ইঞ্চির মাল্টিটাচ সুবিধার মোবাইলটিতে এইচডি ভিডিও করা যাবে। আছে এফএম রেডিও রেকর্ডিং সুবিধাও। ওয়ালটন প্রিমো জি ১ সেটের দাম ১১ হাজার ৪৯০ টাকা।
মাইক্রোম্যাক্স এ১১০ সুপারফোন ক্যানভাস টু
ভারতীয় প্রতিষ্ঠান মাইক্রোম্যাক্সের এ১১০ সুপারফোন ক্যানভাস টুতে রয়েছে আট মেগাপিক্সলের ক্যামেরা। আছে অটোফোকাস করার সুবিধা। সাধারণ মোবাইলে ঘরে কিংবা কম আলোতে ছবি তুললে কিছুটা সবুজাভ ভাব থাকে। এ ঝামেলা দূর করতে এই সেটে আছে ডুয়েল-লেড ফ্ল্যাশ লাইট। এর ভিডিওর মানও বেশ ভালো। ডিসপ্লের সাইজ যেখানে ৫ ইঞ্চি, সেখানে ৪৮০ বাই ৮৫৪ পিক্সেলর ডিসপ্লে রেজল্যুশনকে যথেষ্ট কমই বলা চলে। এ কারণে পরিপূর্ণ এইচডি ভিডিও সমর্থন করবে না এটি। এক গিগাহার্জ ডুয়েল কোর প্রসেসর ও ৫১২ মেগাবাইট র‌্যামে চলে ফোনটি। ব্যবহার করা যাবে দুটি সিম। চলবে অ্যান্ড্রয়েডের আইসক্রিম স্যান্ডউইচ অপারেটিং সিস্টেমে। ১৬৮ গ্রাম ওজনের ফোনটির দাম ১৪ হাজার ৯৯৯ টাকা।
নকিয়া লুমিয়া ৬২০
মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ফোন অপারেটিং সিস্টেমে চলা নকিয়ার লুমিয়া সিরিজের একটি ‘লুমিয়া ৬২০’। এক গিগাহার্জ প্রসেসরের এই সেটে আছে পাঁচ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। সঙ্গে এলইডি ফ্ল্যাশ, জিও ট্যাগিং ও অটো ফোকাস সুবিধা। আছে সেকেন্ডারি ভিজিএ ক্যামেরাও। সেন্সর হিসেবে রয়েছে প্রক্সিমিটি, ক¤পাস ও এক্সেলেরোমিটার। ওয়াইফাই, ৩জি সুবিধা থাকলেও এতে এফএম রেডিও সুবিধা নেই। ৫১২ মেগাবাইট র‌্যামের এই সেটে আছে আট জিবি ইন্টারনাল মেমরি স্টোরেজ। তবে ৬২ জিবি পর্যন্ত এক্সটার্নাল মেমরি কার্ড ব্যবহার করা যাবে। বাজারে ‘নকিয়া লুমিয়া ৬২০’ মডেলের সেটটি পাওয়া যাচ্ছে ২০ হাজার ৮০০ টাকায়।
স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ডুয়োস অ্যান্ড্রয়েডচালিত হ্যান্ডসেটগুলোর মধ্যে স্যামসাং এখন বাজারের সেরা। ব্যতিক্রম নয় স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি এস ডুয়োস। ডুয়েল সিম ব্যবহার সুবিধার এই সেটে অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে অ্যান্ড্রয়েড আইসক্রিম স্যান্ডউইচ। এর প্রসেসর এক গিগাহার্জ। পাঁচ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার পাশাপাশি জিও ট্যাগিং, স্মাইল ডিটেকটর ও এলইডি ফ্ল্যাশ সুবিধাও রয়েছে। এত সুবিধার মধ্যেও ভিডিওর মান নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায়। ৩০ ফ্রেম রেটে ভিডিও রেকর্ড করার কথা বলা হলেও মান আসলে সে রকম নয়। সাদা ও কালো রঙের স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ডুয়োস মডেলের সেটটির বাজারমূল্য ১৯ হাজার ৯০০ টাকা।
