ঢাকা | শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ |
২৭ °সে
|
বাংলা কনভার্টার
walton

আইফোন, স্যামসাং বা শাওমিকে টেক্কা দিবে এলো গুগল পিক্সেল ৬!

আইফোন, স্যামসাং বা শাওমিকে টেক্কা দিবে এলো গুগল পিক্সেল ৬!
আইফোন, স্যামসাং বা শাওমিকে টেক্কা দিবে এলো গুগল পিক্সেল ৬!

গুগলের প্রিমিয়াম ফ্ল্যাগশিপ সিরিজের ফোন পিক্সেল ৬ সিরিজের ঘোষণা হল মঙ্গলবার। অসাধারণ ক্যামেরা ও অত্যাধুনিক সব স্মার্ট ফিচার সমৃদ্ধ এই ফোনটি প্রি-অর্ডারও শুরু হয়েছে। পিক্সেল ৬ সিরিজে দুটি ফোন লঞ্চ করা হয়েছে। একটি হচ্ছে পিক্সেল ৬ ও অন্যটি হচ্ছে পিক্সেল ৬ প্রো। এবারের পিক্সেল সিরিজ পিক্সেলপ্রেমীদের জন্য বিশেষ কিছু। কারণ এবারের সবগুলো ফোনে রয়েছে গুগলের নিজস্ব প্রসেসর 'টেনসর'। ধারণা করা হচ্ছে, বাজারে থাকা সমমানের অন্য যেকোনো স্মার্টফোনকে অনায়াসে টেক্কা দিবে এটি!

টেনসর চিপটি গুগল ও স্যামসাং এর যৌথ প্রচেষ্টায় তৈরি করা হয়েছে। মেশিন লার্নিং ও আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের মাধ্যমে ব্যবহারকারীকে সুন্দর অভিজ্ঞতা দিতে টেনসর চিপ অনন্য ভূমিকা রাখবে। এর আগের পিক্সেল ফোনগুলোতে কোয়ালকমের তৈরি স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর ব্যবহার করা হলেও এবার গুগল সিদ্ধান্ত নিয়েছে নিজস্ব চিপ ব্যবহারের। নতুন এই চিপটি ছবি তোলা, গেমিং, দৈনন্দিন ব্যবহার ও অন্যান্য স্মার্ট ফিচার খুব সহজে সম্পন্ন করতে পারবে।

গুগলের ভাষ্যমতে, পিক্সেল ৬ সিরিজ এর আগের পিক্সেল ৫ সিরিজের তুলনায় ৮০ শতাংশ বেশি সিপিইউ পারফরম্যান্স ও ৩৭৫ শতাংশ বেশি গ্রাফিক্স পারফরম্যান্স দিতে পারবে।

পিক্সেল ৬ এবং পিক্সেল ৬ প্রো এর মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য পার্থক্য হচ্ছে এদের ডিসপ্লেতে। পিক্সেল ৬ এ রয়েছে ৬.৪ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস (১০৮০পি) সমতল অ্যামোলেড ডিসপ্লে, যার রিফ্রেশ রেট ৯০ হার্জ। অন্যদিকে, পিক্সেল ৬ প্রো এর ডিসপ্লে ৬.৭ ইঞ্চি এবং এর রেজোলিউশন কোয়াড এইচডি প্লাস (১৪৪০পি)। এই ডিসপ্লের রিফ্রেশ রেট ১২০ হার্জ এবং এটি একটি কার্ভড অ্যামোলেড ডিসপ্লে। দুটি ফোনের ডিসপ্লেই গরিলা গ্লাস ভিকটাস দ্বারা আবৃত।

দুটি ফোনেই নিরাপত্তা হিসেবে রয়েছে আন্ডার ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। এছাড়াও টাইটান এম২ সিকিউরিটি চিপ ব্যবহারের ফলে ফোনের সর্বোপরি নিরাপত্তা আরো বেশি কঠোর হয়েছে।

পিক্সেল ৬ পাওয়া যাবে ৮ জিবি র‍্যামের সাথে ১২৮ ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টে। অপরদিকে পিক্সেল ৬ প্রো পাওয়া যাবে ১২ জিবি র‍্যামের সাথে ১২৮, ২৫৬ ও ৫১২ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টে।

পিক্সেল ৬ এ দেওয়া হয়েছে ৪৬১৪ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি। এটি তারের মাধ্যমে ৩০ ওয়াটের ফাস্ট চার্জ সমর্থন করে এবং ২১ ওয়াটের তারবিহীন চার্জ সমর্থন করে। অন্যদিকে পিক্সেল ৬ প্রো তে রয়েছে ৫০০৩ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি। সাথে রয়েছে তারের মাধ্যমে ৩০ ওয়াটের ফাস্ট চার্জ ও তারবিহীনভাবে ২৩ ওয়াটের ফাস্ট চার্জের সমর্থন।