সনি এক্সপেরিয়া সোলা
সনির হ্যান্ডসেট সিরিজের মধ্যে সবচেয়ে সফল এক্সপেরিয়া। গত বছরের মে মাসে বাজারে আসে এ সিরিজের ‘সোলা’ মডেলটি। এখনো এর চাহিদা আকাশচুম্বী। পাঁচ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার পাশাপাশি জিও ট্যাগিং, ফেইস, স্মাইল ডিটেকটর, এলইডি ফ্ল্যাশ,অটোফোকাস, ৩ডি প্যানারোমা সুবিধাগুলোও রয়েছে এতে। তবে যে সমস্যা এড়িয়ে যাওয়া যায় না, তা হচ্ছে ফ্রন্ট ক্যামেরার অনুপস্থিতি। শুধু তাই নয়, ভিউ অ্যাঙ্গেল নিয়েও রয়েছে অসন্তুষ্টি। এতে সন্নিবেশ করা জিঞ্জারব্রেড অপারেটিং সিস্টেমকে চাইলে অ্যান্ড্রয়েড আইসক্রিম স্যান্ডউইচেও রূপান্তর করা যায়। এক গিগাহার্জ প্রসেসরের এক্সপেরিয়া সোলায় ভিডিও করা যাবে ৩০ ফ্রেমরেটে। আট গিগাবাইট অভ্যন্তরীণ স্টোরেজ সুবিধা থাকলেও ব্যবহার করা যাবে পাঁচ গিগাবাইট। তবে ৩২ গিগাবাইট পর্যন্ত এক্সটার্নাল মাইক্রো মেমরি কার্ড ব্যবহারের সুবিধাও আছে। বিখ্যাত ব্রাভিয়া ইঞ্জিন ব্যবহৃত সনি এক্সপেরিয়া সোলা মডেলটির দাম ১৮ হাজার ৩০০ টাকা।
হুয়াউই অ্যাসেন্ড ডাব্লিউ ওয়ান
পেছনের ক্যামেরাটি পাঁচ মেগাপিক্সেলের। এর সঙ্গে আছে একটি এলইডি ফ্ল্যাশ লাইট। আর সামনের ক্যামেরাটি দশমিক ৫ মেগাপিক্সেলের। দ্রুত ছবি তোলার জন্য আছে ‘শাটার কি’ নামের বিশেষ এক বাটন, যা দিয়ে মোবাইলটি লক থাকা অবস্থায়ও এক চাপে ক্যামেরা অপশন চালু করা যাবে। আইএসও, হোয়াইট ব্যালান্স ও রেজল্যুশন বাড়ানো-কমানো যাবে। ছবি তোলার জন্য রয়েছে চারটি উপায়থমাইক্রো, পোর্ট্রেট, ¯েপার্ট ও ব্যাকলাইট। তবে ছবির মান সবচেয়ে বেশি ভালো চাইলে ‘অটো’তেই ছবি তোলা ভালো। হুয়াউই অ্যাসেন্ড ডাব্লিউ ওয়ান মোবাইলে শুধু ক্যামেরার জন্য যোগ করা হয়েছে নতুন ফিচার ‘ল্যান্স’। চাইলে ‘উইন্ডোজ ফোন স্টোর’ থেকে নানা রকমের লেন্স ডাউনলোড করে নেওয়া যাবে। এসব লেন্স দিয়ে প্যানরোমা ও বিভিন্ন অ্যাঙ্গেলের ছবি
তোলা যাবে। হুয়াউইর তৈরি প্রথম ‘উইন্ডোজ এইট’ অপারেটিং সিস্টেমের ফোন এটি। চার ইঞ্চি ডিসপ্লে, ১০.১ মিলিমিটার পুরু সেটটিতে আছে সনি এক্সপেরিয়া জেডের মতোই ১.২ গিগাহার্জ ডুয়েল কোর কোয়ালকম ø্যাপড্রাগন প্রসেসর। লাল, নীল,
কালো ও সাদাথএ চার রঙে বাজারে রয়েছে সেটটি। এক্সিলারোমিটার সেন্সরযুক্ত ফোনটিতে থ্রিজি প্রযুক্তি কাজ করবে। দাম ১৮ হাজার ৯৯০ টাকা।

Comments

comments



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *

*

Scroll To Top