দুটি ফোনই অ্যান্ড্রয়েড ১২ অপারেটিং সিস্টেমে চালিত। এই ফোন দুটিতে গুগল আগামী তিন বছরের অপারেটিং সিস্টেম আপডেট ও পাঁচ বছরের নিরাপত্তা আপডেট দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

ক্যামেরাতেও এবার রয়েছে বিশাল চমক। গুগলের পিক্সেল ফোন মানেই ক্যামেরাতে বিশেষ কিছু। পিক্সেল ফোনের ক্যামেরা অন্যান্য প্রায় যেকোনো ফোনের থেকেই ভালো ছবি পাওয়া যায়। নতুন টেনসর চিপ ব্যবহারের ফলে এখন ছবি ও ভিডিও—উভয় ক্ষেত্রেই অসাধারণ ফলাফল পাওয়া যাবে। দুটি ফোনই ৫জি মোবাইল নেটওয়ার্ক সমর্থিত।

পিক্সেল ৬ সিরিজের কিছু স্মার্ট ফিচার:

• ক্যামেরা: পিক্সেল ৬ সিরিজের ফোনের ক্যামেরাতে ছবি ও ভিডিও ধারণের ক্ষেত্রে একটু গাঢ় রঙের ত্বকের মানুষদের ত্বকের প্রকৃত রঙ পাওয়া যাবে, যা এতদিন অন্যন্য ফোনের ক্যামেরাতে পাওয়া যেত না। এছাড়াও গুগল আর স্ন্যাপচ্যাটের যৌথ উদ্যোগে গুগলের অসাধারণ ক্যামেরা প্রযুক্তি আসছে স্ন্যাপচ্যাটেও। এতে করে পিক্সেল ব্যবহারকারীরা স্ন্যাপচ্যাটে দারুণ সব ফিল্টার ব্যবহার করে ছবি তুলতে পারবেন।

• লাইভ ট্রান্সলেট: পিক্সেল ৬ সিরিজের ফোনে কোনো ভিডিও দেখার সময় ভিডিওর কথাকে যেকোনো ভাষায় সরাসরি অনুবাদ করা যাবে। ফলে যেকোনো ভাষার ভিডিওই ব্যবহারকারীর পছন্দমত ভাষায় দেখা ও বোঝা যাবে। এছাড়াও মেসেজ ও বিভিন্ন চ্যাটিং অ্যাপে ভিন্ন ভাষাভাষী কারো সাথে বার্তা আদান প্রদানের ক্ষেত্রেও সরাসরি বার্তা অনুবাদ করে পাঠানো যাবে।

• ঝাপসা ছবি আর নয়: ছবি তোলার সময় প্রায়ই ঝাপসা ছবি এসে যায়। এই ঝাপসা ছবিকে ব্যবহারের উপযোগী করে তুলতে গুগল নিয়ে এসেছে “ফেইস আনব্লার” ফিচার। যা দিয়ে কোনো ছবিতে কারো চেহারা ঝাপসা থাকলে তাকে স্পষ্ট করা যাবে।

• কল স্ক্রিনিং: গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট ব্যবহার করে অনাকাঙ্ক্ষিত কলগুলো ব্লক করে দেওয়া যাবে সহজেই।

পিক্সেল ৬ এ রয়েছে ৫০ মেগাপিক্সেলের মূল ক্যামেরার সাথে ১২ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রাওয়াইড ক্যামেরা। পিক্সেল ৬ প্রো তে এই দুই ক্যামেরার পাশাপাশি রয়েছে অতিরিক্ত একটি ৪৮ মেগাপিক্সেলের ৪x টেলিফটো জুম ক্যামেরা। পিক্সেল ৬ এ রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা এবং পিক্সেল ৬ প্রো তে রয়েছে ১১.১ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা।

পিক্সেল ৬ সিরিজের ফোন দুটির প্রি-অর্ডার ইতোমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে। গুগল পিক্সেল ৬ ফোনের দাম শুরু হবে ৫৯৯ ডলার থেকে এবং পিক্সেল ৬ প্রো ফোনের দাম শুরু হবে ৮৯৯ ডলার থেকে।

আইফোন,স্যামসাং,শাওমি,গুগল পিক্সেল ৬,,গুগল পিক্সেল ৬,pixel 6
আরও পড়ুন -
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়